মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১২:১২ পূর্বাহ্ন

বিদ্যুত চমকানিতে মুস্তাফিজের নতুন ইনিংস শুরু

মোস্তাফিজের বিয়ে পরবর্তী অনুষ্ঠান।

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: বিশ্বকাপকে সামনে রেখে কত না স্বপ্ন ছিল টাইগারদের। তার আগে আরও এক স্বপ্নে বিভোর ছিলেন কাটার মাস্টার। ২২ মার্চ সে স্বপ্নের প্রথম পর্ব পূরণ হলেও শেষ নামাতে প্রতীক্ষায় ছিলেন সবাই। অবশেষে বিশ্বকাপ স্বপ্নভঙ্গ হলেও হৃদয়ে চেপে রাখা স্বপ্ন এবার হলুদ মেহেদির নতুন রঙে আবির্ভূত। অপেক্ষার শেষ। তাই বিশ্বকাপে বাংলাদেশের বড় অর্জন মোস্তাফিজ নেমে এলেন জমকালো আসরে, তবে লাল সবুজের জার্সিতে নয়, পাগড়ি শেরওয়ানির আবরণে। আর সঙ্গে চিরদিনের সাথী সুমাইয়া পারভিন শিমু।

আষাঢ়ের বৃষ্টির হাতছানি ও আকাশ কাঁপানো বিদ্যুত চমকানির মুখে সবুজ বৃক্ষরাজির শীতল ছায়ায় গ্রামীণ পরিবেশে অনুষ্ঠিত হলো কাটার মাস্টার মোস্তাফিজের বৌভাত অনুষ্ঠান।

বাড়ির কিনারে চোখ ধাঁধালো সুউচ্চ গেট ভেদ করে অতিথি পথ জুড়ে ছিল জমকালো আলোর ছোঁয়া। আত্মীয় স্বজন অতিথি শুভাকাঙ্ক্ষীদের ভিড় ঠেলে শনিবার নিজ বাড়িতে হাজির বাঁহাতি পেসার মোস্তাফিজ।

চোখ ধাঁধানো নান্দনিক আলো ঝলমল পরিবেশে নববধূর আগমন নিয়ে এলো নতুন বারতা।

মোস্তাফিজের গ্রামের বাড়ি সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ উপজেলার তারালি ইউনিয়নের তেঁতুলিয়া গ্রামে বসেছিল এই আনন্দ আসর, বৌভাত। প্রায় আড়াই হাজার অতিথি মধ্যাহ্ণভোজে আপ্যায়িত হলেন। তারা দোয়া করলেন মোস্তাফিজ -শিমু দম্পতিকে। দোয়া করে তাদের ঘরে তুলে নিলেন বাবা আবুল কাসেম ও মা মাহমুদা খাতুনসহ স্বজনরা।

বালকসুলভ হাসিতে উজ্জীবিত হয়ে উঠলেন মোস্তাফিজ। মঞ্চে উপবেশন করতেই দর্শকরা করতালি দিয়ে অভিনন্দিত করলেন এই নবদম্পতিকে। নববধূ সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলার জগন্নাথপুর গ্রামের মো. রওনাকুল ইসলামের মেয়ে সুমাইয়া পারভিন শিমু ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোবিজ্ঞান বিভাগের সম্মান প্রথম বর্ষের ছাত্রী। দুইজনের লাজুক হাসির ফোয়ারা ক্যামেরাবন্দি করলেন মিডিয়াকর্মীরা।

মোস্তাফিজের বাবা আবুল কাসেম বলেন, আমার ছেলে যেন বাংলাদেশের জন্য আরও ভালো কিছু অর্জন করতে পারে।
ছেলের জন্য দোয়া চেয়ে তিনি বলেন, আগামী বিশ্বকাপ যেনো বাংলাদেশের ঘরে ওঠে। এবার বাংলাদেশ হারলেও মোস্তাফিজ হারেনি। তার নাম লর্ডসে স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে।

মোস্তাফিজের বড় ভাই মাহফুজুর রহমান মিঠু বলেন, আমরা তাকে নিয়ে অনেক স্বপ্ন দেখছি। বিশ্বকাপে তার পারফরমেন্সে আমরা খুবই খুশি। বাংলাদেশ জিতলে আরও খুশি হতাম। আগামীতে মোস্তাফিজ যেনো বাংলাদেশের জন্য আরও ভালো অর্জন বয়ে আনতে পারে এই প্রত্যাশা আমাদের।

পাঁচ লাখ এক টাকা দেনমোহরে গত ২২ মার্চ বিয়ে হয়েছিল তাদের। কথা ছিল বিশ্বকাপ খেলা শেষে শিমুকে বধূবরণে তুলে নেওয়া হবে। বিবাহোত্তর সংবর্ধনা ও বৌভাতের সেই কাঙ্ক্ষিত দিনটিই ছিল শনিবার। এ অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির চেয়ারম্যান সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. আফম রুহুল হক এমপি, সাতক্ষীরা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য মুনসুর আহমেদ, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. নজরুল ইসলাম, সাতক্ষীরার পুলিশ সুপার সাজ্জাদুর রহমানসহ অন্য অতিথিরা।

এছাড়া এতে উপস্থিত ছিলেন মিডিয়াকর্মীরা। যারা এতোদিন তার পারফরমেন্স নিয়েই লিখেছেন। তাকে ছবিতে ধারণ করে উইকেট শিকারীর (বোলিং) নৈপুণ্য দেখিয়েছেন।

বিশ্ব কাঁপানো মোস্তাফিজের শুরু হলো নতুন ইনিংস। চোখে তার নতুন স্বপ্ন।

সাজঘরে মোস্তাফিজ দম্পতি শুধু স্মীত হাসি ছড়িয়ে দিলেন। সাংবাদিকদের উদ্দেশে বললেন, জানেনই তো বিসিবি থেকে ক্রিকেট নিয়ে কোনো কথা বলা নিষেধ আছে।


© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত মৃদুভাষণ - ২০১৪
Design & Developed BY ThemesBazar.Com