সোমবার, ১৪ অক্টোবর ২০১৯, ০২:৫৭ অপরাহ্ন

শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি রুটে ভিআইপিরা পার হচ্ছেন সাধারণ ফেরিতেই

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি-কাওরাকান্দি নৌরুটের ফেরিতে ভিআইপি পারাপার হলেও কোন চাপে পরতে হচ্ছেনা ঘাট কর্তৃপক্ষকে।

ভিআইপিরা কোন ধরনের নির্দেশনা ছাড়াই যে ফেরি পাচ্ছেন সে ফেরিকেই পার হচ্ছেন। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে শরীয়তপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য মো: ইকবাল হোসেন অপু শিমুলিয়া ঘাট থেকে উপস্থিত থাকা একটি রোরো ফেরি দিয়ে চলে যান।

একই সময় কাঠালবাড়ি থেকে ঢাকার বিভাগীয় কমিশনার মোহাম্মদ জয়নুল বারীও একটি সাধারণ ফেরি দিয়ে শিমুলিয়া ঘাটে এসে পৌছে।

বিআইডব্লিওটিসির শিমুলিয়া ঘাটের সহকারী মহাব্যবস্থাপক মো. নাসির জানান, কারও জন্য ফেরি শিমুলিয়া ঘাটে অপেক্ষা করবে না।

এখন পর্যন্ত মোবাইলে কোনো ভিআইপি পরিচয় দিয়ে ফেরিতে পার হওয়ার জন্য কেউ ফোন করেনি। নাসির আরও জানান, আগের ঈদগুলোতে এক সপ্তাহ আগে থেকেই মোবাইল ফোনে কল ও মেসেজ আসতে শুরু করতো ভিআইপিদের।

কিন্তু এবার এখন পর্যন্ত কোনো ফোন কল আসেনি। বিগত ঈদে ভিআইপিদের নিয়ে দুঃশ্চিন্তায় থাকতে হয়েছে। কিন্তু এবার সিরিয়াল মেনেই গাড়ি ফেরিতে উঠে পদ্মা পাড়ি দিচ্ছে, কোনো ঝামেলা নেই। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে ফেরিগুলো ঘাট থেকে গাড়ি বহন করে ছেড়ে যাচ্ছে।

মাওয়া ট্রাফিক পুলিশ ফাঁড়ির ট্রাফিক পরিদর্শক হেলাল উদ্দিন জানান, সিরিয়াল মেনেই গাড়িগুলো ফেরি পারের হচ্ছে।

ভিআইপিদের জন্য কোন ফেরিকে বসিয়ে রাখতে হয়নি। ভিআইপি গাড়ি নিয়ে কোনো সমস্যা পোহাতে হয়নি।

কাঠালবাড়ি থেকে ঢাকার বিভাগীয় কমিশনার একটি সাধারণ ফেরি দিয়ে শিমুলিয়া ঘাটে এসে পৌছেন।

আমরা পরে জানতে পারি। শিমুলিয়া ঘাটে ফেরি পারের অপেক্ষায় ২৫০টির মতো গাড়ি রয়েছে। তবে এর মধ্যে ট্রাক, প্রাইভেটকার ও বাসের সংখ্যাই বেশি আছে।

এরই মধ্যে নাড়ির টানে বাড়ি ফিরতে শুরু করেছে ঈদে ঘড়মুখো মানুষ। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে বৈরী আবহাওয়া ও বৃষ্টির কারণে কিছুটা ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে যাত্রীদের।

শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌরুটে চারটি রো রোসহ ১৫টি ফেরি চলাচল করছে। একটি চ্যানেল দিয়েই ফেরি চলাচল করছে এবং কোনো ধরনের নাব্যতা সমস্যা নেই।

তবে দু’টি চ্যানেল থাকলে সুবিধা বেশি হতো, এখন একটি চ্যানেল দিয়েই যাওয়া আসা করছে ফেরিগুলো।

বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় আবহাওয়া স্বাভাবিক হওয়ায় ফেরিসংখ্যা বৃদ্ধি পায়। কিন্তু নির্দিষ্ট সময়ের চেয়ে বেশি সময় নিয়ে ফেরিগুলো গন্তব্যে পৌঁছাচ্ছে।


© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত মৃদুভাষণ - ২০১৪
Design & Developed BY ThemesBazar.Com