মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর ২০১৯, ০৪:০১ অপরাহ্ন

কানাডা’র সাসকাচুয়ানে ইমিগ্রেশনের সুবর্ণ সুযোগ!

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: এক্সপ্রেস এন্ট্রি’ কানাডা’র সবথেকে বড় এবং দ্রুততম ইমিগ্রেশন প্রোগ্রাম সেটি আমরা সবাই কম-বেশি জানি। কিন্তু সরাসরি এক্সপ্রেস এন্ট্রির মাধ্যমে কানাডাতে মাইগ্রেট হতে হলে কিছু রিকোয়্যারমেন্ট পূরণ করতে হয়। যেমন: বয়স পঁচিশ থেকে ত্রিশের মধ্যে থাকা, শিক্ষাগত যোগ্যতা স্নাতকোত্তর, ন্যূনতম তিন বছরের কর্ম অভিজ্ঞতা এবং IELTS-এর সব ব্যান্ডে কানাডিয়ান ল্যাঙ্গুয়েজ বেঞ্চমার্ক ৯ থাকা।

অর্থাৎ, লিসেনিং-এ ৮ এবং বাকি তিনটি মডিউলে ৭। এখন এই সবগুলো রিকোয়্যারমেন্ট একই সঙ্গে পূরণ করা অনেকের জন্যই দুরূহ হয়ে পড়ে। সে ক্ষেত্রে প্রভিন্সিয়াল নমিনি প্রোগ্রামকে আশার আলো হিসেবে ধরা যায়।

অন্যদিকে কম-বেশি সব প্রভিন্সেই আবেদনের জন্য কানাডা থেকে ভ্যালিড জব অফার থাকতে হয় যা বাংলাদেশ থেকে যোগাড় করা একরকম অসম্ভবই বলা চলে। যা-ও বা দু’একটি প্রভিন্স এই ভ্যালিড জব অফারের শর্তকে শিথিল করে দিয়েছে (যেমন: নোভা স্কশিয়া, ক্যুবেক এবং সাসকাচুয়ান), তারা আবার তাদের প্রভিন্সের চাহিদা আছে, এমন প্রফেশনের বাইরে আবেদনকারীদের অ্যাপ্লিকেশনের সুযোগ দেয় না।

কয়েক সপ্তাহ আগ পর্যন্ত তেমন কোনো প্রভিন্সকেই ইমিগ্রেশনের জন্য খুব বেশি চমকপ্রদ প্রোগ্রাম নিয়ে আসতে দেখা যায়নি। তবে সম্প্রতি সাসকাচুয়ান প্রভিন্স ইন্টারন্যাশনাল স্কিলড প্রফেশনালদের জন্য কানাডাতে মাইগ্রেট করে আসার ব্যাপারে আসার সুযোগটি আমি বলব অনেকাংশেই সহজ করে দিয়েছে। চলুন জানি কিভাবে সেটি সম্ভব।

গত সপ্তাহে সাসকাচুয়ান ইমিগ্র্যান্ট নমিনি প্রোগ্রাম থেকে একটি জব লিস্ট প্রকাশ করা হয়েছে যেখানে প্রায় ১৫০টির মতো প্রফেশনের কথা উল্লেখ করা হয়েছে। এই উল্লেখিত প্রফেশনগুলো বাদে বাকি প্রায় সব প্রফেশনালগণই এই প্রভিন্সে আবেদনের জন্য এলিজিবল হবেন। এমনকি এই প্রভিন্সে আবেদনের জন্য ন্যূনতম IELTS স্কোরও চাওয়া হয়েছে খুবই কম।

তাহলে সাসকাচুয়ানের এই প্রোগ্রামে আবেদনের জন্য কী করণীয়? প্রথমেই উপরের উল্লিখিত সেই জব লিস্টে আপনার প্রফেশন লিস্টেড রয়েছে কিনা খুঁজে দেখুন। যদি না থেকে থাকে, তাহলে IELTS-এর রিকোয়্যারমেন্ট পূরণ করার জন্য আগ্রহী আবেদনকারীগণ এখনই প্রস্তুতি শুরু করতে পারেন। সেই সঙ্গে আপনার একাডেমিক ডকুমেন্টগুলোকেও অ্যাডুকেশন ক্রিডেনশিয়াল অ্যাসেসমেন্টের (ECA) জন্য প্রস্তুত করে নিন।

এরপর হাতে IELTS এবং ECA ডকুমেন্ট চলে আসলে এই প্রোগ্রামের আবেদনপুলে নিজের একটি প্রোফাইল খুলে ফেলুন এবং আপনার ‘এক্সপ্রেস অব ইন্টারেস্ট’ সাবমিট করে দিন। তারা প্রায় প্রতিমাসেই পুলে থাকা আবেদনকারীদের জন্য একটি ড্র করে থাকে।

সেই ড্র-এর পয়েন্টের সমান অথবা বেশি পয়েন্ট যদি আপনার থেকে থাকে, তাহলে আপনাকে একটি পূর্ণাঙ্গ আবেদন জমা দেয়ার জন্য ইনভাইটেশন জানাবে। এই পর্যায়ে তাদের চেকলিস্ট অনুযায়ী সব ডকুমেন্ট জমা দিতে হয় এবং ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষ যাচাই-বাছাই করে সন্তুষ্ট হলে উক্ত প্রভিন্স থেকে একটি নমিনেশনপত্র ইস্যু করে থাকে।

আর সেই নমিনেশন পাওয়া প্রার্থীরা কানাডা’র ফেডারেল গভর্নমেন্ট বরাবর পারমানেন্ট রেসিডেন্সির জন্য আবেদন করতে পারেন। তারপর আরও এক ধাপ ব্যাকগ্রাউন্ড চেক এবং মেডিকেল চেকের পরে সবকিছু ঠিক থাকলেই আবেদনকারী ও তার ডিপেন্ডেন্ট পরিবারবর্গ কানাডাতে আসার জন্য পারমানেন্ট রেসিডেন্সির ভিসা পাবেন।

এখন নিশ্চয়ই মাথায় অনেকগুলো প্রশ্ন ঘুরছে? কিভাবে IELTS-এর প্রস্তুতি নিবেন, কিভাবে অ্যাকাডেমিক ডকুমেন্টের ECA করাবেন, কাজের অভিজ্ঞতাপত্র কিভাবে তৈরি করবেন কিংবা এই প্রোগ্রামের জন্য নিজের পয়েন্ট কিভাবে ক্যালকুলেট করবেন, তাইতো?

চলুন আপনাদের কানাডা ইমিগ্রেশনের জন্য তৈরি একটি চমৎকার ওয়েবসাইটের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেই। স্বেচ্ছাসেবকদের দ্বারা পরিচালিত কানাডা ইমিগ্রেশনের জন্য একটি পূর্ণাঙ্গ ওয়েবসাইট ‘ইমিগ্রেশন অ্যান্ড সেটেলমেন্ট’।

IELTS-এর প্রস্তুতি থেকে শুরু করে কিভাবে কোন ডকুমেন্ট তৈরি করবেন, কানাডা ইমিগ্রেশনের কোন্ প্রোগ্রামে আবেদন করবেন, অথবা কানাডাতে গিয়ে কিভাবে নিজের সেটেলমেন্ট কিংবা ক্যারিয়ার গোছাবেন, এই সবকিছুর ব্যাপারেই বিস্তারিত পাবেন ‘ইমিগ্রেশন অ্যান্ড সেটেলমেন্ট’ ওয়েবসাইটে।


© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত মৃদুভাষণ - ২০১৪
Design & Developed BY ThemesBazar.Com