বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর ২০১৯, ০৩:৪০ অপরাহ্ন

র‌্যাবের খাঁচায় সিলেটের ভয়ংকর সাইবার অপরাধী

মৃদুভাষন ডেস্ক :: সিলেটের এক ভয়ংকর সাইবার অপরাধী এখন র‌্যাবের কব্জায়। তার নাম মাহফুজুর রহমান নবীন (২৮)।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আতঙ্ক সৃষ্টিকারী এই অপরাধী অসংখ্য নারীর চরিত্র হননই করেননি, প্রতারণার মাধ্যমে ভয়ভীতি দেখিয়ে বিপুল অঙ্কের অর্থও হাতিয়ে নিয়েছেন।

বেছে বেছে ফেসবুক আইডি হ্যাক, র‌্যাব কর্মকর্তা পরিচয়ে প্রতারণা, হুমকি, অভিজাত পরিবারের নারীদের চেহারা ব্যবহার করে পর্নো ভিডিও বানিয়ে জিম্মি ও চাঁদাবাজি করছিলেন নবীন।

পুরনো মডেলের একটি স্যামসাং জে-২ মোবাইল সেট দিয়েই সাইবার অপরাধে বিচরণ ছিল এক সময়কার এই ইটের দালালের।

দশম শ্রেণিতে ভর্তি হওয়ার পর আর তার পড়াশোনায় মন বসেনি। এর পর থেকে প্রতারণাই হয়ে ওঠে তার নেশা ও পেশা।

বুধবার রাতে র‌্যাব তাকে গ্রেফতার করে। এর পরই নবীনের প্রতারণার চাঞ্চল্যকর সব কাহিনী বের হয়ে আসে।

বৃহস্পতিবার মামলার পর তাকে হবিগঞ্জের বাহুবল থানা পুলিশের হাতে তুলে দেয়া হয়।

র‌্যাব জানায়, হবিগঞ্জের বাহুবল উপজেলার মোহাম্মদ নগর গ্রামের মৃত ইজাজুর রহমানের ছেলে নবীনকে বাহুবল থেকে আটক করা হয়। র‌্যাব-৯-এর অপারেশন অফিসার আনোয়ার হোসেন শামীম জানান, নবীনের নেতৃত্বে সাইবার অপরাধীদের একটি গ্রুপ সক্রিয় আছে। গ্রুপটির টার্গেটে নারীরাই বেশি ছিলেন।

তাদের প্রতারণার ধরন বলতে গিয়ে র‌্যাব কর্মকর্তা বলেন, কারও ফেসবুক আইডি হ্যাক করার পর প্রথমেই আইডি মালিকের ওপর মানসিক চাপ সৃষ্টির জন্য আইডিতে থাকা তার ব্যক্তিগত ছবি, ভিডিও, ডকুমেন্টসগুলো ছড়িয়ে দিত। পরের ধাপে হ্যাক করা আইডিটি নানা কৌশলে অর্থ উপার্জনের হাতিয়ারে পরিণত করত, আইডির মালিকের সম্মান বিনষ্ট তো আছেই; সবশেষে এই আইডি ব্যবহার করে নানামুখী, প্রতারণার জাল বিস্তার করত।

র‌্যাব বলছে, প্রতারক নবীন অসংখ্য নারীকে টার্গেট করে অশ্লীল ছবি ও ভিডিওতে তাদের মাথা জুড়ে দিয়ে চরিত্র হনন এবং ব্ল্যাকমেইল করে আসছিলেন। এভাবে তিনি স্বামী-স্ত্রী, প্রেমিক-প্রেমিকার মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি সৃষ্টি করা থেকে শুরু করে পরিকল্পিতভাবে অনেকের সংসারও ভেঙে দিয়েছেন।

এ ছাড়া অর্থের বিনিময়ে সংসার ভাঙা বা ভুল বোঝাবুঝি সৃষ্টির জন্য চুক্তিতেও কাজ করত গ্রুপটি। ছবি বিকৃতির তালিকা থেকে বাদ যাননি দেশের সর্বোচ্চ ব্যক্তিরাও।

এ ছাড়াও অনলাইনে বিভিন্ন ধর্ম সম্পর্কে বিষোদ্গার ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য প্রকাশ করা হতো হরহামেশাই। তার প্রতারণার শিকারের মধ্যে রয়েছেন চিত্রনায়িকা মৌসুমী, সঙ্গীত শিল্পী কৌশিক হাসান তাপসসহ অনেকে।


© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত মৃদুভাষণ - ২০১৪
Design & Developed BY ThemesBazar.Com