বুধবার, ২০ নভেম্বর ২০১৯, ০৪:৩৫ পূর্বাহ্ন

কবিগুরু : তোমারই নাম বলবো—

সৈয়দ জগলুল পাশা :: সিলেটে কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের আগমন শতবর্ষ স্মরণ অনুষ্ঠান আয়োজন সব সমাপ্ত প্রায়। কুলাউড়ার প্রোগ্রামের মাধ্যমে সূচনা হবে ৪ নভেম্বর। শতবর্ষ স্মরণের প্রেক্ষাপট নিয়ে আমি পূর্বেও আলোকপাত করেছি। এবারকার আয়োজনের বৈচিত্র্য ও বিভিন্নতা নিয়ে কিছু জানাতে চাই। শত বর্ষব্যাপী রবীন্দ্র প্রভায় সিলেটে যা হয়েছে তা আমরা মূলত কয়েকটি কথায় বিবৃত করতে পারি। বাঙ্গালী সংস্কৃতি ও জাতীয় চেতনার বিকাশ, জাতি ধর্ম-ভাষার বৈচিত্র্য নিয়ে দেশজ চেতনা বিকাশ এবং মনুষ্যত্বের শিক্ষা ও অধ্যবসায়ের মহৎ সংকল্প বিস্তার।

কবিগুরুর অবস্থানকালীন কর্মকাণ্ড আমাদের উদ্দীপ্ত করেছিল। সমাজের বিভিন্ন স্তরের এবং সম্প্রদায়ের মানুষকে তিনি উদ্দীপ্ত করতে পেরেছিলেন। বর্তমান আয়োজন ও একই ধারায় পরিচালিত।কবিগুরুর স্মরণোৎসবের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ দিক হলো বাংলাদেশের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক মূল অনুষ্ঠান মালার শুভ উদ্বোধন। আসামের প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী সৈয়দ আব্দুল মজিদ ( কাপ্তান মিয়া) অন্যান্যের মধ্যে, কবিবরণ করেছিলেন। শতবর্ষ পরে আমাদের গুরুজন প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী জনাব আবুল মাল আবদুল মুহিত চাদনীঘাট কবিবরণ চত্বরে তা স্মরণ করবেন।তিনি এ আয়োজনে বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছেন। আয়োজক কমিটির আহবায়ক তিনি। কবিগুরুর আগমন কালে সিলেট মিউনিসিপালিটির তদানীন্তন চেয়ারম্যান সুখময় চৌধুরী আয়োজনে ও অভ্যর্থনায় ছিলেন। শতবর্ষ পরে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বর্তমান আয়োজনের সদস্য সচিব। বিশিষ্ট জনদের নিয়ে গঠিত উদযাপন পরিষদ, উপদেষ্টা পরিষদ ও নির্বাহী পরিষদ মিলিয়ে প্রায় ৪০০ সদস্যের কমিটি সমূহ প্রস্তুতির কাজ করছে। সকল রাজনৈতিক দলের সহায়তা ও পরামর্শ সমৃদ্ধ করছে আয়োজনকে। মাননীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রী ড.একে আব্দুল মোমেন, পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান, সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালেদ উপস্থিত থাকবেন বিভিন্ন অনুষ্টানে।পরিকল্পনা বাস্তবায়নে আয়োজক কমিটির আহবায়ক প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী জনাব আবুল মাল আবদুল মুহিত, যুগ্ম আহ্বায়ক গন , নির্বাহী পরিষদ সদস্য সচিব মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী , যুগ্ম সদস্য সচিব ও সদস্য গন সার্বক্ষণিক উদ্দীপনায় কাজ করছেন।

কবি’র আগমনকালে চাদনীঘাটে পত্র-পুষ্প-পতাকা মঙ্গলঘটে সুসজ্জিত ঘাটের সবগুলো সিঁড়ি লাল শালুতে মোড়াচ্ছিল। এখনকার প্রথম দিনের আয়োজনে চাঁদনী ঘাটে থাকবে পুষ্প পল্লবের শোভনতা। সিটি কর্পোরেশন বসাচ্ছে কবিগুরুর শ্রীভূমি কবিতার ফলক। এর জন্যে নিরলস কাজ করে চলেছেন নির্বাহী পরিষদ যুগ্ম সদস্য সচিব মিশফাক আহমদ মিশু , প্রেসক্লাব সভাপতি আল আজাদ ও নাট্য পরিষদ নেতা রজত কান্তি গুহ সহ সংগঠকরা ব্যস্ত এ আয়োজনে।

কবিগুরু যেসব জায়গায় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সেসব স্থানে হবে সাংস্কৃতিক পরিবেশনা। কবিগুরুর অনুষ্ঠান ছিল চৌহাট্রারসিংহ বাড়ীতে। এবারও সিংহবাড়ীর উত্তরাধিকারী জ্যোতির্ময় সিংহ মজুমদার ও সুধাময় মজুমদার আয়োজন করেছেন সভা ও সংগীতের আসর। ব্রাম্মমন্দির অনেকদিন পর আগের মত অনুষ্ঠান করছে। তিনি যখন আসেন মাছিমপুরের মনিপুরী সম্প্রদায়ের নৃত্য-গীত কবিগুরুর হৃদয়ে ঝংকার তুলেছিল । এবারও তার ব্যতিক্রম হবে না। মাছিমপুর সাজবে নতুন সাজে। বসানো হয়েছে কবির ভাস্কর্য। মনিপুরী সম্প্রদায়ের সাংগঠনিক কাজ করেছেন এ কে সেরাম ও সহযোগীগন।
পাদ্রী বাংলায় ফলক স্থাপনের কথা রয়েছে। কবির আগমন কালে প্রদান করা হয়েছিল মানপত্র। অনেক পরে প্রকাশিত হয়েছিল ‘কবি প্রণাম’ স্মারক। এবারের আয়োজনে থাকবে ২/৩ টি প্রকাশনা। সিংহ বাড়ী, মনিপুরী সম্প্রদায়, এমসি কলেজ, কেন্দ্রীয় আয়োজক ও কুলাউড়াবাসী পৃথক পৃথক ভাবে প্রকাশ করবে ম্যাগাজিন। সিলেটের প্রকাশনা কমিটি ও লেখক, সম্পাদকগণ নিরলস পরিশ্রম করছেন । কেন্দ্রীয় স্মারকের প্রাথমিক দায়িত্ব পালন করছেন শামসুল আলম সেলিম। অনুষ্ঠান শেষে সমৃদ্ধ ম্যাগাজিন প্রকাশিত হবে।

যে ‘আকাঙ্ক্ষা’ বক্তৃতা কবি আমাদের প্রিয় এমসি কলেজ এ দিয়েছিলেন সে আকাঙ্ক্ষা পাঠে উদ্বুদ্ধ হবে এমসি কলেজ শিক্ষার্থীরা। দিনব্যাপী সেমিনার হবে এমসি কলেজে। তথায় মোট ১২টি প্রবন্ধ উপস্থাপিত হবে। ঢাকা,চট্টগ্রাম সহ বাংলাদেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অংশ নেবেন রবীন্দ্র গবেষকগণ । এম.সি কলেজের সেমিনারে দেশের বিশিষ্ট সাহিত্যিক ও শিক্ষাবিদদের মধ্যে থাকবেন প্রফেসর বেগম আক্তার কামাল, প্রফেসর সৈয়দ আজিজুল হক, প্রফেসর মোহিত উল আলম, প্রফেসর গোলাম সারওয়ার চৌধুরী ও প্রফেসর সফিউদ্দিন আহমদ প্রমূখ।
মুল আয়োজক কমিটির আয়োজিত সেমিনার হবে সিলেট মহিলা কলেজে‘রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ও দক্ষিণ এশিয়া ’ শিরোনামে। ঢাকা থেকে সাহিত্যিক সেলিনা হোসেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ভীষ্মদেব চৌধুরী, সৌমিত্র শেখর, ভারতের রবীন্দ্র গবেষক বিশ্বতোষ চৌধুরী উষারন্জন ভট্টাচার্য ও বেলা দাশ অংশ নেবেন। উভয় সেমিনারে বাংলাদেশের ও ভারতের গৌহাটি, আসাম ও অন্যান্য এলাকার সাহিত্যিক-বুদ্ধিজীবীরা অংশ নেবেন। অধ্যাপিকা শামীমা চৌধুরী ও সফির সেতু সহ সমন্বয়কগন আয়োজন করছেন সেমিনার।

৭ ও ৮ নভেম্বরের মূল রবীন্দ্র স্মরনোৎসবের সবচেয়ে সুন্দর কেন্দ্রীয় অনুষ্ঠানমালায় আবুল মাল আবদুল মুহিত স্টেডিয়াম থাকবে মুখরিত । মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর শুভ উদ্বোধনের পর দু’দিন জুড়ে মনোমুগ্ধকর আবৃত্তি, নৃত্য ও সঙ্গীতের মূর্ছনায় ধ্বনিত হবে সিলেট। প্রায় ৩০০ সঙ্গীত শিল্পী, ১৫০ আবৃত্তি শিল্পী ও ২০০ নাট্য শিল্পী রিহার্সাল নিয়ে অংশগ্রহণে প্রস্তুতি নিয়েছেন।জুলাই মাসে উৎসবের ‘লগো’ উন্মোচনের পর হতে নিরবধি চলছে রিহার্সাল ও সংস্কৃতি কর্মীদের বিশেষ প্রস্তুতি। পূর্ব হতে রবীন্দ্র সঙ্গীত, আবৃত্তি ও নৃত্যের প্রতিযোগিতা হয়েছে। । রবীন্দ্রনাথের উদ্দেশ্য করে শতবর্ষ আগে গান গেয়েছিলেন সিলেটের কন্যা শ্রীমতি লীলা সিংহ মজুমদার ও সে সময়ের শিল্পীগন। পরবর্তীতে আমাদের অনেক খ্যাতিমান রবীন্দ্রসংগীত ও অন্যান্য সংগীত শিল্পী বেরিয়ে এসেছেন সিলেট থেকে।

এবারের আয়োজন হবে অনেক সমৃদ্ধ। । সিলেটের ৩০০ শিল্পীর সঙ্গীত দল সুগঠিত করেছেন রানা সিনহা, অনিমেষ বিজয়, প্রতীক এন্দ ও সুমনা আজিজ। সিলেটী বধু শান্তি নিকেতনের ছাত্রী দেশের প্রথিতযশা রবীন্দ্র সঙ্গীত শিল্পী রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা গাইবেন কুলাউরা ও সিলেটে। ঢাকা থেকে আরও আসবেন প্রখ্যাত রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী লাইসা রহমান লিসা। ভারত থেকে প্রখ্যাত শিল্পী অগ্নাভ ভট্টাচার্য, শাহেদ চট্টোপাধ্যায়, জয়তী চট্টোপাধ্যায় ও শুভ প্রসাদ নন্দী প্রমূখ । তাছাড়া খ্যাতিমান ভারতীয় শিল্পী পূর্নদাশ বাউলকেও আমরা পাবো। । বিপুল শর্মার পরিচালনায় সিলেটের বিভিন্ন নাট্যদলের শতাধিকের নৃত্য মুগ্ধ করবে সবাইকে। আমিরুল ইসলাম লিটন, মোকাদ্দেম বাবু ও তাদের সহকর্মীরা দেড়শত আবৃত্তি শিল্পীদেরকে তৈরি করেছেন। সব মিলিয়ে প্রায় ৭০০ শত সাংস্কৃতিক কর্মীর পরিবেশনা আমরা প্রত্যক্ষ করবো। কবিগুরু যখন ছিলেন তখন এতো মিডিয়া ছিলনা । তার বাংলোতে নাকি মোট ৩ খানা আনুষ্ঠানিক ছবি তোলা হয়। আর এবার থাকবে টেলিভিশন, ক্যামেরা, ফেইসবুক লাইভ ও নানামুখী ডিজিটাল সম্প্রচার। প্রিন্ট মিডিয়া ও সক্রিয় থাকবে।

কুলাউড়ার অনুষ্ঠানের সফলতার দিকে নিয়ে যাবার জন্য পরিশ্রম করে চলেছেন- আয়োজক কমটির প্রধান এম এ রউফ ও তার সহযোগীরা। অনুষ্ঠানে থাকছে কুলাউড়া রেলস্টেশনে কবিগুরুর রাত্রিযাপন ও ভ্রমণের স্মরণে স্মারক স্টোন স্থাপন, শিক্ষার্থীদের মনোজ্ঞ র‌্যালী, চিত্রকলা-সঙ্গীত প্রতিযোগিতা এবং রবীন্দ্র সঙ্গীত সন্ধ্যা। জনাব আবুল মাল আবদুল মুহিত প্রধান অতিথি , শিল্পী রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা ও সিলেটের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বিশেষ অতিথি থাকবেন। শতাধিক সাংস্কৃতিক কর্মী অংশ নেবেন সাংস্কৃতিক পরিবেশনায়।

বৃহত্তর সিলেটবাসীর সংগঠন জালালাবাদ এসোসিয়েশন ঢাকা এর সংহতি জানিয়ে ঢাকায় আয়োজন করছে অনুষ্ঠান-‘আনন্দঘন সঙ্গীত সন্ধ্যা’ । প্রধান অতিথি থাকবেন সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। একুশে পদক প্রাপ্ত সুসাহিত্যিক সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম অনুষ্ঠানে থাকবেন বলে আশা করা যাচ্ছে। বাংলা একাডেমী পদকপ্রাপ্ত কবি ড. মোহাম্মদ সাদিক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ভীষ্মদেব চৌধুরী সহ আলোচকেরা থাকবেন। আয়োজিত আনন্দময় সংগীত সন্ধ্যায় গাইবেন Ñ একুশে পদক প্রাপ্ত ড. অরূপ রতন চৌধুরী, অসীম দত্তসহ জাতীয় পর্যায়ের শিল্পীবৃন্দ।এ ‘আনন্দঘন সঙ্গীত সন্ধ্যা’ আয়োজন করতে সচেষ্ট আছেন জালালাবাদ এসোসিয়েশন শিক্ষা ও সাহিত্য সম্পাদিকা মাহমুদা আখতার মীনা।

দেশের বাইরে থেকেও শেকড়ের টানে এসেছেন অনেক সিলেটী। আমাদের প্রবাসীরা আগ্রহ ভরে প্রত্যক্ষ করছেন প্রস্তুতিকে। কোলকাতার রবীন্দ্রনূরাগী দক্ষিণ কোলকাতা সিলেট এসোসিয়েশন এর প্রদুষ দা, বাপ্পু এন্দও দীপ্তা’রা সহযোগিতার ডালি নিয়ে উদগ্রীব এ আয়োজনের প্রতি। ভারতীয় হাই-কমিশন , অনেক প্রতিষ্ঠান , সিটি কর্পোরেশন, মিডিয়া ও স্পন্সরের স্বতঃ:স্ফূর্ত আন্তরিক সহযোগিতা রয়েছে এই অনুষ্ঠানে।
বাংলা ভাষা, সাহিত্য ও সংস্কৃতি চর্চায় সফলতার ধারা নিয়ে অগ্রণী সিলেট আগামীর প্রত্যয় দীপ্ত – ”সুন্দরী শ্রীভূমি শ্রীহট্ট” । ১৯১৯ সালে কবি সিলেটে এসে গেয়েছিলেন:

“বীণা বাজাও হে মম অন্তরে।
সজনে, বিজনে, বন্ধু, সুখে দু:খে বিষাদে,
আনন্দিত তান শুনাও হে মম অন্তরে।”

বর্তমান সময়ের প্রেক্ষাপটে রবীন্দ্র পদার্পণের শতবর্ষে আমরা নতুন যাত্রা তৈরি করতে পারি। আমাদের বিকাশমান বাঙ্গালী সংস্কৃতি ও মানবতার ধারায় এগিয়ে যেতে পারি। আমাদের অর্জনের প্রেক্ষিতে, কবির আনন্দিত তান শুনার আকুতিতে এবার কবিকে উপহার দিতে পারি:
“তোমারই নাম বলব আমি
বলব নানা ছলে।”

লেখক: সৈয়দ জগলুল পাশা, সাবেক যুগ্ম সচিব, জালালাবাদ এসোসিয়েশনের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও শতবর্ষ স্মরণ উৎযাপনের নির্বাহী পরিষদ সদস্য ।

 

সিলেটে কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ: শতবর্ষের আত্মীয়তার প্রেক্ষাপট


© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত মৃদুভাষণ - ২০১৪
Design & Developed BY ThemesBazar.Com