বৃহস্পতিবার, ২২ নভেম্বর ২০১৮, ০১:০৭ পূর্বাহ্ন

বিএনপির জন্য এই লবিস্ট নিয়োগকারী কে?

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: বিএনপির পক্ষে যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটনভিত্তিক দুটি লবিং ফার্মকে নিয়োগ দেওয়া আবদুস সাত্তারের পরিচয় পাওয়া গেছে। যুক্তরাস্ট্র ও যুক্তরাজ্যের বিএনপির নেতারা বলছেন, আবদুস সাত্তার বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে সরাসরি যুক্ত নন। দলটির প্রতি ভালোবাসা থেকে একেবারেই ব্যক্তিগত উদ্যোগে তিনি বিএনপির জন্য লবিস্ট নিয়োগ করেছেন।

তবে ঢাকায় বিএনপির কেন্দ্রীয় দপ্তর থেকে এ ব্যাপারে কোনো তথ্য দিতে পারেনি। দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও কেন্দ্রীয় কমিটির তিনজন নেতা বলেছেন, তাঁরা এ ব্যাপারে কিছুই জানেন না। কেননা এ নিয়ে এখানে কোনো আলোচনা হয়নি।

বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক গণমাধ্যম দ্য পলিটিকোর খবরে বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটনভিত্তিক দুটি লবিং ফার্মকে নিয়োগ দিয়েছে বিএনপি। আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে ট্রাম্প প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষার জন্য এদের নিয়োগ দেওয়া হয়েছে বলে খবর উল্লেখ করা হয়।

পলিটিকোর খবরে বলা হয়, আবদুস সাত্তার নামের এক ব্যক্তি বিএনপির পক্ষ থেকে ‘ব্লু স্টার স্ট্র্যাটেজিক’ ও রাস্কি পার্টনার্স’ নামে দুটি প্রতিষ্ঠানকে নিয়োগ দিয়েছেন। চুক্তি অনুযায়ী ‘ব্লু স্টার’কে আগস্ট মাসে ২০ হাজার ডলার এবং বছরের বাকি মাসগুলোয় ৩৫ হাজার ডলার করে দিতে হবে। রাস্কি পার্টনার্স ব্লু স্টারের সাব-কন্ট্রাক্ট হিসেবে কাজ করবে। এই প্রতিষ্ঠানটি আগস্টের জন্য পাবে ১০ হাজার ডলার এবং বাকি মাসগুলোর জন্য পাবে ১৫ হাজার ডলার।

ট্রাম্প প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ ছাড়াও কংগ্রেসম্যান, নির্বাচন পর্যবেক্ষণ সংস্থা, নারীর ক্ষমতায়ন বিষয়ক, পাবলিক পলিসি ইনস্টিটিউটসহ যুক্তরাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ সংস্থার সঙ্গে চুক্তি অনুযায়ী বিএনপির হয়ে কাজ করবে ব্লু স্টার।

আবদুস সাত্তার নামে বাংলাদেশে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার একজন একান্ত ব্যক্তিগত সহকারী রয়েছেন। লবিস্ট নিয়োগ প্রসঙ্গে আবদুস সাত্তার বলেন, ‘ওরা হয়তো আমার নামটি ভুল করে দিয়েছে। আমি প্রশাসনিক কিছু কাজ করে থাকি। দলীয় কোনো কাজের সঙ্গে সম্পৃক্ত নই। বিষয়টি আমিও জানতে পেরেছি। তবে আমার সম্পৃক্ততা থাকার বিষয়টি সঠিক নয়।’

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ বলেন, ‘এ ব্যাপারে আমি কিছু জানি না। এগুলো নিয়ে ঢাকায় কোনো আলোচনা হয় না।’

যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির একজন নেতা বলছেন, আবদুস সাত্তার নামে সেখানে বিএনপির কেউ নেই।

তবে যুক্তরাস্ট্র বিএনপির একজন অন্যতম সংগঠক রেজাউল করিম মুরাদ কাছে আবদুস সাত্তারের পরিচয় নিশ্চিত করেছেন। রেজাউল করিম বাংলাদেশে থাকার সময় ছাত্রদলের রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। তিনি কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের কমিটিতেও ছিলেন। রেজাউল করিম বলেন, ওয়াশিংটনে বিএনপির পক্ষে কাজ করতে লবিস্ট নিয়োগকারী আবদুস সাত্তার যুক্তরাজ্যের লন্ডনে বসবাস করেন। তিনি একজন ব্যবসায়ী। বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে সরাসরি কোনো যুক্ততা নেই। যুক্তরাজ্য বিএনপির কোনো কমিটিতেও তিনি নেই। এই আবদুস সাত্তার একেবারেই দলের প্রতি ভালোবাসা থেকে এটি করেছেন।

নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন ও দলীয় চেয়ারপারসনের দাবি নিয়ে আন্তর্জাতিক মহলের দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টা করে যাচ্ছে বিএনপি। যুক্তরাজ্যে বিএনপির বর্তমান ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন ও খালেদা জিয়ার বড় ছেলে তারেক রহমান অবস্থান করছেন। সেখানে বসে তিনিও আন্তর্জাতিক অঙ্গনের দৃষ্টি আকর্ষণের জন্য কাজ করছেন।

তা ছাড়া বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সময় রাত ১১টায় বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর নির্বাচন, বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জেল, নির্বাচনী পরিবেশ তৈরি, দলীয় নেতা-কর্মীদের গ্রেপ্তারসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেসের সঙ্গে বৈঠক করবেন।

বাংলাদেশে বিভিন্ন দেশের দূতাবাস ও সংস্থার সঙ্গেও সার্বিক রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে নিয়মিত যোগাযোগ এবং চিঠি আদান-প্রদান করছে বিএনপি। প্রথম আলো


© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত মৃদুভাষণ - ২০১৪
Design & Developed BY ThemesBazar.Com