বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১২:০৩ অপরাহ্ন

চোর সন্দেহে বাবাকে গণপিটুনি, অপমানে কিশোরীর আত্মহত্যা

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: চোর সন্দেহে বাবাকে গণপিটুনির অপমান সইতে না পেরে এক কিশোরী মেয়ে আত্মহত্যা করেছে।

ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের পশ্চিবঙ্গের নন্দীগ্রামের আমদাবাদে।

ভারতীয় গণমাধ্যমের খবর, বুধবার দুপুরে নিজের ঘরের মধ্যে ওড়নার ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে সোমা মাঝি। পরে তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় রেয়াপাড়া গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে সন্ধ্যায় তার মৃত্যু হয়।

নন্দীগ্রাম থানার ওসি অজয় মিশ্র বলেন, ঠিক কী কারণে ওই কিশোরী আত্মঘাতী হয়েছে তা স্পষ্ট নয়। আমরা পরিবারের লোকদের সঙ্গে কথা বলে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানার চেষ্টা চালাচ্ছি।’

তবে স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, মেয়েটি অপমানে আত্মহত্যা করেছে। গত মঙ্গলবার রাতে খেজুরির বজবজিয়াতে চোর সন্দেহে সোমার বাবা শম্ভু মাঝিকে মারধর করা হয়।

গণপিটুনিতে আহত শম্ভু বর্তমানে হেঁড়িয়ার একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। পুলিশের কাছে কোনো অভিযোগ না থাকা সত্ত্বেও ঘেরে মাছ চুরি করতে গিয়ে শম্ভু আক্রান্ত হয়েছেন বলে গুজব ছড়ায়।

শম্ভুর ছেলে বিশ্বজিৎ মাঝি বলেন, ‘বাবাকে মিথ্যা অপবাদ দেয়া হয়েছিল। হাসপাতাল থেকে বাবাকে দেখে আসার পর ভীষণভাবে ভেঙে পড়েছিল বোন। খুব কষ্ট পেয়েছিল সে। দুপুরে আমরা হাসপাতালে খাবার নিয়ে চলে যাওয়ার পর বোন বাড়িতে একা ছিল। সেই সময়ই গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে।


© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত মৃদুভাষণ - ২০১৪
Design & Developed BY ThemesBazar.Com