সোমবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৩:০১ অপরাহ্ন

হত্যার পর নিহতের অঙ্গপ্রত্যঙ্গ ও সন্তান বিক্রি করতেন তারা

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: মেক্সিকোতে এক দম্পতি অনন্ত ২০ নারীকে হত্যা করেছেন বলে ধারণা করছে দেশটির তদন্তকারী পুলিশ।

গত সেপ্টেম্বর মাসে ২৮ বছর বয়সী স্থানীয় অধিবাসী নারী ন্যান্সি হু্ইত্রোন ও তার দুই মাস বয়সী শিশু ভ্যালেন্তিনা নিখোঁজ হলে তদন্তে নামে মেক্সিকান পুলিশ।

এ সময় শিশু বহনকারী ভ্যানে করে মানবদেহের অঙ্গপ্রত্যঙ্গ নিয়ে যাওয়ার সময় এক দম্পতি গ্রেফতার হয়।

তদন্তকারীরা ওই দম্পতির ফ্ল্যাট ও নিকটবর্তী আরেকটি স্থাপনা থেকে মানবদেহের অঙ্গপ্রত্যঙ্গ উদ্ধার করে।

বিবিসির সূত্রমতে, গ্রেফতারের পর আদালতে পুরুষ ব্যক্তিটি মেক্সিকো সিটির শহরতলিতে ২০ নারীকে হত্যার কথা স্বীকার করেছে।

এ ছাড়া ওই দম্পতি হুইত্রোনসহ ২৩ ও ২৯ বছর বয়সী আরও দুই নারীকে হত্যার কথা স্বীকার করেন।

হত্যার আগে কিছু নারীকে যৌন নির্যাতন করেছেন বলে স্বীকার করেছেন তারা। আদালতে যেসব নারীর কথা বলেছে ওই দম্পতি, তাদের সবাই সিঙ্গেল মাদার ছিলেন এবং সম্প্রতি নিখোঁজ হয়েছিলেন বলে জানান মামলার তদন্তকারীরা।

তবে এই দম্পতি মানবদেহের অঙ্গ বিক্রি করতেন, কিন্তু কার কাছে বিক্রি করতেন, তা এখনও স্পষ্ট করে বলতে পারছেন না মেক্সিকান পুলিশ।

তদন্তকারীদের মতে, মেক্সিকো সিটির পার্শ্ববর্তী এক দরিদ্র এলাকাটিতে এসব খুনের ঘটনা ঘটেছে।

এ ব্যাপারে তদন্তকারীদের ওই দম্পতির প্রতিবেশীরা জানিয়েছেন, এ দুজনকে প্রায়শই ভ্যান ঠেলে নিয়ে যেতে দেখা যেত।

ভয়ঙ্কর এ মামলার বিস্তারিত প্রকাশ পাওয়ার পর মেক্সিকো সিটির শহরতলিজুড়ে তীব্র ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। বিক্ষুব্ধরা রাস্তায় নেমে প্রতিবাদ শুরু করেন।

প্রসঙ্গত, নারী হত্যা মেক্সিকোর নিয়মিত ঘটনা। মেক্সিকো স্টেটে নিখোঁজ হয়ে যাওয়া মানুষের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি। চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে এপ্রিলের মধ্যে এই রাজ্যের ৩৯৫ জন লোক নিখোঁজ হয়েছেন, তাদের মধ্যে ২০৭ নারী। সূত্র: বিবিসি


© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত মৃদুভাষণ - ২০১৪
Design & Developed BY ThemesBazar.Com