রবিবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৮, ০৩:০৬ অপরাহ্ন

যে চাকরিগুলো ভবিষ্যতে আর থাকবে না

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: যন্ত্র মানুষকে শান্তি দিয়েছে। আর এই যন্ত্রের কারণে বদলেছে কাজের ধরন।

বিশেষজ্ঞদের মতে, অদূর ভবিষ্যতে যন্ত্র স্থান করে নেবে মানুষের জায়গা। আর এ কারণে পৃথিবী থেকে বেশ কিছু চাকরি বিলুপ্ত হয়ে যাবে।

পোস্টম্যান

যন্ত্রের কারণে এখন আর কেউ চিঠি পাঠায় না। সবাই মোবাইলে এর কাজ চালান। লেখার চল প্রায় উঠে গেছে। সারা বিশ্ব এখন সংযুক্ত ডিজিটাল মাধ্যমে। জানাচ্ছে ফোর্বস পত্রিকা।

লাইব্রেরিয়ান

পাঠাগারে গিয়ে বইপড়ার অভ্যাস কমে আসছে। বলছে ২০১৬ সালে নিউইয়র্ক টাইমসের একটি রিপোর্ট। সেখানে বলা হচ্ছে, বইয়ের তালিকা বেছে নেয়ার দিকটিও ম্যানুয়ালি করে দেবে যন্ত্র।

ম্যানুফ্যাকচারার

মানুষের জায়গা নিচ্ছে অটোমেশন। শ্রমিককে পারিশ্রমিক দিতে হয়। যন্ত্রকে দিতে হয় না। কারখানায় কাজের জন্য রোবটকেও কাজে লাগানো হচ্ছে। ভবিষ্যতে যা আরও বাড়বে।

বিমানচালক

অটোমেশনের দৌলতে বিমানচালক বা এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলারের কাজও যন্ত্র বা যন্ত্রমানবই সামাল দেবে, জানাচ্ছে নিউইয়র্ক পোস্টের রিপোর্ট।

সার্ভেয়ার ও ম্যাপিং টেকনিশিয়ান

সার্ভেয়ার ও ম্যাপিং টেকনিশিয়ান কাজ করবে রোবটিক ও অন্যান্য যন্ত্র। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে ড্রোনও ব্যবহার করা হচ্ছে, মানচিত্র তৈরির জন্য।

গাড়িচালক

অটোমেটেড গাড়ি বাজারে এলে শুধু আমেরিকাতেই প্রায় ৫০ লাখ গাড়িচালক চাকরি হারাতে পারেন। একই কথা প্রযোজ্য বাস ও ট্রাকচালকদের ক্ষেত্রেও, বলছে লসঅ্যাঞ্জেলেস টাইমস।

রেফারি

একটি বেসরকারি আন্তর্জাতিক চ্যানেলের সমীক্ষা বলছে- ২০৩০ সালের মধ্যে রেফারিং সিস্টেম পুরোটাই কম্পিউটারচালিত হয়ে যাবে।

ছাপাখানা বা সংবাদপত্

সংবাদমাধ্যম ধীরে ধীরে ডিজিটাল হয়ে উঠছে। টুইটার বা ফেসবুক থেকে খবর পেতে মানুষ তুলনামূলক বেশি আগ্রহী। তাই মনে করা হচ্ছে, সংবাদপত্র ধীরে ধীরে অন্য আকার নেবে।


© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত মৃদুভাষণ - ২০১৪
Design & Developed BY ThemesBazar.Com