সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮, ০৪:২২ অপরাহ্ন

আসমা কিবরিয়ার ৩য় মৃত্যু বার্ষিকী আজ

মৃদুভাষণ রিপোর্ট ::  প্রয়াত অর্থমন্ত্রী শাহ এ এম এস কিবরিয়ার সহধর্মীনি আসমা কিবরিয়ার ৩য় মৃত্যু বার্ষিকী আজ। এ উপলক্ষে বনানীস্থ মরহুমার কবর জিয়ারত ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করেন কিবরিয়া পরিবার। ২০১৫ সালের এই দিনে গুলশানের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান আসমা কিবরিয়া।

শান্তির জন্যে নীলিমা’ নামের এক অহিংস আন্দোলনের সূচনা করেছিলেন চিত্রশিল্পী আসমা কিবরিয়া। স্বামী সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এ এম এস কিবরিয়া হত্যার বিচার চাইতে বেদনার নীল রঙের কাপড় পরে তিনি নেমেছিলেন রাস্তায়। বয়স-অসুস্থতা উপেক্ষা করে বিচারের দাবিতে রাজপথে সোচ্চার ছিলেন দীর্ঘদিন। কিন্তু কিবরিয়া হত্যার বিচার শেষ পর্যন্ত দেখে যেতে পারেনি তিসি। বিচার না পাওয়ার ক্ষোভ ও বেদনা নিয়ে আসমা কিবরিয়াও চিরবিদায় নিলেন ২০১৫ সালের এই দিনে। মৃত্যু কালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭৮ বছর।

স্বামী খুন হওয়ার পর বিচারের দাবিতে রাস্তায় নেমেছিলেন চিত্রশিল্পী আসমা কিবরিয়া। হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে ‘শান্তির সপক্ষে নীলিমা’ ও ‘রক্তের অক্ষরে শপথের স্বাক্ষর’ নামে অভিনব ও শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি শুরু করেছিলেন তিনি। দেশজুড়ে ব্যাপক সাড়া পড়ে এসব কর্মসূচিতে। শিক্ষিত ও সচেতন জনগোষ্ঠী আসমা কিবরিয়ার কর্মসূচিতে সম্পৃক্ত হয়ে কিবরিয়া হত্যার বিচারের দাবি তোলে। তবে নানা টালবাহানায় পিছিয়ে যায় বিচার। প্রথমে চারদলীয় জোট সরকারের আমলে রাজনৈতিক মদদে আটকে থাকে বিচারকাজ। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পরও অজানা কারণে বারবার পিছিয়ে যায়। কয়েক দফা অভিযোগ পত্র প্রদান আর বাদীপক্ষের নারাজি আবেদনের মধ্য দিয়েই চলে যায় আওয়ামী লীগ সরকারের এক মেয়াদ। কিবরিয়া হত্যা মামলার সম্পূরক অভিযোগ পত্রেও ‘আসল অপরাধীদের’ আড়াল করার অভিযোগ করা হয় পরিবারের পক্ষ থেকে।

১৯৩৭ সালে জন্ম নেওয়া আসমা চিত্রকলা নিয়ে পড়াশোনা করেন নিউ ইয়র্কের উন আর্ট স্কুল ও ওয়াশিংটনের কোরকোরান স্কুলে। ওয়াশিংটনে সমসাময়িক মার্কিন শিল্পীদের সঙ্গে কাজের সূত্র ধরে বিমূর্ত ধারার চিত্রকলার প্রতি আকৃষ্ট হন তিনি। তাঁর কাজ নিয়ে ব্যাংককসহ বিভিন্ন শহরে এ পর্যন্ত ১০টি একক প্রদর্শনী হয়েছে। ২০০৫ সালের পর তিনি শিল্পকর্ম থেকেও নিজেকে গুটিয়ে নেন। আর কোনো প্রদর্শনী হয়নি তাঁর।

আসমা কিবরিয়া দুই সন্তানের জননী। ছেলে ড. রেজা কিবরিয়া অর্থনীতিবিদ। আর মেয়ে ড. নাজলী কিবরিয়া বোস্টন ইউনিভার্সিটির সমাজবিজ্ঞান অনুষদের সহযোগী অধ্যাপক।


© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত মৃদুভাষণ - ২০১৪
Design & Developed BY ThemesBazar.Com