সোমবার, ১৯ অগাস্ট ২০১৯, ১০:৩২ অপরাহ্ন

ওয়ার্নারের শতক চাপা পড়ল আমীরের পাঁচ উইকেটে

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: বল টেম্পারিংয়ের নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে দীর্ঘ এক বছর পর দলে ফেরা। ডেভিড ওয়ার্নার যেন যেখানে থেমেছিলেন, ঠিক সেখান থেকেই শুরু করেছেন। ওয়ার্নার সবশেষ শতরানের ইনিংস খেলেছিলেন ভারতের মাটিতে ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরে।

এরপর তো হারিয়েই গেলেন প্রায়। তবুও ফেরার লড়াই চালিয়ে গেছেন দেশের বাইরে ফ্র্যঞ্চাইজি লিগগুলো খেলে। নিজেকে খেলার মধ্যে রেখেছিলেন, ফিট থেকেছেন। শেষ পর্যন্ত জায়গাও হয়ে গেল বিশ্বকাপের দলে।

দ্বাদশ বিশ্বকাপে অজিদের হয়ে নিয়মিত দায়িত্ব সামলাচ্ছেন ওপেনিংয়ের। গত ৩ ম্যাচে আফগানিস্তানের সঙ্গে ৮৯*, ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ৩ রানে আউট হলেও ভারতের বিপক্ষে করেছেন ৫৬ রান।

আজ টনটনে পাকিস্তানের বিপক্ষে খেললেন শতরানের দুর্দান্ত এক ইনিংস। টস জিতে অস্ট্রেলিয়াকে আগে ব্যাট করতে পাঠায় পাকিস্তান।

অজি দুই উদ্বোধনী অ্যারন ফিঞ্চ আর ডেভিড ওয়ার্নার মিলে ২২ ওভার ১ বলে ১৪৬ রানের জুটি গড়েন। ৮৪ বলে ৮২ রান করে মোহাম্মদ হাফিজের বলে ক্যাচ দিয়ে বিদায় নেন অজি অধিনায়ক ফিঞ্চ।

ডেভিড ওয়ার্নার শুরু থেকেই খেলেছেন দেখেশুনে। শেষ পর্যন্ত তার এই সাবধানী ব্যাটিং পেরিয়ে যায় শতকের কোটা।

১১টি চার আর ১ ছয়ে ১১১ বলে ১০৭ রানের ইনিংস খেলে ক্যাচ দেন শাহেন শাহ আফ্রিদির বল। ওয়ার্নার তার শতরানের ইনিংসে উঠে এসেছে এবারের বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের তালিকায় দুই নম্বরে। এক নম্বরে আছে সাকিব আল হাসান।

ওয়ার্নার যখন সাজঘরে ফেরেন তখন অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ ৩৭ ওভার ৫ বলে ৫ উইকেটে ২৪২ রান। শুরুতে ওয়ার্নার-ফিঞ্চ মিলে অজিদের চার’শ রানের আভাস দিলেও শেষদিকের ব্যাটিং ব্যর্থতায় অস্ট্রেলিয়াকে থামতে হয় ৪৯ ওভারে ৩০৭ রানে।

পাকিস্তানের হয়ে ১০ ওভারে ২ মেডেন আর ৩০ রান দিয়ে একাই ৫ উইকেট নেন মোহাম্মদ আমীর। ২ উইকেট নেন আফ্রিদি ও ১টি করে উইকেট নেন হাসান আলী, ওহাব রিয়াজ ও মোহাম্মদ হাফিজ।


© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত মৃদুভাষণ - ২০১৪
Design & Developed BY ThemesBazar.Com