বুধবার, ২৪ জুলাই ২০১৯, ১২:৫১ পূর্বাহ্ন

গোপলাবাজার-বাংলাবাজার রাস্তার বেহাল দশা নিয়ে এমপি বরাবর নাজমূলের খোলাচিঠি

বরাবরঃ মাননীয় সাংসদ (হবিগঞ্জ -১)
বিষয়ঃ গোপলাবাজার-বাংলাবাজার রাস্তা সংস্কারে আপনার সুদৃষ্টি।

আসসালামু আলাইকুম
আমার কথা শুনার মত সময় হয়ত আপনার নেই,আমি আপনার সামনে ধারাবার যোগ্যও নই।
সে দিক বিবেচনায় রেখেই আপনার নিকট খোলা চিঠিতে হাজির হলাম।
অপরাধ এবং বেয়াদবি আমার এই লেখা দ্বারা যাই হোক তার জন্য আমি অনুতপ্ত হয়ে প্রথমেই ক্ষমা ছেয়ে নিচ্ছি।

শ্রদ্ধেয় অভিভাবক
আপনার সর্বাঙ্গীণ মঙ্গল কামনা করেই আপনার নিকট একটা আবেদন নিয়ে হাজির হয়েছি।
আমার কোন ব্যক্তিগত স্বার্থ নেই এই আবেদনে নেই কোন ব্যাক্তিগত চাওয়া।

আপনার নির্বাচনী এলাকা হবিগঞ্জ-১ (নবিগঞ্জ বাহুবল)এর ভিতরকার এক সামান্য রাস্তা মেরামত নিয়েই আপনার দৃষ্টি আকর্ষণ।

মাননীয় সাংসদ আমার ধারণা……
সাত আট বছর পূর্বে যাদের জন্ম হয়েছিল তাদের আজ সুন্নতে খতনা(মুসলমানি) হয়েগেছে,কিছু বছর আগে যাদের বয়স ১২/১৩ চিল তারা আজ দুই এক সন্তানের জনক জননী।

কিন্তু গোপলার বাজার থেকে বাংলাবাজার রাস্তার অবস্তা সেই একি রয়ে গেল আজও।
হাজার হাজার ছাত্র/ছাত্রী ও জনতার একমাত্র চলাচলের রাস্তা এই গোপলা থেকে বাংলাবাজার সড়ক।ইট দিয়ে সলিং নয় এটি পুরু পাকা একটি সড়ক,কিন্তু বছর খানেন আগে বেহাল দশা দেখে কিছু গুরুত্বপূর্ণ ভাঙ্গায় ইট বিছিয়ে সামান্য সলিং করা হয়েছিল,সেটাও করেছিলেন উপজেলার এক ইউপি চেয়ারম্যান ও এই ইউপির সদস্যগন মিলে।এখন আবার পুরু পূর্বের অবস্থানেই রাস্তা।সাংসদীয় আমল দুজনের দুটো কেটেছে রাস্তা এভাবেই চিল।
আপনার নির্বাচন শেষে এবার আমরা বুক বেধেছিলাম অপার সম্ভাবণাময় স্বপ্ন নিয়ে,ভেবেছিলাম আপনার দায়িত্ব গ্রহণ পরবর্তী পদক্ষেপই হবে আমাদের চলাচলের এই রাস্তার সংস্কার কাজ।
কিন্তু আপনার ব্যস্ততা ও জনকল্যাণমুখী অন্যান্য উন্নয়ন মূলক কাজের কাছে হেরে যাচ্ছে আমাদের দেখা সেই স্বপ্ন। হয়ত আপনার দ্ৃষ্টিতে পরেনি এই রাস্তাটি বা হয়ত কেও আপনায় বলেননি এই বেহাল অবস্থার কথা।তাই এবারের জাতীয় নির্বাচনের পরও পেরিয়ে যাচ্ছে অর্ধবছর তবু নেই কোন ব্যবস্থা।

জানা গেছিল রাস্তার টেন্ডার জমা করেছে কিন্তু তাও বোধহয় স্বপ্ন, বাস্তবের নেই কোন মিল। আগেকার জনপ্রতিনিধি ও উচ্চপদস্থ আমলারা তাদের মোটা চাকার দামি গাড়িতে বসে এলাকাবেড়িয়েছেন ও সময় সময় করেছেন তাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠান ইফতার মাহফিল দলীয় সমাবেশ সহ নানান কার্যাদি। কিন্তু হাজার হাজার জনতা তাদের জিবনের চাহিদা মিটাতে ও শত শত ড্রাইভার শমিক তাদের জীবনের তাগিদে প্রতিদিন চলতে হয় এই বেহাল অবস্থার রাস্তা দিয়ে।শুধু তাই নয়,অনেকগুলা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের হাজারো ছাত্রছাত্রীদের চলার পথ এই একটিই।আপনিই একমাত্র শেষ মাধ্যম যে কিনা পারবেন দেশরত্ন খ্যাত মহামান্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর থেকে সামান্য একটা অনুদান এনে আমাদের এ কষ্টদায়ক জনজীবন থেকে মুক্তি দিতে।আমরা আপনার হাতের দিকে তাকিয়ে আছি।আমরা আশাবাদী আপনার কর্মকাণ্ড দেখে,নিশ্চয়ই আপনার দৃষ্টিগোচর হলে নিমিষেই সমাধান পেয়ে যাবে আপনার শুভাকাঙ্ক্ষী লক্ষজনতা।এবার আর জনগনের অবহেলিতর পাল্লা বাড়ি হবে না দিনকে দিন,আপনার সহানুভূতির কাছে আমরা জিম্মি হয়ে থাকব আমৃত্যু।

মাননীয় সাংসদের কাছে গোপলা থেকে বাংলাবাজার রাস্তার সংস্কার কাজ চাওয়াটা কি খুব বেশি?

যদি খুব বেশি না হয়ে থাকে তাহলে আপামর জনতার এ লাগামহীন কষ্টের একটা সামান্যতম সমাধান চাই আমরা জনসাধারণ। কোনরকমে বাজারের সবথেকে নিম্নমানের ইট বালি দিয়ে হলেও হয়ে যাবে আমাদের পথচলা,কিন্তু বর্তমান অবস্থা যে অসহনীয়। আর পারা যাচ্চেনা,পিঠ দেয়ালে আটকে পড়েছে। অনেক লেখালেখি অনেক বলাবলি হয়েছে কিন্তু কর্নপাত করাতে সক্ষম হয়নি আমরা জনসাধারণ। জনগনের কথা চিন্তা করে মাননীয় সাংসদ সমীপে আকুল আবেদন, ফিরিয়ে দিবেন না নিশ্চয়ই আপনার সুদৃষ্ঠি থেকে।

মা-আসসালাম
গোপলা বাজার-বাংলাবাজারের পথচারির পক্ষে
সৈয়দ নাজমূল আলম


© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত মৃদুভাষণ - ২০১৪
Design & Developed BY ThemesBazar.Com