মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০১৯, ০৬:১৫ পূর্বাহ্ন

সিঁদুর পরে বধূবেশে ইসকনের রথযাত্রায় নুসরাত

বিয়ের পর প্রথম দিন সংসদে গিয়েই প্রচারের আলো কেড়ে নেন কলকাতার বাংলা সিনেমার নায়িকা তথা তৃণমূল সাংসদ নুসরাত জাহান। সিঁদুর পরে যখন শপথ নিচ্ছিলেন, সবার নজর ছিল তাঁর দিকে। ইসলাম ধর্মাবলম্বী হয়েও সিঁদুর পরায় প্রশ্নের মুখে পড়তে হয়েছে তাঁকে। ইসকনের আমন্ত্রণ রাখতে আজও সিঁদুর, মঙ্গলসূত্র পরে তাঁদের আয়োজিত রথযাত্রায় শামিল হলেন নুসরাত।

বৃহস্পতিবার কলকাতায় রথযাত্রার উদ্বোধন করেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। উদ্বোধনের সময় এদিন মুখ্যমন্ত্রীর পাশেই দেখা গেল বসিরহাটের সাংসদ তথা অভিনেত্রী নুসরাত জাহানকে। পাশে ছিলেন তাঁর স্বামী নিখিল জৈন।

এ ছাড়া অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন অভিনেতা সোহম চক্রবর্তী। স্ত্রী ও ছেলেকে সঙ্গে নিয়ে সেখানে যান সোহম। নুসরাতের ফেসবুক লাইভেও ধরা পড়ে রথযাত্রার উদ্বোধন অনুষ্ঠানের ভিডিও। শাড়ি, গলায় মঙ্গলসূত্র, সিঁথিতে সিঁদুর, হাতে চূড়া ও মেহেদি পরে একেবারে নববধূর বেশেই রথযাত্রায় দেখা যায় অভিনেত্রীকে।

অনুষ্ঠানে নুসরাত জাহান বলেন, ‘ইসকনের তরফে আমায় এখানে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। সে জন্য আমি ভীষণ খুশি। এটা আমার সৌভাগ্য। পশ্চিমবঙ্গে আমরা সব সময় জাতি ভেদাভেদ নির্বিশেষে সমস্ত উৎসব পালন করি। বাংলা সম্প্রীতির প্রতীক। আগামী দিনেও আমরা এভাবেই জাতি ভেদাভেদ ভুলে যেন সমস্ত উৎসব পালন করি, সেই প্রার্থনাই করব।’

কয়েক দিন আগে ভিডিও-বার্তার মাধ্যমে রথযাত্রার অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন বলে নিজেই জানান নুসরাত। ইসকনের মুখপাত্র রাধারমণ দাস টুইট করে বলেন, ‘রথযাত্রার আমন্ত্রণ গ্রহণ করার জন্য নুসরাতকে ধন্যবাদ। আপনি সত্যিই পথ দেখাচ্ছেন।’

কিছুদিন আগে সিঁদুর পরায় একাংশের সমালোচনার পর সাক্ষাৎকারে নুসরাত বলেছিলেন, ‘আমার মাথায় সিঁদুর দেখে অনেকে প্রশ্ন করেছেন, আমি কি হিন্দুকে বিয়ে করে হিন্দু হয়ে গেলাম? আমার তো মনে হয় কোন ধর্ম অনুসরণ করব, সেই সিদ্ধান্ত নেওয়ার অধিকার সবার রয়েছে। আমি জন্মসূত্রে ইসলাম। সেটাই অনুসরণ করছি। কিন্তু সব ধর্ম এবং তার নিয়মের প্রতি শ্রদ্ধা রয়েছে আমার। আমি এবং আমার স্বামী আমাদের ধর্ম পালন করছি। আমার তো মনে হয় এটাই স্বাভাবিক।’

যা হোক, আজ কলকাতার একটি পাঁচতারা হোটেলে রয়েছে নুসরাত ও নিখিলের রিসেপশন পার্টি। টালিগঞ্জের তারকা থেকে শুরু করে তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা-মন্ত্রীদের অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে। সূত্র : জি নিউজ


© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত মৃদুভাষণ - ২০১৪
Design & Developed BY ThemesBazar.Com