আজ রবিবার, ২৪ Jun ২০১৮,সময়: ০৩:৪৫ পূর্বাহ্ন

দুর্যোগ মোকাবেলায় ১৬শ’ মিলিয়ন ডলার ঋণ দিয়েছে বিশ্বব্যাংক -মুহিত

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, দেশের উপকূলীয় অঞ্চলের দুর্যোগ মোকাবেলায় বাংলাদেশকে এক দশকে চারটি প্রকল্পে ১৬০০ দশমিক ৭৮ মিলিয়ন মার্কিন ডলার ঋণ দিয়েছে বিশ্বব্যাংক। বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে দিদারুল আলমের এক প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী এ তথ্য জানান।

সিডর-উত্তর দুর্যোগ মোকাবেলায় ‘ইমারজেন্সি সাইক্লোন রিকভারি এ রেস্টরেশন’ প্রজেক্টে বিশ্বব্যাংক ৩০৫ দশমিক ৭৮ মিলিয়ন ডলার ঋণ দেয়। ২০০৮ সালে এ ঋণ দেয়া শুরু হয় এবং চলতি বছরের ৩০ জুন শেষ হয়।

দ্বিতীয়ত ‘এমপ্লয়মেন্ট জেনারেশন প্রোগ্রাম ফর দ্য পুয়োরেস্ট’ শীর্ষক প্রকল্পে ১৫০ মিলিয়ন ডলার দেয়া হয়েছে। এটি ২০১১ সালে শুরু হয়ে ২০১৪ সালের ৩০ জুন শেষ হয়।

তৃতীয়ত ‘সেফটি নেট সিস্টেম ফর দ্য পুয়োরেস্ট’ প্রকল্পে বিশ্বব্যাংক ৫০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার দিয়েছে। এটি ২০১৯ সালের ৩০ জুন শেষ হবে।

সংসদে প্রশ্নোত্তরে বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী : মামুনুর রশীদ কিরণের প্রশ্নের জবাবে বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেন, বিশ্বকাপ ফুটবল চলাকালে সারা দেশে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

তিনি জানান, দেশে চাহিদার তুলনায় বিদ্যুতের উৎপাদন ক্ষমতা বেশি থাকায় সাধারণত বিদ্যুৎ ঘাটতি থাকে না। তবে গ্রীষ্মকালে তাপমাত্রা বেড়ে যাওয়ায় এয়ারকন্ডিশনার ও ফ্যান লোড বেড়ে যাওয়ায় সঞ্চালন ও বিতরণ নেটওয়ার্কের সীমাবদ্ধতা, গ্যাস সরবরাহের অপ্রতুলতা এবং রক্ষণাবেক্ষণ কাজের জন্য মাঝে-মধ্যে বিদ্যুৎবিভ্রাট ঘটে।

মুহিবুর রহমান মানিকের প্রশ্নের জবাবে বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী হামিদ জানান, বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের আওতাধীন এলাকায় ইতিমধ্যে ৯০ শতাংশ গ্রামে বিদ্যুৎ পৌঁছানো হয়েছে।

অবশিষ্ট ১০ শতাংশ গ্রামে বিদ্যুতায়ন কাজ চলমান আছে। আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে শতভাগ গ্রামে বিদ্যুৎতায়ন সম্ভব হবে বলে আশা করা যায়।

মিজানুর রহমানের প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী হামিদ জানান, দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে আর্থিকভাবে অস্বচ্ছল মসজিদগুলোতে বিনামূল্যে বিদ্যুৎ সরবরাহের কোনো ব্যবস্থা আপাতত নেই। তবে নিয়মিত আয়ের উৎসবিহীন ধর্ম মন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত মসজিদগুলোতে মাসিক ১০০ ইউনিট পর্যন্ত বিদ্যুৎ বিল সরকার কর্তৃক পরিশোধ করা হয়।

গৃহস্থালিতে এলপি গ্যাস ব্যবহার : হাবিবুর রহমানের প্রশ্নের জবাবে বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী জানান, সরকার গৃহস্থালিতে এলপি গ্যাস ব্যবহারকে উৎসাহিত করছে। এ কারণে গৃহস্থালিতে পাইপলাইনে গ্যাস সংযোগ দেয়ার কোনো পরিকল্পনা সরকারের নেই।

এম আবদুল লতিফের প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী জানান, অপরিশোধিত ও পরিশোধিত জ্বালানি তেল খালাস কার্যক্রম আরও সহজ, দ্রুত, সুষ্ঠু ও ব্যয়-সাশ্রয়ী করতে মহেশখালীতে ভাসমান জেটি হিসেবে সিঙ্গেল পয়েন্ট মুরিং (এসপিএম) স্থাপনে চীনের সঙ্গে চুক্তি হয়েছে। ২০২১ সালের জুনের মধ্যে এসপিএম বাস্তবায়ন করা হবে।

এখনও ৮৩ শতাংশ দর্শক বিটিভি দেখেন : আবদুল মতিনের প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু জানান, বেসরকারি টিভি চ্যানেল চালু হওয়ার কারণে বাংলাদেশ টেলিভিশনের (বিটিভি) দর্শক কমেছে এমন চিন্তার কারণ নেই। এখনও দেশের টেলিভিশন দর্শকের ৮৩ শতাংশ বিটিভি দেখেন।

খনও দর্শকদের কাছে বিটিভিই সব থেকে সমাদৃত চ্যানেল। অন্য যে কোনো সময়ের চেয়ে বিটিভি এখন জনমুখী ও দর্শকনন্দিত অনুষ্ঠান সম্প্রচার করে যাচ্ছে। দিদারুল আলমের প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী জানান, বাংলাদেশ বেতারে প্রথম শ্রেণীর ২৫৬টি পদ শূন্য রয়েছে। ২৫৬টি পদের মধ্যে ১০০টি পদের চাহিদাপত্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে।

এছাড়া দ্বিতীয় শ্রেণীর ৭৭টি, তৃতীয় শ্রেণীর ১৩৯টিএবং ৪র্থ শ্রেণীর ৭৪টি পদ শূন্য আছে বলেও জানান তিনি। এছাড়া বাংলাদেশ টেলিভিশনে গ্রেড-২ থেকে গ্রেড ২০-এর রাজস্ব খাতভুক্ত স্থায়ী অনুমোদিত পদ সংখ্যা এক হাজার ৬০২টি ও শূন্য পদ ৪৫৭টি। অনুমোদিত স্থায়ী পদ ছাড়াও রাজস্ব খাতভুক্ত অস্থায়ী পদ সংখ্যা ১২১টি।

এখানে শূন্য পদ ৬৩টি বলে জানান তথ্যমন্ত্রী। বজলুল হক হারুনের প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী জানান, ২০১৬ সালে শিল্পী ও কলাকুশলীদের সম্মানী অনেকাংশে বাড়ানো হয়েছে। সেটি আরও বাড়ানোর পরিকল্পনা রয়েছে। এছাড়া প্রতি বছর মানসম্মত চলচিত্র ও গুণী শিল্পীদের আজীবন সম্মাননাসহ জাতীয় চলচিত্র পুরস্কার দেয়া হচ্ছে।


প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক শাহ এএমএস কিবরিয়া

প্রধান সম্পাদক- ড. রেজা কিবরিয়া / সম্পাদক- সিমি কিবরিয়া

নির্বাহী সম্পাদক- শাহাবুদ্দিন শুভ
বাড়ি নং ৫৮, রোড- ৩/এ, ধানমন্ডি- আ/এ, ঢাকা- ১২০৯, মোবইল +৮৮ ০১৭১৬ ১৫৯ ২৮০
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত মৃদুভাষণ - ২০১৪, ই-মেইলঃ mridubhashan@gmail.com, editor@mridubhashan.com