ঘরে বসেই অভিভাবকরা জানবে সন্তানের খবর

../news_img/753.jpg

মৃদুভাষণ  ডেস্ক:রাজশাহী নগরীর বিদ্যালয়গামী শিক্ষার্থীর অভিভাবকদের চিন্তার দিন শেষ। শিক্ষার্থীদের হাতে পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে স্মার্ট আইডি কার্ড। এখন থেকে বাড়িতে বসেই অভিভাবকরা জানতে পারবেন তাঁদের সন্তান বিদ্যালয়ে আছে না বাইরে অবস্থান করছে।

রাজশাহী মহানগরীতে আজ সোমবার প্রথমবারের মতো এই স্মার্ট আইডি কার্ড বিতরণ করা হয়েছে।

রাজশাহী সরকারি পিএন বালিকা বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে আজ এই স্মার্টকার্ড বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন সদর আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা। নর্থ ওয়েস্টার্ন আইটি ভিলেজের কারিগরি সহায়তা নিয়ে নিজ উদ্যোগে তিনি নগরীর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য এই কার্ড চালু করলেন।

ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, দ্রুত সময়ের মধ্যে নগরীর সরকারি-বেসরকারি সব বিদ্যালয় ও কলেজগুলোতে এই কার্ড বিতরণ করা হবে। নিজ উদ্যোগে তিনি এই কার্ডের প্রচলন শুরু করলেও শিক্ষামন্ত্রীকে এই কার্ডের জন্য আলাদা বাজেট প্রদানের আহ্বান জানান তিনি।

এদিকে স্মার্ট আইডি কার্ড পেয়ে উল্লসিত শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকরা।

নর্থ ওয়েস্টার্ন আইটি ভিলেজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক অ্যাডভোকেট আরমান আলী জানান, স্মার্ট আইডি কার্ডটিতে ব্যবহার করা হয়েছে রেডিও ফ্রিক্যুয়েন্সি আইডেন্টিফিকেশন প্রযুক্তি। আইডি কার্ডটি সঙ্গে থাকা কোনো শিক্ষার্থী বিদ্যালয়ের গেট দিয়ে প্রবেশ করামাত্রই বাড়িতে বসেই অভিভাবকরা তাদের মোবাইল ফোনে এসএমএসের মাধ্যমে তা জানতে পারবেন। বিদ্যালয় ত্যাগ করলেও অভিভাবকরা এসএমএসের মাধ্যমে জানতে পারবেন।

নর্থ ওয়েস্টার্ন আইটি ভিলেজের পরিচালক শরিফা জাকারিয়া জানান, স্মার্ট আইডি কার্ডের কল্যাণে অভিভাবকরা তাঁদের সন্তানদের স্কুলে পাঠিয়ে চিন্তামুক্ত থাকতে পারবেন। শুধু তাই নয়, শিক্ষার্থীদের কেউ যদি হারিয়ে যায়, তাহলে ট্র্যাকিংয়ের  মাধ্যমে তাকে খুঁজে বের করা যাবে।

সরকারি পিএন বালিকা বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে স্মার্টকার্ড বিতরণকালে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী আঞ্চলিক মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের উপপরিচালক ড. শারমিন ফেরদৌস চৌধুরী, পিএন সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সাহারা খানম, নর্থ ওয়েস্টার্ন আইটি ভিলেজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক অ্যাডভোকেট আরমান আলী, পরিচালক শরিফা জাকারিয়া ও নাজমা পারভিন, প্রযুক্তি দলের প্রধান শাহ্ নেওয়াজ পাভেল প্রমুখ।