শাহ এ এম এস কিবরিয়াকে স্বাধীনতা পদক প্রদান

../news_img/Shadinota podhok 20155 copy.jpg

শাহাবুদ্দিন শুভ :: আজ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশের স্বাধীনতার পক্ষে এবং জাতীয় পর্যায়ে গৌরবোজ্জ্বল অবদানের জন্য সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এ এম এস কিবরিয়াকে বাংলাদেশ সরকারের সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা ‘স্বাধীনতা পুরস্কার’ (মরণোত্তর) প্রদান করেছেন।কিবরিয়া সহ মোট সাত জনকে পদক প্রদান করা হয়।

আজ রাজধানীর ওসমানী মিলনায়তনে মন্ত্রীপরিষদ বিভাগ কতৃক আয়োজিত স্বাধীনতা পদক ২০১৫ প্রদান করা হয়। এতে প্রয়াত অর্থমন্ত্রী শাহ এ এম এস কিবরিয়ার পক্ষে চাচাতো ভাই শাহ আব্দুল মুসাব্বির প্রধান মন্ত্রীর কাছ থেকে পদক গ্রহণ করেন। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন জনাব কিবরিয়ার বোন শরিফা মোসাব্বির, আশরাফি সিদ্দিকি, ভাগ্নিপতি এবি সিদ্দিকি, ভাগ্নি নিলুফার আক্তার লাইজু, মৃদুভাষণ নির্বাহী সম্পাদক শাহাবুদ্দিন শুভ প্রমুখ।

স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধে অবদানের জন্য শাহ এ এম এস কিবরিয়া ছাড়াও প্রয়াত কমান্ড্যান্ট মানিক চৌধুরী ও শহীদ মামুন মাহমুদকে এবার স্বাধীনতা পদক দেওয়া হয়েছে।

সাহিত্যে অধ্যাপক আনিসুজ্জামান, সংস্কৃতিতে চলচ্চিত্র অভিনেতা আব্দুর রাজ্জাক, গবেষণা ও প্রশিক্ষণে ড. মোহাম্মদ হোসেন মণ্ডল এবং সাংবাদিকতায় প্রয়াত সন্তোষ গুপ্ত  এ পুরস্কার পেয়েছেন।

উল্লেখ্য যে শাহ এ এম এস কিবরিয়া বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের সময় ১৯৭১ সালের ৪ আগস্ট ওয়াশিংটনে পাকিস্তান  দূতাবাস ত্যাগ করে মুজিবনগর সরকারের  প্রতি আনুগত্য প্রকাশ করেন। ওয়াশিংটনে বাংলাদেশ মিশন সংগঠনে তিনি সক্রিয় ভূমিকা রাখেন এবং বহির্বিশ্বে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে জনমত গঠনে কাজ করেন।

তিনি মার্কিন সিনেটর ও কংগ্রেস সদস্য এবং ওয়াশিংটনের সিনিয়র কলামিস্টদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের যৌক্তিকতা তুলে ধরেন। সে সময়ে তিনি ওয়াশিংটন থেকে একটি বুলেটিন প্রকাশ করতেন, যার মাধ্যমে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় বাংলাদেশের যুদ্ধপরিস্থিতি, মুক্তিযোদ্ধাদের কার্যক্রম এবং যুদ্ধকালীন অবস্থায় হানাদার বাহিনী কর্তৃক অবরুদ্ধ বাংলাদেশের জনগণের প্রকৃত অবস্থা সম্পর্কে অবহিত হতে পারত।

আর তাই ১৯৭১ সালে ওয়াশিংটনে পাকিস্তান দূতাবাসে দায়িত্বে থাকা অবস্থায় বাংলাদেশ সরকারের প্রতি আনুগত্য প্রকাশ করে প্রবাসে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে জনমত গঠনের জন্য সাবেক সফল অর্থমন্ত্রী শাহ এ এম এস কিবরিয়া এ বছর মরনোত্তর স্বাধীনতা পদক পাচ্ছেন।

উল্লেখ্য যে শাহ এ এম এস কিবরিয়া মৃদুভাষণ এর প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক।