লাল-সবুজের মর্যাদায় ‘বীর নিবাস’

../news_img/41945 mri ni u.jpg

লিটন শরীফ, বড়লেখা (মৌলভীবাজার) :: মৌলভীবাজারের বড়লেখার ৬ জন মুক্তিযোদ্ধাকে লাল-সবুজের মর্যাদায় ‘বীর নিবাস’ তৈরি করে দেওয়া হয়েছে। ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধে জীবন বাজি রেখে দেশ, জাতি ও মানবকল্যাণে ঝাঁপিয়ে পড়া অকুতোভয় মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানার্থে ও কল্যাণে প্রধানমন্ত্রীর উপহারের অংশ  ‘বীর নিবাস’ গুলো তৈরি করে দেওয়া হয়।

বড়লেখা উপজেলায় অস্বচ্ছল ও ভূমিহীন মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য লাল-সবুজের মর্যাদায় দৃষ্টিনন্দন ৬টি বাসস্থান ‘বীর নিবাস’ তৈরির কাজ শেষ হয়েছে চলতি বছরের মার্চ মাসে। পরে গত ২৬ মার্চের স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠানে ৬টি ভবনের চাবি মুক্তিযোদ্ধাদের কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে হস্তান্তর করেন জাতীয় সংসদের হুইপ মো. শাহাব উদ্দিন এমপি। 

স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) বড়লেখা কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রণালয় অস্বচ্ছল ও ভূমিহীন মুক্তিযোদ্ধাদের বাসস্থান বীর নিবাস নির্মাণ প্রকল্পের অধীনে মৌলভীবাজার জেলার বড়লেখা উপজেলায় ছয়টি বীর নিবাস তৈরি করেছে। এরমধ্যে পাঁচটি ভবনের কাজ শেষ হয়েছে। অপরটির কাজ শেষ পর্যায়ে। প্রতিটি বীর নিবাসে রয়েছে ২টি বেডরুম, ১টি ড্রয়িং রুম, ১টি রান্নাঘর, ১টি বাথরুম এবং ১টি টিউবওয়েল ও ১টি পোল্ট্রি শেড। এই ছয়টির মধ্যে পাঁচটি বীর নিবাসের প্রতিটিতে নির্মাণ খরচ হচ্ছে ৭ লাখ ৯২ হাজার ৫৮৭ টাকা। অপরটিতে ব্যয় হচ্ছে ৯ লাখ ৯ হাজার ৯৬২ টাকা। এলজিইডি বীর নিবাস নির্মাণ কাজ বাস্তবায়ন করছে। 

বড়লেখা উপজেলায় বীর নিবাস প্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধারা হচ্ছেন-দাসেরবাজার ইউনিয়নের লঘাটি গ্রামের ছালেহ আহমদ লুলু, সদর ইউনিয়নের মহদিকোনা গ্রামের মো. নেওয়ার আলী, উত্তর শাহবাজপুর ইউনিয়নের কুমারশাইল গ্রামের মো. ইব্রাহিম আলী, দক্ষিণ শাহবাজপুর ইউনিয়নের সুজাউল গ্রামের আব্দুল লতিফ, দক্ষিণভাগ দক্ষিণ ইউনিয়নের মো. আপ্তাব আলী এবং তালিমপুর ইউনিয়নের কানোনগো বাজারের ঋষিকেশ নাথ।

গত বছর (২০১৫) ফেব্রুয়ারি ও মার্চ মাসের দিকে বীর নিবাস কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছিলেন মৌলভীবাজার-১ (বড়লেখা-জুড়ী) আসনের সংসদ সদস্য ও হুইপ মো. শাহাব উদ্দিন এমপি। কাজ শেষ হওয়ায় চলতি বছরের মার্চ মাসে ৬টি বীর নিবাস মুক্তিযোদ্ধাদের কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে হস্তান্তর করা হয়।

এছাড়া বড়লেখা উপজেলায় আরও একটি পাঁচতলা ভবন নির্মাণের প্রকল্প বাস্তবায়নের অপেক্ষায় আছে। ভবনের প্রতিটি ফ্লোরে চারটি করে ফ্লাট থাকবে। এগুলো ২০জন অস্বচ্ছ্বল ও ভূমিহীন মুক্তিযোদ্ধাকে দেওয়া হবে। 

সরেজমিনে উপজেলার সীমান্তবর্তী উত্তর শাহবাজপুর ইউপি’র কুমারশাইল গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা মো. ইব্রাহিম আলীর বাড়িতে গেলে চোখে পড়ে সদ্য নির্মাণ কাজ শেষ হওয়া লাল-সবুজ রং করা ‘বীর নিবাস’। ‘বীর নিবাস’ নিয়ে কথা হয় মুক্তিযোদ্ধা মো. ইব্রাহিম আলীর সাথে। তিনি বলেন, ‘মহান আল্লাহর কাছে শুকরিয়া জানাই। শেষ বয়সে এ বসতবাড়ি পেয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, হুইপ শাহাব উদ্দিন এমপিসহ দেশবাসীর কাছে ঋণি হয়ে গেলাম।’

কথা হয় দাসের বাজার ইউপি’র মুক্তিযোদ্ধা ছালেহ আহমদ লুলু’র সাথে। তিনি বলেন, যুদ্ধ করেছিলাম জাতির-মান ইজ্জত রক্ষার জন্য। কিছু পাওয়ার আশা নিয়ে যুদ্ধ করিনি। এই বাড়ি পাওয়ায় অত্যন্ত খুশি। প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া উপহার পেয়ে গর্বিত আমি ও আমার পরিবার। জাতীয় পতাকার রং করা ঘরে বসবাস করবো এটা আমার ও পরিবারের জন্য সৌভাগ্যের।

বড়লেখা উপজেলা প্রকৌশলী বিদ্যুৎ ভূষণ পাল জানান, অস্বচ্ছল ও ভূমিহীন মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য নেওয়া প্রকল্পে বড়লেখা উপজেলায় ছয়টি ‘বীর নিবাস’ তৈরি করে দেওয়া হয়। ৬টি ভবনের কাজ শেষ হওয়ায় এগুলো মুক্তিযোদ্ধাদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।’