কেন পরকীয়ায় মজেন মহিলারা? গবেষণায় বেরিয়ে এলো চাঞ্চল্যকর তথ্য

../news_img/54861mn.jpg

মৃদুভাষণ  ডেস্ক : পুরুষেরই নাকি বেশি ‘ছুকছুকানি’ স্বভাব। শারীরিক যে কোন বিষয় নিয়ে তাদের আগ্রহই সবচেয়ে বেশি থাকে। নারী মন নিখাদ প্রেম চায়, আর পুরুষ চায় শরীর। সমাজের এই প্রচলিত ধারণাকেই পালটে দিল সাম্প্রতিক এক সমীক্ষা।

যাতে উঠে এলো সম্পূর্ণ উলটো তথ্য। ভাউচার কোডস প্রো নামে এক মার্কিন গবেষণা সংস্থার মতে, পুরুষদের তুলনায় নারীরাই বেশি শরীর আগ্রহী। বেসরকারি এই গবেষণা সংস্থার পক্ষ থেকে বেশ কয়েকজন পুরষ ও নারীকে শারীরিক ইচ্ছা নিয়ে প্রশ্ন করা হয়েছিল। বেশ কয়েকদিন ধরে তাদের ব্যবহারও খুঁটিয়ে দেখা হয়।

দেখা গিয়েছে, মহিলাদের মধ্যে শতকরা ৫৯ শতাংশেরই শারীরিক চাহিদা সঙ্গীর তুলনায় বেশি। যেখানে মাত্র ৪১ শতাংশ পুরুষদেরই বাড়তি শারীরিক চাহিদা রয়েছে। এখানেই শেষ নয়। জানা গিয়েছে, শরীরের অতৃপ্ত চাহিদা পূরণ না হওয়াই অনেক দম্পতির মধ্যে কলহের অন্যতম কারণ।

গবেষকদের দাবি, প্রতি পাঁচ দম্পতির মধ্যে এক যুগলের মধ্যে এ কারণেই ঝামেলার সূত্রপাত হয়। যা পরবর্তীকালে বড় আকার নেয়। কেউ হীনমন্যতায় ভোগেন, কেউ মানসিক অবসাদের শিকার হন, কেউ আবার শারীরিক চাহিদা মেটাতে পরকীয়ায় মজে যান।

জানা গিয়েছে, যে সমস্ত নারী ও পুরষ স্বীকার করেছেন তারা সঙ্গীর থেকে বাড়তি সুখ চান, তাদের মধ্যে শতকরা সাত শতাংশই পরকীয়ায় লিপ্ত। আবার এদের মধ্যে অনেকে শরীরের চাহিদা মেটাতে (প্রকাশ অযোগ্য শব্দ) ব্যবহার করে থাকেন। আর শরীর নিয়ে এমন তথ্য তারা প্রকাশ্যেই স্বীকার করেছেন।

আর এও জানিয়েছেন, শারীরিক সম্পর্ক নিয়ে সমাজের প্রচলিত ছুৎমার্গ এবার সত্যিই ভাঙা প্রয়োজন। যাতে মানুষ এই বিষয়টিকেও সমান গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনা করতে পারে। এবং একটা আশু সমাধানের পথ খুঁজে নেয়।