ওসমানীনগরে শিক্ষকের শাস্তিতে ছাত্রী অসুস্থ, হাসপাতালে ভর্তি

../news_img/54577 mri n.jpg

ওসমানীনগর (সিলেট) প্রতিনিধি ::  সিলেটের ওসমানীনগরে সাবিহা আক্তার পপি নামের ৬ষ্ঠ শ্রেণীর এক ছাত্রী শিক্ষকের শাস্তি সইতে না পেরে গুরুতর আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার বুরুঙ্গা ইকবাল আহমদ স্কুল এন্ড কলেজে এ ঘটনা ঘটে। আহত শিক্ষার্থী সাবিহা আক্তার পপি বুরুঙ্গা ইউনিয়নের পূর্ব সিরাজ নগর গ্রামের মোস্তফা মিয়ার মেয়ে। গুরুতর অসুস্থ সাবিহা অবস্থার অবনতি হলে বুধবার দুপুরে সিলেট নর্থ ইষ্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

জানাযায়, ওসমানীনগর উপজেলার বুরুঙ্গা ইকবাল আহমদ স্কুল এন্ড কলেজে শিক্ষক আতিকুল ইসলাম শিক্ষার্থী শিক্ষার্থী সুয়েতা রহমান হানিমকে পড়া জিজ্ঞেস করলে তার উত্তর সাবিহা তার সহপাঠী হানিমকে ইশারায় বলে দেওয়ার অপরাধে শিক্ষক আতিকুল ইসলাম সাবিহাকে ব্রেঞ্চের উপরে এক পায়ে খাড়া করে রাখেন। একটানা দাড়িয়ে থাকার এক পর্যায়ে সাবিহা জ্ঞান হারিয়ে মাটিতে লুঠিয়ে পড়ে। পরবর্তীতে একই স্কুলের শিক্ষক বাছিত মিয়া সাবিহার মাথায় পানি ও পরে এক পল্লী চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যান। বার বার সাবিহা বমি করায় ও অবস্থার আরো অবনতি হলে তাকে স্থানীয় গোয়ালাবাজারে চিকিৎসা করান। চিকিৎসায় তার অবস্থা উন্নতি না হলে বুধবার দুপুরে সিলেটের নর্থ ইষ্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এ ব্যাপারে আহত শিক্ষার্থীর পিতা মোস্তফা মিয়া বলেন, এখন পর্যন্ত ঐ স্কুলের প্রধান শিক্ষক কিংবা অন্য শিক্ষকরা আমার মেয়ের শারীরিক অবস্থা জানতে চাননি এমনকি দেখতেও আসেননি। এ ব্যাপারে স্থানীয় চেয়ারম্যান আমাকে বিষয়টি দেখার আশ্বাস দিয়েছে।

অভিযোগের বিষয়ে অভিযুক্ত শিক্ষক আতিকুলের মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে সেটি বন্ধ পাওয়া যায়।

এ বিষয়ে ওই স্কুলের প্রধান শিক্ষক শফিকুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করা করা হলে তিনি বলেন, এমন কোনো ঘটনা আমাদের স্কুলে ঘটেনি। আমাদের নিয়ে কিছু লেখার দরকার নেই।
ওসমানীনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মনিজ্জামান বলেন, ছাত্রী আহতের বিষয়ে শিক্ষা কর্মকর্তাকে নির্দেশ দিয়েছি বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া জন্য।