খাগড়াছড়িতে বিএনপি-পুলিশ সংঘর্ষে আহত ১৫

../news_img/54688 mri n k i.jpg

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: মিয়ানমারে রোহিঙ্গা গণহত্যা, নির্যাতন বন্ধ ও পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে আশ্রয় দেয়ার দাবিতে খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপি আয়োজিত মানববন্ধনে দলটির নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় বিএনপির প্রায় ১০ নেতাকর্মী ও পাঁচ পুলিশ আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে।

শুক্রবার সকাল ১০টায় খাগড়াছড়ি প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধনের স্থান নির্ধারিত থাকলেও পুলিশ তাৎক্ষণিকভাবে ভাঙাব্রিজ এলাকায় মানববন্ধন করতে নির্দেশ দেয়। পরে তা ভাঙাব্রিজ এলাকার আদালত সড়কে শুরু হলে অনুষ্ঠানের ব্যানার ও আগত নেতাকর্মীদের ব্যারিকেডের মধ্যে রাখাকে কেন্দ্র করে পুলিশ ও বিএনপি নেতাকর্মীদের মধ্যে বাকবিতণ্ডার সৃষ্টি হয়। এক পর্যায়ে তা সংঘর্ষের রূপ নেয়।

পুলিশ লাঠিচার্জ ও ধাওয়া করলে জবাবে বিএনপি নেতাকর্মীরা পুলিশকে লক্ষ করে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে।এ সময় খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি প্রবীণ চন্দ্র চাকমা, সাংগঠনিক সম্পাদক ও পৌর বিএনপির সভাপতি আব্দুর রব রাজা, ভারপ্রাপ্ত দপ্তর সম্পাদক আবু তালেব, পৌর ছাত্রদল নেতা আমির খান, জেলা ছাত্রদল নেতা সোহেল, স্বেচ্ছাসেবক দলের সেলিম খানসহ প্রায় ১০ নেতাকর্মী আহত হন। এ সময় দায়িত্ব পালন করতে আসা পাঁচ পুলিশ সদস্যও আহত হন বলে জানা গেছে। তবে তাদের নাম জানা যায়নি। 

বিএনপির পক্ষ থেকে এই ঘটনাকে অমানবিক উল্লেখ করে এর নিন্দা জানানো হয়। এ ধরনের আচরণ থেকে পুলিশকে বিরত থাকতে অনুরোধ জানান খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপি নেতারা।

এ সময় খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি প্রবীণ চন্দ্র চাকমা, সাংগঠনিক সম্পাদক ও পৌর বিএনপির সভাপতি আব্দুর রব রাজা, ভারপ্রাপ্ত দপ্তর সম্পাদক আবু তালেব, পৌর ছাত্রদল নেতা আমির খান, জেলা ছাত্রদল নেতা সোহেল, স্বেচ্ছাসেবক দলের সেলিম খানসহ প্রায় ১০ নেতাকর্মী আহত হন। এ সময় দায়িত্ব পালন করতে আসা পাঁচ পুলিশ সদস্যও আহত হন বলে জানা গেছে। তবে তাদের নাম জানা যায়নি। 

বিএনপির পক্ষ থেকে এই ঘটনাকে অমানবিক উল্লেখ করে এর নিন্দা জানানো হয়। এ ধরনের আচরণ থেকে পুলিশকে বিরত থাকতে অনুরোধ জানান খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপি নেতারা।