মানবিক কারণে সাময়িক যুদ্ধবিরতি ঘোষণা রোহিঙ্গা বিদ্রোহীদের

../news_img/54719 mri n k i.jpg

মৃদুভাষণ ডেস্ক ::  মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে মানবিক কারণে সাময়িক যুদ্ধবিরতি ঘোষণা করেছে রোহিঙ্গা বিদ্রোহীরা।

শনিবার এক বিবৃতিতে এক মাসের জন্য এ যুদ্ধবিরতির ঘোষণা দেয় আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মি (আরসা)। খবর রয়টার্সের।

বিবৃতিতে বলা হয়, রাখাইনে ত্রাণ সংস্থাগুলোর তৎপরতায় সহায়তা এবং সেখানকার মানবিক পরিস্থিতিকে স্বাভাবিক করতে যুদ্ধবিরতির সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

মিয়ানমারের সেনাবাহিনীকেও যুদ্ধবিরতি পালনের আহ্বান জানিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত সব মানুষকে মানবিক সহায়তা প্রদানের অনুমতি দিতে বলেছে আরসা।

যুদ্ধবিরতি কালে সব জাতি ও ধর্মের ক্ষতিগ্রস্ত মানুষকে আবারও মানবিক সহায়তা প্রদান শুরু করতে সংশ্লিষ্ট সব ত্রাণ সংস্থাকে আরসা ব্যাপকভাবে উৎসাহিত করছে বলে বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়।

গত ২৫ আগস্ট ভোররাত থেকে রাখাইন রাজ্যে সীমান্তরক্ষী পুলিশের (বিজিপি) সঙ্গে আরসার সংঘাত শুরু হয়। এতে নিরাপত্তা বাহিনীর ১২ সদস্যসহ শতাধিক রোহিঙ্গা নিহত হন।

এ ঘটনার পর মিয়ানমারের সরকারি বাহিনী রাখাইনে বিতাড়ন  অভিযান শুরু করে। তারা রোহিঙ্গাদের গ্রামগুলোতে হানা দিয়ে সাধারণ মানুষকে লক্ষ্য করে নির্বিচারে গুলিবর্ষণ করছে এবং দুই হাজার ৬০০ বাড়িঘর পুড়িয়ে দিয়েছে বলে মানবাধিকার সংস্থাগুলো অভিযোগ।

জাতিসংঘ জানিয়েছে, সেনা অভিযানে রাখাইনে এ পর্যন্ত এক হাজারেরও বেশি মানুষ নিহত হয়েছে। আর প্রাণ বাঁচানোর জন্য গত দুই সপ্তাহে প্রায় তিন লাখ রোহিঙ্গা পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে।