সিলেট-৬ আসনে নাহিদ না মকবুল, কে হবেন নৌকার মাঝি?

../news_img/55417mmri iu.jpeg

উৎপল দাস :: আগামী নির্বাচনে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ মনোনয়ন বঞ্চিত হতে পারেন। নানামূখী জরিপে সিলেটের এই আসনটিতে নাহিদের জয়ের সম্ভাবনা ক্ষীণ হয়ে এসেছে। প্রতিদ্বন্ধীতাপূর্ণ নির্বাচন হলে নাহিদকে দিয়ে নৌকার বিজয় ঘরে তোলা যাবে না, এমন রিপোর্ট আসার পর দলের হাই কামন্ড ভাবছেন; প্রার্থী বদলের কথা।

এরশাদের জাতীয় পার্টি মহাজোট হলে দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য তাজ রহমানের জন্য আসনটি চাওয়া হবে। জাতীয় পার্টির রাজনীতিতে সক্রিয় এরশাদের ঘনিষ্ঠ ও টেলিভিশন টকশোতে তাজ রহমান সরব।

আওয়ামী লীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনার কাছে প্রস্তাব আছে নৌকার বিজয় নিশ্চিত করতে হলে নাহিদ নয়, সাবেক সংসদ সদস্য সৈয়দ মকবুল হোসেনকে দলে এনে প্রার্থী করতে হবে। এতে ফলাফল আ.লীগের ঘরে উঠার সম্ভাবনা বেশি। মকবুল হোসেন ব্যক্তিগত উদ্যোগে সিলেট-৬ (বিয়ানীবাজার-গোলাপগঞ্জ) আসনে অনেক জনসেবামূলক কাজ করেছেন। এলাকায় তার একটি নিজস্ব ভোটব্যাংক রয়েছে।

১৯৮৬ সালের নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে সৈয়দ মকবুল হোসেন বিজয়ী হয়ে চমক সৃষ্টি করেন। পরবর্তীতে ১৯৯১ সালে তিনি নির্বাচন করা থেকে বিরত থাকলে ৮ দলীয় জোট প্রার্থী নুরুল ইসলাম নাহিদ জাতীয় পার্টির প্রার্থীর কাছে পরাজিত হন। ১৯৯৪ সালে কমিউনিস্ট পার্টি থেকে ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন গণ ফোরাম হয়ে হয়ে আওয়ামী লীগে যোগ দেন নাহিদ। ১৯৯৬ সালের নির্বাচনে তিনি বিজয়ী হলেও ২০০১ সালের নির্বাচনে আবারো স্বতন্ত্র প্রার্থী ড. সৈয়দ মকবুল হোসেনের কাছে পরাজিত হন নাহিদ। সৈয়দ মকবুল হোসেনকে বিএনপিতে নেয়া হলেও সেখানে তার বনিবনা হয়নি। ২০০৮ সালের নির্বাচনে তিনি স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে প্রতিদ্বন্ধিতা করে পরাজিত হন।

আগামী জাতীয় নির্বাচনে নুরুল ইসলাম নাহিদের বদলে সৈয়দ মকবুল আওয়ামী লীগের প্রার্থী হলে অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না দলের দায়িত্বশীল সূত্রে জানা গেছে।
সৌজন্যে : পূর্বপশ্চিমবিডিডটকম