বড়লেখা উপজেলা প্রশাসানের হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ে বন্ধ

../news_img/map boroleaka.jpg

বড়লেখা প্রতিনিধি :: বড়লেখা উপজেলা প্রশাসানের হস্তক্ষেপে রোববার বিকেলে একটি নিশ্চিত বাল্যবিয়ে বন্ধ করা হয়েছে। পরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সমীর বিশ্বাস কনের বয়স ১৮ বছর পূর্ণ না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে না দেয়ার ব্যাপারে মূচলেখা আদায় করে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের জিম্মায় বর-কনে, তাদের অভিভাবক ও কাজীকে ছেড়ে দেন। চিন্তাপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা অঞ্জনা রাণী দে জানান স্কুলের ভর্তি রেকর্ড অনুযায়ী মেয়েটির বয়স ১৬ বছর ৮ মাস।
ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন বড়লেখা সহকারী কমিশনার (ভুমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সমীর বিশ্বাস।

জানা গেছে, উপজেলার সুজানগর ইউনিয়নের বড়থল গুচ্ছগ্রামের সৈয়ব আলী ও মিনারুন বেগম তাদের কিশোরী মেয়ের বিয়ে ঠিক করেন গোলাপগঞ্জ উপজেলার মৃত মনির মিয়ার ছেলে জাকির হোসেনের সাথে। রোববার বিকেল ৩টায় ভুয়া জন্মনিবন্ধন সনদে কনের পিত্রালয়ে বিয়ে পড়ানোর প্রস্তুতি নেন স্থায়ীয় নিকাহ রেজিষ্ট্রার কাজী মাওলানা ফয়েজ উদ্দিন। এসময় পুলিশ নিয়ে হাজির হন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভুমি) সমীর বিশ্বাস। তিনি ভুয়া জন্মসনদ জব্দ, বর-কনে, তাদের অভিভাবক ও কাজীকে আটক করেন। পরে ১৮ বছর পূর্ণ হওয়ার পূর্বে বিয়ে না দেয়ার শর্তে মূছলেখা আদায় করে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান নছিব আলীর জিম্মায় তাদেরকে ছেড়ে দেয়া হয়। এসময় থানার এসআই দেবাশীষ সুত্রধর, ইউপি সদস্য ফরমান আলী, শহীদ আহমদ প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।