এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষা কাল

../news_img/54970 mrin k.jpg

মৃদুভাষন ডেস্ক ::  চলতি বছর সরকারি ও বেসরকারি মেডিকেল কলেজে এমবিবিএস কোর্সের প্রথম বর্ষে (২০১৭-১৮) ভর্তি পরীক্ষা আগামীকাল শুক্রবার অনুষ্ঠিত হবে।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের অধীনে রাজধানীসহ সারা দেশের ২০টি কেন্দ্রে অভিন্ন প্রশ্নপত্রে এ ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। দ্বিতীয়বার ভর্তিচ্ছুদের ক্ষেত্রে ৫ নম্বর কাটা হবে।

অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার সকাল ১০টা থেকে ১১টা পর্যন্ত ১০০ নম্বরের নৈর্ব্যক্তিক প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

এর মধ্যে জীববিদ্যা ৩০, রসায়ন ২৫, পদার্থবিদ্যা ২০, ইংরেজি ১৫, সাধারণ জ্ঞান, বাংলাদেশের ইতিহাস ও সংস্কৃতি ৬ এবং আন্তর্জাতিক বিষয়ে ৪ নম্ব^র থাকবে। পরীক্ষায় পাস নম্বর ৪০। এ বছর বছরের ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য ৮২ হাজার ৭৮৮ শিক্ষার্থী আবেদন করেছেন। দেশে সরকারি ৩১টি মেডিকেল কলেজের মোট আসন সংখ্যা ৩ হাজার ৩১৮টি। অর্থাৎ প্রতি আসনের বিপরীতে ভর্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করবে ২৪ জনের বেশি।

অন্যদিকে সরকারি-বেসরকারি মিলে প্রতি আসনের বিপরীতে ৮ জনের বেশি শিক্ষার্থী ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করছে। স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালক (চিকিৎসা শিক্ষা ও জনশক্তি উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. আবদুর রশীদ যুগান্তরকে বলেন, ইতিমধ্যে এমবিবিএস পরীক্ষার সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। একদল বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক-শিক্ষকের সমন্বয়ে গঠিত প্রশ্নপত্র প্রণয়ন কমিটি কঠোর গোপনীয়তায় প্রশ্নপত্র প্রণয়নের কাজ শেষ করেছেন।

ইতিমধ্যে প্রশ্নপত্র ছাপাও সম্পন্ন হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (আজ) ঢাকাসহ দেশের সব কেন্দ্রে প্রশ্নপত্র পাঠানো হবে। প্রতিটি কেন্দ্রের প্রশ্নপত্র একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের তত্ত্বাবধানে পুলিশ পাহারায় পাঠানো হবে। পরীক্ষা শুরু হওয়ার কমপক্ষে ৩০ মিনিট আগেই কেন্দ্র উপস্থিত হতে শিক্ষার্থীদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

১০ মিনিট পর কাউকে কেন্দ্রে প্রবেশ করতে দেয়া হবে না। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ভর্তি কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এবারও পরীক্ষা কেন্দ্রে মোবাইল, ক্যালকুলেটর, ঘড়িসহ সব ধরনের ইলেকট্রুনিক্স ডিভাইস নিয়ে প্রবেশ করা যাবে না।

এদিকে ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে এমবিবিএস ও বিডিএস কোর্সে দ্বিতীয়বার ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারীর প্রাপ্ত নম্বর থেকে ৫ নম্বর কাটার বিষয়ে চেম্বার বিচারপতির দেয়া আদেশ বহাল রেখেছেন সুপ্রিমকোর্টের আপিল বিভাগ।

পরীক্ষার্থীদের ৫ নম্বর কাটার সিদ্ধান্ত স্থগিত করে হাইকোর্ট যে আদেশ দিয়েছিলেন, তা চেম্বার আদালত স্থগিত করেছিলেন। সর্বোচ্চ আদালতের এই আদেশের ফলে ভর্তি পরীক্ষার মেধা তালিকা তৈরির সময় দ্বিতীয়বারের পরীক্ষার্থীদের ৫ নম্বর কাটার সিদ্ধান্তই বহাল থাকল।

বুধবার রাষ্ট্রপক্ষ ও বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যান্ড ডেন্টাল কাউন্সিলের (বিএমডিসি) দুটি আবেদনের শুনানি করে দায়িত্বরত বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহ্?হাব মিঞার নেতৃত্বে পাঁচ বিচারকের আপিল বেঞ্চ এ আদেশ দেন। রিট আবেদনকারী আইনজীবী ইউনুছ আলী আকন্দ নিজেই এ বিষয়ে শুনানি করেন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে, ভর্তি পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে হচ্ছে কি না তা সরেজমিনে দেখতে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও স্বাস্থ্য অধিদফতরের কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে শতাধিক সদস্যের একাধিক পরিদর্শক টিম গঠন করা হয়েছে। সাধারণত তিন থেকে চার সদস্যের প্রতিটি পরিদর্শক টিমে সচিব থেকে শুরু করে উপ-পরিচালক পর্যায়ের কর্মকর্তারা থাকবেন।

এর আগে মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে গত ১ সেপ্টেম্বর থেকে ২০ নভেম্বর পর্যন্ত রাজধানীসহ সারা দেশের কোচিং সেন্টার বন্ধ ঘোষণা করা হয়।

এছাড়া এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষার সার্বিক কার্যক্রম তদারকি করতে বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার বিশেষজ্ঞদের সমন্বয়ে ওভারসাইট কমিটি গঠিত হয়েছে। এ কমিটিতে সিনিয়র সাংবাদিক গোলাম সারোয়ার, নাইমুল ইসলাম খান, কলামিস্ট সৈয়দ আবুল মকসুদ, বিএসএমএমইউ ভিসি অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খান, বিএমএ’র সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন প্রমুখ রয়েছেন।