কমলগঞ্জে স্ত্রীর সংবাদ সম্মেলনে পূর্ব শক্রতার জের ধরে হত্যা মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ

../news_img/54977 mrin k.jpg

কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি :: পূর্বশক্রতার জের ধরে তার স্বামী তাউসেন মিয়াকে হত্যা মামলায় মিথ্যা আসামী করে হয়রানি করার অভিযোগ তুলেছেন কমলগঞ্জ পৌরসভার কুমড়াকাপন গ্রামের তাউসেন মিয়ার স্ত্রী হাছিনা বেগম। বুধবার ৪ অক্টোবর দুপুরে সাপ্তাহিক কমলগঞ্জের কাগজ পত্রিকা অফিসে এক সংবাদ সম্মেলনে মাধ্যমে হাছিনা বেগম এই অভিযোগ করেন।

সংবাদ সম্মেলনে হাছিনা বেগম অভিযোগ করেন, কুমড়াকাপন গ্রামের প্রতিবেশী মোহাম্মদ আলীর ছেলে মাসুদ রানা রুবেল গত ১৭ আগষ্ট ভোরে চট্রগ্রাম-সিলেটগামী ৭২৩ নম্বর আন্তনগর উদয়ন এক্সপ্রেস ট্রেনের নিচে পড়ে ক্ষতবিক্ষত অবস্থায় লাশ পাওয়া যায়। এ ব্যাপারে শ্রীমঙ্গল রেলওয়ে থানার অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়। কিন্তু মাহমুদ আলী পূর্ব বিরোধের জের ধরে ও  পূর্বেও ২টি মামলা বিচারাধীন থাকায় মূল ঘটনাকে আড়াল করার জন্য আমার স্বামী তাউসেন মিয়াসহ এলাকার কিছু তরুনদের ফাঁসানোর লক্ষ্যে অপমৃত্যুকে হত্যাকান্ড উল্লেখ করে মিথ্যা অভিযোগ এনে মৌলভীবাজার আদালতে একটি পিটিশন দায়ের করলে আদালত বিষয়টি তদন্তের জন্য কমলগঞ্জ থানাকে নিদের্শ দিয়েছেন। পিটিশনে আমার স্বামীকে হত্যার মামলার ১ নং আসামী করে মিথ্যা হয়রানী অভিযোগ এনে আমাদের গরীব্ পরিবারটিকে ধ্বংস করার পায়তারা করা হচ্ছে বলে স্ত্রী হাছিনা বেগম অভিযোগ করেন। শুধু আমার স্বামী নয় এলাকার আহমদ মিয়া, বদরুল মিয়া, আসিক মিয়া, রইছ মিয়া, শহিদ মিয়াকে মিথ্যা মামলা দায়ের করে হয়রানী করছেন মাহমুদ আলী। সংবাদ সম্মেলনে হাছিনা বেগম মামলাটির সুষ্ঠ নিরপেক্ষ তদন্ত দাবী করে আরও বলেন, এ মামলায় যাদের আসামী করা হয়েছে সবার সাথে মোহাম্মদ আলীর পূর্ব বিরোধ আছে। এ ঘটনার সাথে কেউ জড়িত নয়। বরং বাবা ছেলের মাঝে কখনও ভাল সম্পর্ক ছিলো না। পারিবারিক বিরোধের কারনে মাসুদ রানা আত্মহত্যা করতে পারে।আমার স্বামী এমন অপরাধের সাথে জড়িত নন। আমরা এই চক্রান্তমুলক মিথ্যা মামলা থেকে বাচঁতে চাই। সঠিক তদন্তের মাধ্যমে প্রকৃত রহস্য বের করার দাবী জানাচ্ছি। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন মিথ্যা মামলার আসামী আহমদ মিয়া,তাউসেন মিয়া, বদরুল মিয়া, আসিক মিয়া, রইছ মিয়া ও শহীদ মিয়া প্রমুখ।