মিয়ানমারের সেনা কর্মকর্তাদের সঙ্গে যোগাযোগ ছিন্ন করবে ইইউ

../news_img/55020 mrin k.jpg

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর শীর্ষ কর্মকর্তাদের সঙ্গে যোগাযোগ ছিন্ন করবে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)। রাখাইন রাজ্যের রোহিঙ্গা মুসলমানদের ওপর সেনাবাহিনীর নির্যাতনের কারণে ধারাবাহিক নিষেধাজ্ঞার প্রথম পদক্ষেপ হিসেবে এটি করা হবে। এ সংক্রান্ত ইউরোপীয় ইউনিয়নের করা একটি খসড়া নথির বরাত দিয়ে সোমবার বার্তা সংস্থা রয়টার্স এ তথ্য জানিয়েছে।

মিয়ানমারের পরিস্থিতি নিয়ে ইউরোপীয় ইউনিয়নের ১৬ অক্টোবর বৈঠক করবেন। খসড়ার বিষয়ে ইইউ’র ২৮টি দেশের কূটনীতিকরা মঙ্গলবার আবারও বৈঠক করবেন এবং এটি আরো পরিমার্জনা করা হতে পারে।

খসড়া ওই যৌথ বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘মিয়ানমারের সেনাপ্রধান ও অন্যান্য জ্যেষ্ঠ সেনা কর্মকর্তাদের যে কোনো ধরণের আমন্ত্রণ বাতিল করা হবে।’ মিয়ানমারের পরিস্থিতির উন্নয়নের ওপর নির্ভর করে ইইউ পরবর্তী পদক্ষেপ বিবেচনা করবে। তবে এ উন্নয়ন ইতিবাচক হতে হবে। বর্তমানে মিয়ানমারের ওপর ইইউ’র যে অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা রয়েছে তার প্রতিও সমর্থন জানানো হয়েছে খসড়া নথিতে।

খসড়াতে রাখাইন রাজ্যের পরিস্থিতিকে ‘চরম গুরুতর’ বলে মন্তব্য করা হয়েছে। এছাড়া কাচিন ও শান প্রদেশের পরিস্থিতিও ‘বেশ উদ্বেগের’ বলে মন্তব্য করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, সেনাবাহিনী ও চরমপন্থী বৌদ্ধদের নির্যাতন-সহিংসতা থেকে প্রাণে বাঁচতে গত ২৫ আগস্ট থেকে প্রায় ৫ লাখ ১৯ হাজার রোহিঙ্গা মিয়ানমার থেকে পালিয়ে এসে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। তবে মিয়ানমার সরকার সেনা ও বৌদ্ধ সন্ত্রাসীদের হামলার কথা অস্বীকার করেছে।