পথচারীকে থাপ্পর মেরে বিপাকে পুলিশ

../news_img/56214mmm.jpg

মৃদুভাষণ ডেস্ক::পথচারীকে থাপ্পর মারায় পুলিশের এক এ.এস.আইকে তিন ঘন্টা অবরুদ্ধ করে রাখে উত্তেজিত জনতা। পরে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে তাকে উদ্ধার করে নিয়ে আসে। মঙ্গলবার (১০ অক্টোবর) রাতে কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলার হাতিয়া ইউনিয়নের অনন্তপুর বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার সন্ধা ৭টার দিকে উপজেলার হাতিয়া ইউনিয়নের ভবেশ বগাপাড়া গ্রামের রফিকুল ইসলাম (৫০) অনন্তপুর বাজারে পাটখড়ি কিনে গলি দিয়ে যাচ্ছিল। এসময় উলিপুর থানার এ.এস আই আসাদ মোটরসাইকেলে চড়ে বাজারের গলি দিয়ে প্রবেশ করার সময় পাটখড়ি তার শরীর স্পর্শ করে। এতেই তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে ঐ পথচারীকে অকাথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে চড়-থাপ্পর মারেন।

এসময় পথচারী আকুতি মিনতি করলে তাকে হ্যান্ডক্যাপ পরিয়ে টেনে হেচড়ে বাজারের শাহীন হোটেলে নিয়ে যায়। এ খবর বাজারে ছড়িয়ে পড়লে সহশ্রাধিক জনতা বিক্ষুদ্ধ হয়ে ওই এ.এস.আইকে গণধোলাই দেয়ার চেষ্টা করে এবং হোটেলে অবরুদ্ধ করে রাখে।

খবর পেয়ে উলিপুর থানার এস.আই রাজুর নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তাকে উদ্ধারের চেষ্টা চালান। এতেও কাজ না হলে রাত ৯ টার দিকে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আবুল হোসেনের শরনাপন্ন হন। পরে পুলিশের এস.আই রাজু তার সহকর্মীর কৃতকর্মের জন্য ক্ষমা চেয়ে ৩ ঘন্টা পর তাকে উদ্ধার করে নিয়ে আসেন। উলিপুর থানার অফিসার ইনচার্জ এসকে আব্দুল্লাহ আল সাইদ বলেন, ভুল বুঝাবুঝির কারণে সৃষ্ট ঘটনা স্থানীয় চেয়ারম্যানের হস্তক্ষেপে নিরসন হয়েছে।