‘নিখোঁজ’ সিজারের সাবেক স্ত্রীর আবেগঘন পোস্ট

../news_img/57070 mmm.jpg

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: এক সপ্তাহ ধরে নিখোঁজ সন্তানের শোকে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক মুবাশ্বার হাসান সিজারের মা সাবেক ব্যাংক কর্মকর্তা উম্মে কুলসুম।

একমাত্র সন্তানের সন্ধান না পেয়ে একই অবস্থা বাবা পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের সাবেক অতিরিক্ত সচিব মোতাহার হোসেনেরও। অসুস্থ অবস্থায় মঙ্গলবার সিজারের মাকে স্থানীয় ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে।

এদিকে নিখোঁজের পর নীরব থাকলেও মঙ্গলবার ফেসবুক পেজে আবেগঘন স্ট্যাটাস দিয়েছেন সিজারের সাবেক স্ত্রী। বিচ্ছেদের পর ৫ বছর বয়সী একমাত্র মেয়েকে নিয়ে হাজারীবাগে থাকেন তিনি।

মঙ্গলবার ফেসবুক পেজে তিনি তার সাবেক স্বামীকে যারা গুম করেছে তাদের বিচার চাননি। তবে একমাত্র সন্তানের জন্য তিনি সিজারকে ফিরিয়ে পাওয়া আকুতি জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, প্রয়োজনে সিজার লেখালেখি ছেড়ে দেবে, আর কখনও লেখালেখি করবে না। মঙ্গলবার ফেসবুক পেজে দেয়া স্ট্যাটাসটি শেয়ার করেছেন সিজারের বোন তামান্না তাসনিম। আবেগঘন ওই লেখাটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে পড়েছে। স্ট্যাটাসের কিছু অংশ তুলে ধরা হল। ‘আজ নিখোঁজের সাত দিন। ৭ নভেম্বরের পর থেকে মোবাশ্বারের জন্য অনেক লেখালেখি হচ্ছে, মানববন্ধন হচ্ছে। ওর বন্ধুরা ওকে ফেরত চায়, ওকে যারা গুম করেছে তাদের বিচার চায়। আমি শাস্তি বা বিচার কিছুই চাই না। আমি শুধু চাই, আমার ছোট্ট মেয়েটার বাবা মেয়ের কাছে ফিরে আসুক। ও শুধু একবার ফিরে আসুক, আমি কথা দিচ্ছি ও আর জীবনেও কোনো কিছু লিখবে না, ওর ফেসবুক প্রোফাইল থাকবে না, ওর ব্লগ থাকবে না। প্লিজ বিশ্বাস করেন।’

স্ট্যাটাসে তিনি বলেছেন, ‘আমাদের একটা মেয়ে আছে। ডিভোর্সের পর আমাদের কখনও দেখা বা কথা হয়নি। মেয়ের পিতামাতা হিসেবে আমরা সিক্রোনাইজড ছিলাম। মেয়েটাকে আমি বলেছি তার বাবা দেশের বাইরে গেছে পড়াশোনা করতে। ওর বাবা যেহেতু প্রায়ই বাইরে যায় তাই মেয়েটি বেশি প্রশ্ন করেনি, কিন্তু প্রচণ্ড অভিমান করেছে। কারণ না জানিয়ে ওর বাবা কখনও কোথাও যায়নি। ও খুব অবাক হয়ে শুধু বারবার জানতে চাইছে, ‘কই, বাবা তো আমাকে বলে গেল না।’ স্ট্যাটাসে তিনি লিখেছেন, ‘আমার মেয়ে জানে যে তার বাবা শুক্রবার তাকে খেলনা কিনতে নিয়ে যাবে, কিন্তু বাবা তাকে না জানিয়ে বিদেশ যাবে এটা সে কিছুতেই মানতে পারছে না। ফুফুর (তামান্না তাসনিম) সঙ্গেও তার বেশ ভালো খাতির। বাবার ওপর অভিমান করে সে ফুফুর সাথেও সে এখন কথা বলছে না। নভেম্বরে মেয়েটার জন্মদিন। সে জানে বাবা বাইরে থেকে অনেক খেলনা নিয়ে আসবে। বাবার সঙ্গে খেলতে যাওয়া, মুভি দেখতে যাওয়ার খুব পাগল সে। সিজারের সাবেক স্ত্রী তার স্ট্যাটাসে লিখেছেন, আপনারা ইমোশন কতটুকু বোঝেন আমি জানি না, কিন্তু আমার মেয়ে বোঝে। এই মেয়েটাকে এভাবে মিথ্যা বলে আর কতদিন বুঝ দিয়ে রাখব আমি?

এদিকে অসুস্থ হয়ে পড়া নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সিজারের মা উম্মে কুলসুমকে মঙ্গলবার সকালে স্থানীয় ক্লিনিকে নেয়া হয়েছে। গত ৭ নভেম্বর সকালে দক্ষিণ বনশ্রীর বাসা থেকে বের হয়ে কর্মস্থল নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে যান সিজার। সেখান থেকে বিকালে আগারগাঁওয়ের আইডিবি ভবনে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এটুআই প্রকল্পের একটি মিটিং শেষে বের হওয়ার পরপরই নিখোঁজ হন তিনি।