অপু বিশ্বাসের কাছে যে প্রশ্নের উত্তর জানতে চান শাকিব খান

../news_img/46993mri nui.jpg

মৃদুভাষণ ডেস্ক : স্ত্রী অপু বিশ্বাসের কাছে শাকিব খান জানতে চেয়েছেন, ‘বাচ্চার জন্য মায়া থাকলে সঙ্গে কেন নিয়ে গেল না।’ শাকিব বলেন, কিছু হলে তো বাচ্চার কথা সবসময়ই বলে অপু। আমার প্রশ্ন হচ্ছে, বাচ্চার জন্য মায়া থাকলে সঙ্গে কেন নিয়ে গেল না।

শুক্রবার সন্ধ্যায় আবারো আলোচনায় কেন্দ্রবিন্দুতে উঠে আসেন ঢালিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী অপু বিশ্বাস। আর তার এই আলোচনায় যুক্ত হওয়ার কারণ হিসেবে শাকিব খান জানিয়েছেন, তাদের একমাত্র সন্তান আব্রাম খান জয়কে রাজধানীর নিকেতনের ফ্ল্যাটে অপুর ব্যক্তিগত সহকারী শেলীর নিকট রেখে বাসার মূল দরজায় তালা দিয়ে অপু বিশ্বাস গত শুক্রবার দেশের বাইরে চলে গেছেন।

শাকিব খান গত বৃহস্পতিবার রাতে থাইল্যান্ড থেকে ঢাকায় ফেরার পর পরের দিন নিজের সন্তানকে দেখতে অপুর নিকেতনের বাসায় গিয়ে জয়কে দেখতে ব্যর্থ হন। দেখেন বাসায় তালা ঝুলানো। শাকিব খান বলেন, আমি ‘মাস্ক’ নামে নতুন ছবির কাজ শেষ করে বাচ্চার জন্য বিদেশ থেকে কিছু খেলনা নিয়ে এসেছিলাম। জয়কে এসব খেলনা দেয়ার পাশাপাশি তাকে দেখার জন্য গেলে দেখি অপুর বাসার মূল দরজায় তালা ঝুলছে।

এরপর জানতে পারি জয়কে ভেতরে রেখে অপু চিকিৎসার জন্য দেশের বাইরে চলে গেছে। আমার কথা হচ্ছে, হঠাৎ বাচ্চার কিছু হয়ে গেলে কে তাকে দেখাশোনা করবে। আর এমন কি অসুস্থ হলো যে তার বাংলাদেশে চিকিৎসা নেই। কিছু হলে তো বাচ্চার কথা সবসময়ই বলে অপু। আমার প্রশ্ন হচ্ছে, বাচ্চার জন্য মায়া থাকলে সঙ্গে কেন নিয়ে গেল না।

শাকিব খান আরো বলেন, আমার বাসায় রেখে যায়নি কারণ তখন তো সকলে জেনে যাবে যে সে দেশের বাইরে যাচ্ছে। মাত্র এক বছরের একটি বাচ্চা ছেলেকে অন্যের জিম্মায় বাইরে থেকে তালা লাগিয়ে কোনো মা কীভাবে দেশের বাইরে চলে যেতে পারে? আমার এখনো বিশ্বাস হচ্ছে না। নিকেতনের হাউজিং সোসাইটি কর্তৃপক্ষকেও বিষয়টি জানানো হয়েছে।

আল্লাহ না করুক বাচ্চার তো একটা দুর্ঘটনাও ঘটতে পারতো। আপাতত জয় ওই বাসায় শেলীর কাছে রয়েছে। প্রয়োজনে ফোন দিতে বলেছি। এমন একটা অবস্থা এই তালার চাবি অপুর কাছেই শুধু রয়েছে। আদালতের আইনি আদেশ নিয়ে প্রয়োজনে তালা ভাঙা হবে। এদিকে খবর ছড়িয়েছে, শাকিব-অপুর বিবাহবিচ্ছেদ এখন সময়ের ব্যাপার মাত্র। যেকোনো সময় ডিভোর্সের ঘোষণা আসতে পারে দুজনের পক্ষ থেকেই।  -এমজমিন