‘নির্বাচনে কোনো প্রভাব বিস্তার করবে না আ.লীগ’

../news_img/57156mmm.jpg


মৃদুভাষণ ডেস্ক::আওয়ামী লীগ সরকার নির্বাচনে কোনো প্রভাব বিস্তার করবে না বলে মন্তব্য করেছেন নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান।

রোববার (১৯ নভেম্বর) সকালে চট্টগ্রাম বন্দরে সাউথ কন্টেইনার ইয়ার্ডের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে নৌমন্ত্রী এ মন্তব্য করেন।

শাজাহান খান বলেন, ‘নির্বাচন কমিশন নির্বাচন পরিচালনা করবে, শেখ হাসিনা সরকার নির্বাচনের ওপর কোনো প্রভাব সৃষ্টি করবে না। তবে নির্বাচন অনুষ্ঠানের তিন মাস শেখ হাসিনা রাষ্ট্র পরিচালনা করবেন। বিশ্বের সব দেশেই এমন হয়ে থাকে। সেই সময় শেখ হাসিনা শুধু রাষ্ট্রের দৈনন্দিন কার্যক্রম পরিচালনা করবেন, নীতিগত কোনো সিদ্ধান্ত তিনি নেবেন না।’

নৌমন্ত্রী আরও বলেন, ‘সন্ত্রাসীদের সঙ্গে, জামায়াত-রাজাকারের সঙ্গে নির্বাচন নিয়ে কোনো আলোচনা করবে না সরকার। আলোচনা করার প্রশ্নই আসে না।’

চট্টগ্রাম বন্দরের টাকায় নৌমন্ত্রী ১৪ বার বিদেশ সফর করে কোটি কোটি টাকা অপচয় করেছেন একটি জাতীয় দৈনিক পত্রিকায় প্রকাশিত এমন সংবাদের প্রতিবাদ জানান শাজাহান খান। নৌমন্ত্রী জানান, তিনি এ ঘটনায় মামলা করেছেন।

নৌমন্ত্রী বলেন, ‘তিনি বন্দর থেকে দুবার বিদেশ গিয়েছেন। সেখানে গিয়ে তিনি অভিজ্ঞতা নিয়েছেন। এ জন্য বন্দরের অগ্রগতি হয়েছে। এসব অভিজ্ঞতার সফরে বন্দর স্থায়ী কমিটির সদস্যসহ সংশ্লিষ্টদের নিয়ে গেছেন।’

শাজাহান খান বলেন, ‘তিনি সফরে গেলেন মাত্র দুবার। অথচ পত্রিকায় লেখা হলো ১৪ বারের কথা। কোটি কোটি টাকা নয়, তার সফরে মাত্র কয়েক লাখ টাকা খরচ হয়েছে।’ সেই হিসাব আদালতে জমা দেওয়া হয়েছে বলে জানান মন্ত্রী।

সংশ্লিষ্ট পত্রিকার বিরুদ্ধে মামলা চলছে জানিয়ে শাজাহান খান বলেন, ‘উনারা ধানাই ফানাই করছেন। আর সেই সাংবাদিকের চাকরি আছে কি না আমি জানি না। সাংবাদিকের চাকরি না থাকার কথা। এ রকম একটা মিথ্যা নিউজ দিয়ে আমাকে হেয় প্রতিপন্ন করার চেষ্টা করা হয়েছে। সাংবাদিকদের আমার সমালোচনা করার অধিকার ও সুযোগ আছে। অন্যায় করলে অবশ্যই  বলবেন। তবে তা যেন হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য না হয়।’

সম্প্রতি চট্টগ্রাম বন্দরের নিয়োগ পরীক্ষায় অর্ধেকের বেশি মাদারীপুরের লোক উত্তীর্ণ হওয়ার খবরকে মিথ্যা বলেও উড়িয়ে দেন মন্ত্রী।

অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম-১১ আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) এম এ লতিফ, নওগাঁ-৬ আসনের সংসদ সদস্য এম ইস্রাফিল আলম, চট্টগ্রাম বন্দরের চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল খালেদ ইকবাল বক্তব্য দেন।

চট্টগ্রাম বন্দরের নিলাম যোগ্য কন্টেইনার জট কমাতে নির্মিত এ সাউথ কন্টেইনার ইয়ার্ডে তিন হাজার টিইইউস কন্টেইনার রাখা যাবে।