বেনাপোল স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি-রফতানি বন্ধ

../news_img/57380 mmm.jpg

মৃদুভাষণ ডেস্ক ::  বেনাপোল স্থলবন্দর দিয়ে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে দু’দেশের মধ্যে আমদানি-রফতানি বাণিজ্য বন্ধ রয়েছে। অস্ত্রসহ আটক ভারতীয় ট্রাক ছেড়ে দেয়ার দাবিতে এ অচলাবস্থা। ফলে বন্দরের দুই দিকে চালসহ কাঁচা পণ্য বোঝাই ৪ সহস্রাধিক ট্রাক আটকা পড়েছে। এর মধ্যে বাংলাদেশ অংশে প্রায় ৩শ’ এবং ভারতের অংশে রয়েছে অন্তত ৪ হাজার ট্রাক।

আমদানিকৃত পণ্যবোঝাই ভারতীয় ট্রাক আটকের ঘটনার জেরে এ অচলাবস্থা। গত ৯ নভেম্বর রাত সাড়ে ১০টায় বেনাপোল বন্দরের ভারতীয় ট্রাক টার্মিনাল থেকে ট্রাকটি আটক করা হয়। ভারতের ওই ট্রাক (এন-২৩ প- ০৩৭৩) কাগজে মোড়ানো একটি দেশীয় শুটারগান ও দুই রাউন্ড বন্দুকের গুলি বহন করছিল।

কাস্টমস, বন্দর, বিজিবি, পুলিশসহ বিভিন্ন সংস্থার সদস্যদের উপস্থিতিতে ট্রাক থেকে ওই অস্ত্র উদ্ধার করা হয়। তবে ট্রাকটির চালক-হেলপার পালিয়ে যায়। আটক ট্রাক নিঃশর্তভাবে ছেড়ে দেয়ার দাবিতে ভারতীয় ট্রাক শ্রমিকরা অনির্দিষ্টকালের জন্য দু’দেশের মধ্যে আমদানি-রফতানির পণ্য পরিবহন অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ রেখেছে।

ধর্মঘটের কারণে দু’দেশের বন্দর এলাকায় আটকা পড়েছে চাল ও পচনশীল পণ্যসহ কয়েক হাজার পণ্যবোঝাই ট্রাক। ইতিমধ্যে মাছসহ পচনশীল পণ্যের চালানগুলো নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

উল্লেখ্য দেশের সিংহভাগ শিল্প-কলকারখানা ও গার্মেন্ট ইন্ডাস্ট্রিজের কাঁচামাল আমদানি হয় বেনাপোল বন্দর দিয়ে। ভারতীয় পেট্রাপোল সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট স্টাফ ওয়েলফেয়ার অ্যাসোশিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক কার্তিক চক্রবর্তী জানান, আটক ট্রাকটি শর্তহীনভাবে না ছাড়া পর্যন্ত দুই দেশের মধ্যে আমদানি-রফতানি বন্ধ থাকবে।

বেনাপোল বন্দরের ডিরেক্টর আমিনুল ইসলাম জানান, সকাল থেকে দু’দেশের মধ্যে আমদানি-রফতানি বাণিজ্য বন্ধ রয়েছে। তবে বন্দর থেকে মালামাল লোড-আনলোডসহ পণ্য খালাস অব্যাহত আছে।