ফেসবুকে পতাকা উৎসব

../news_img/57735 mmm.jpg

মৃদুভাষণ ডেস্ক ::  এবারের মহান বিজয় দিবসে স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের কাছে ফেসবুকে পতাকা উত্তোলন ব্যাপক সাড়া ফেলে।
 
ক্যাটস আই-এর ফেসবুক পেজ থেকে বিজয় দিবস ২০১৭ উপলক্ষে আপলোড করা হয় জাতীয় স্মৃতিসৌধের একটি ইন্টারঅ্যাক্টিভ ফটো।
 
যেটা স্পর্শ করে ১-২ সেকেন্ড ধরে রাখলেই আমাদের জাতীয় পতাকা স্মৃতিসৌধের পতাকা স্ট্যান্ড বেয়ে উঠে যায় উপরে।
 
দিনভর ফেসবুকজুড়ে ঝড় বয়ে যায় এই পতাকা উত্তোলন নিয়ে। নতুন ধরনের এই ডিজিটাল পতাকা উত্তোলন করেছেন লাখো ফেসবুক ব্যবহারকারী।
 
বিজ্ঞাপন নির্মাতা আদনান আল রাজিব, চিরকুট ব্যান্ডের গায়িকা সুমি, নায়িকা ও উপস্থাপিকা নাবিলা ছাড়াও হাজার হাজার ফেসবুক ব্যবহারকারী এই পতাকার পোস্টটি শেয়ার দিয়ে ও কমেন্ট করে এই আইডিয়ার প্রশংসা করেন।
 
ফেসবুকে এই ইন্টারঅ্যাক্টিভ পতাকা উত্তোলনের আইডিয়ার মূল ভাবনাটি ছিল ক্যাটস আই-এর বিজ্ঞাপনী সংস্থা স্যাটারডে অ্যাডভারটাইজিংয়ের।
 
বিজ্ঞাপনী সংস্থাটির ক্রিয়েটিভ ডিরেক্টর মাহবুব আলম মাহি এই কাজটি প্রসঙ্গে যুগান্তরকে বলেন, বিজ্ঞাপনের কাজে আমরা সবসময়ই চেষ্টা করি নতুন কোনো আইডিয়ার মাধ্যমে ব্র্যান্ড বা পণ্যের বক্তব্য সবার কাছে পৌঁছে দিতে। যাতে সবাই ওই ব্র্যান্ড বা পণ্যটিকে মনে রাখে। আর বিজয় দিবসের সঙ্গে যেহেতু দেশের ১৬ কোটি মানুষের আবেগ জড়িয়ে আছে। সেহেতু এই দিনে কোনো পণ্যের বিক্রির বক্তব্য না দিয়ে মানুষের দেশের প্রতি ভালোবাসা প্রকাশের সুযোগ করে দেয়াই উচিত।
 
তিনি বলেন, এই ভাবনা থেকেই আমাদের নতুন কিছু করার চেষ্টা শুরু। তখনই ফেসবুকের এই নতুন ইন্টারেক্টিভ ফটোর আইডিয়া আমাদের মাথায় আসে। তারপর একটানা ৩/৪ দিন কাজ করে এই ইন্টারেক্টিভ ফটো তৈরি করা হয়।
 
এই ক্যাম্পেইনের সফলতার কৃতিত্বের অংশীদার ক্যাটস আইও। ক্যাটস আই আমাদের সবসময়ই নতুন কিছু করার জন্য উৎসাহ দিয়ে থাকেন। ক্যাটস আই নিয়ে আরও নতুন কিছু আইডিয়ার কাজ চলছে। আশা করি সেগুলো সবার ভালো লাগবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।
 
স্যাটারডে অ্যাডভারটাইজিংয়ের এমন সাফল্য এবারই প্রথম নয়। গত বছরও বিজয় দিবস উপলক্ষে তারা তৈরি করেছিল একটি ফেসবুক প্রোফাইল ফ্রেম-“এ প্রাণ আমার বাংলাদেশ”। শিল্পী সুস্মিতা আনিসের গানের প্রচারণার অংশ হিসেবে তৈরি করা এই ক্যাম্পেইনটিও ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছিল। তখন মাত্র ৩ দিনে প্রায় ২৮ লাখ ফেসবুক ব্যবহারকারী “এ প্রাণ আমার বাংলাদেশ” এই প্রোফাইল ফ্রেমটি ব্যবহার করেছিলেন।