ইসরাইলি সেনাবাহিনীতে যোগ দিতে অস্বীকৃতি ৬৩ শিক্ষার্থীর

../news_img/57967 mmm.jpg

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: ফিলিস্তিনিদের ওপর বর্বরতার সীমা বহু আগেই ছাড়িয়েছে ইসরাইল। পাখির মতো মানুষকে গুলি করে মারতে সে দেশের সেনা ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের হাত কাপে না।

 

 

এই বর্বরতার প্রতিবাদ ও মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনায় সেনাবাহিনীতে যোগ দিতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে দেশটির বিভিন্ন অঞ্চলের ৬৩ কিশোর।

 

ইয়েদিওথ আহরোনথের বরাত দিয়ে এমনটিই জানিয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের জনপ্রিয় সংবাদমাধ্যম মিডল ইস্ট মনিটর।

 

দেশটির প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু, প্রতিরক্ষামন্ত্রী অ্যাভিগদর লিবারম্যান, শিক্ষামন্ত্রী নাফতালি বেনেট এবং দেশটির সেনাবাহিনীর প্রধান গ্যারি ইজেনকোটকে লেখা এক চিঠিতে সেনাবাহিনীতে যোগদানের অস্বীকৃতি জানায় টুয়েলভথ ক্লাসে অধ্যয়নরত ওই কিশোররা। চিঠিতে তারা জানায়, শান্তি রক্ষায় তাদের যে প্রতিজ্ঞা, সেটি পালনেই এ সিদ্ধান্ত।

 

তাদের মতে, ইসরাইলি সেনারা বর্ণবাদী সরকারের অন্যায় সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করছে। এ কারণে মানবাধিকার লঙ্ঘিত হচ্ছে। একই ভূমিতে বসবাস করেও ইসরাইলিরা আইনের সুবিধা নিচ্ছেন আর ফিলিস্তিনিরা নিপীড়িত হচ্ছেন।

 

ওই শিক্ষার্থীরা ইসরাইলের নিরাপত্তা দেয়াল নিয়েও বিদ্রূপ করেছেন। তারা বলছেন, ফিলিস্তিনি ভূমিতে অবৈধ দখল বাস্তবায়নের পাশাপাশি সেখানে দেয়াল দিয়ে ছিটমহলের মতো অবস্থা করা হচ্ছে। এতে ফিলিস্তিনিদের স্বাভাবিক জীবন ব্যাহত হচ্ছে।

 

সম্প্রতি জেরুজালেমে ইসরাইলি রাজধানী স্থাপনের পাঁয়তারা এবং তা ঘিরে ফিলিস্তিনিদের ইন্তিফাদা আন্দোলনে মধ্যপ্রাচ্য নতুন করে উত্তপ্ত হয়ে উঠছে। এখন পর্যন্ত বেশ কয়েক ফিলিস্তিনি সংঘর্ষে নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন দুই সহস্রাধিক।