মিসরে গির্জায় হামলায় নিহত ১২

../news_img/57978 mmm.jpg

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: মিসরে পৃথক দুই হামলায় অন্তত ১২ জন নিহত হয়েছেন। শুক্রবার এ হামলা দুটি চালানো হয়। প্রথম হামলায় কয়েকজন বন্দুকধারী রাজধানী কায়রোর দক্ষিণে হেলোয়ান এলাকায় একটি কপটিক গির্জা উড়িয়ে দেয়ার চেষ্টা করে। এতে ১০ জন নিহত হন। এর ১ ঘণ্টা পর একই এলাকার কপটিক খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বী এক ব্যক্তির দোকানে হামলা চালালে আরও দু’জন নিহত হন।

 

 

বিবিসি জানায়, হেলোয়ান এলাকার মার মিনা গির্জায় প্রবেশের চেষ্টা করে দুই বন্দুকধারী। এ সময় তাদের সন্দেহজনক আচরণ দেখে বাধা দেয় ওই এলাকায় টহলরত পুলিশ। তখন গুলি চালায় বন্দুকধারীরা।

 

এ সময় নিহত হন ১০ জন। এদের মধ্যে অন্তত ৩ জন পুলিশ রয়েছেন। অন্যদিকে পুলিশের গুলিতে এক হামলাকারীও নিহত হয়। হামলাকারীর কাছে একটি বিস্ফোরক বেল্ট পাওয়া গেছে। এতে ওই বন্দুকধারীর আরও হামলার পরিকল্পনা ছিল বলে মনে করা হচ্ছে।

 

এখন পর্যন্ত কোনো সন্ত্রাসী সংগঠন এ হামলার দায় স্বীকার করেনি। এ হামলাকে দেশটির সংকটের একটি অংশ হিসেবে দেখছেন বিশ্লেষকরা। গত ৩ বছরে দেশটিতে দুই হাজারেরও বেশি হামলার ঘটনা ঘটেছে। ২৪ অক্টোবর মিসরের সিনাই উপদ্বীপের একটি মসজিদে হামলা চালিয়ে ২৩৫ মুসল্লিকে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা। বিশ্লেষকরা বলছেন, দুটি কারণে দেশটি বারবার নিরাপত্তা হুমকিতে পড়ছে।

 

২০১৩ সালের পর থেকে দেশটিতে বিরোধী দলগুলো দলনের ফলে বিরোধীরা সন্ত্রাসবাদের দিকে ঝুঁকছে। এতে সন্ত্রাসী সংগঠনগুলো আরও তৎপর হয়ে উঠছে বলেও মত দেন তারা। দোহা ইন্সটিটিউটের নিরাপত্তা অধ্যয়নের অতিথি শিক্ষক ওমর আসওয়ার আলজাজিরাকে বলেন, এ হামলা মিসরে চলমান সংকটের অংশ।

 

তিনি আরও বলেন, এ ধরনের হামলার পরিমাণ বেড়েই চলছে।