অবৈধ ‘বাংলাদেশি’ ধরতে আসামে হাই এলার্ট

../news_img/58017 mmm.jpg

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: বছরের শেষদিনে ভারতের আসামে অবৈধভাবে বসবাসকারী বাংলাদেশিদের শনাক্তে অভিযান শুরু হয়েছে। এর আগে রাজ্যজুড়ে কড়া নিরাপত্তা নেয়া হয়। সরকারের ঘোষণা অনুযায়ী রোববার মধ্যরাত থেকে রাজ্যে থাকার অধিকার হারাচ্ছেন অবৈধ বাংলাদেশিরা। খবর জি নিউজের
 

প্রতিবেদনে বলা হয়, অবৈধদের তালিকা প্রকাশের পর বাংলাদেশ সীমান্ত সংলগ্ন এলাকায় সহিংসতা ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছে ভারতের গোয়েন্দা সংস্থা। এ কারণে প্রচুর সংখ্যক নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা দায়িত্বে রয়েছেন। বর্তমানে থাকা ২৫০ কোম্পানি আধা সামরিক বাহিনীর সদস্যরা থাকা সত্ত্বেও আরও ২২০ কোম্পানি পাঠিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় মোতয়েন রয়েছেন প্রায় ৪৫ হাজার জওয়ান।

প্রতিবেদনে বলা হয়, আসামে দীর্ঘ কয়েক দশক ধরে মাথাব্যাথার কারণ হয়ে উঠেছে অবৈধ বাংলাদেশিরা। সে রাজ্যে প্রথমবার সরকার গড়েছে বিজেপি। ভোটের প্রচারে নরেন্দ্র মোদি বেআইনিভাবে বসবাসকারী বাংলাদেশিদের তাড়িয়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতিও দিয়েছিলেন।

ফলে ১৯৫১ সালের পর প্রথমবার অবৈধ নাগরিকদের তালিকা প্রকাশ করবে ন্যাশনাল রেজিস্টার অব সিটিজেন।

সূত্রের খবর, প্রথম তালিকায় কারও নাম না থাকলে যে তিনি বৈধ বলে গণ্য হবেন তেমনটা না। কেননা পরের তালিকায় তার নাম থাকতে পারে।

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, সব নথি পরীক্ষা করেই তালিকা তৈরি করা হচ্ছে। ধর্ম বা জাতপাতের বিভেদ করা হবে না। চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশের পর কারও অভিযোগ থাকলে, তা খতিয়ে দেখা হবে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, এবারের অভিযানে ১৯৭১ সালের পর অবৈধভাবে আসা বাংলাদেশিদের ফেরত পাঠানো হবে। তার আগে কেউ এলে বৈধ নাগরিক হিসেবে গণ্য হবেন।