নিজের স্থান যাচাই করতে এসেছি: আতিকুল ইসলাম

../news_img/58148 mmm.jpg

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) নির্বাচনে আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য মেয়র পদপ্রার্থী মো. আতিকুল ইসলাম বলেছেন, ‘প্রত্যাশার চেয়ে অনেক বেশি সাড়া পাচ্ছি। সবাই আমার সঙ্গে কাজ করছেন। আপামর জনতা নির্বাচনের একটা ফুর্তি, আমেজ বা উৎসব পাচ্ছে। আমরা ঢাকাকে নতুন রূপে দেখতে চাই। আধুনিক রূপে ঢাকাকে দেখতে চাই। স্বতঃস্ফূর্তভাবে সবাই এগিয়ে আসছে।’

আজ সোমবার দুপুরে নগরের ২৩ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিল কার্যালয়ে জনসংযোগ শেষে এলাকাবাসীর সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় আতিকুল ইসলাম এসব কথা বলেন। তালতলা সোসাইটি খিলগাঁও এই আলোচনার আয়োজন করে।

ডিএনসিসি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে মনোনয়ন প্রসঙ্গে মো. আতিকুল ইসলাম বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, মতবিনিময় করতে। আমি সেই মতবিনিময় করে যাচ্ছি। আশা করি, এভাবে মতবিনিময় করতে পারলে যদি আওয়ামী লীগ মনোনয়ন দেয়, ইনশা আল্লাহ এটা আমার জন্য অনেক সহজ হয়ে যাবে।’

আতিকুল আরও বলেন, ‘গত কয়েক দিন যাবৎ আমি মতবিনিময় করছি। আমি নিজের স্থান যাচাই করতে এসেছি, আমার অবস্থান কী জানতে। ধন্যবাদ জানাই ওয়ার্ড কমিশনারকে। সভায় অনেক মুক্তিযোদ্ধা এসেছেন। তাঁদের ধন্যবাদ। নতুন ভোটার, শিক্ষক, সোসাইটির লোকজন এসেছেন। এটি একটি উৎসবে পরিণত হয়েছে। আমি মনে করি, এতে আরও উৎসাহ পাব।’

প্রয়াত ডিএনসিসি মেয়র আনিসুল হক সম্পর্কে আতিকুল ইসলাম বলেন, ‘আনিস ভাই আর আমি একসঙ্গে কাজ করেছি বিজিএমইতে। আমার বিশ্বাস, আনিস ভাই যেখান থেকে কাজ অসমাপ্ত রেখে গিয়েছেন, আমি সেখান থেকে আমার কাজ শুরু করতে চাই। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সহযোগিতায় অবশ্যই উনার অসমাপ্ত কাজকে সমাপ্ত করার দৃঢ়প্রত্যয় আমি ব্যক্ত করছি।’

মো. আতিকুল ইসলাম হচ্ছেন তৈরি পোশাক প্রস্তুতকারক ও রপ্তানিকারক সমিতির (বিজিএমইএ) সাবেক সভাপতি। জনপ্রতিনিধিদের জন্য রাজনীতিতে চ্যালেঞ্জ কী কী—এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘আমার ফ্যাক্টরিতে ১৯ হাজার শ্রমিক আছেন। তাঁদের দেখাশোনার দায়িত্ব আমার। কখন বেতন দিতে হবে, কেউ অসুস্থ হলে, উদ্যোক্তা হিসেবে আমাকে দায়িত্ব নিতে হয়, সেবা দিতে হয়। তেমনি যাঁরা রাজনীতি করেন, তাঁদের দায়িত্বও সেবা দেওয়া। উদ্যোক্তা ও রাজনীতিবিদের দায়িত্ব কিন্তু একই। আমি মনে করি, এই ১৯ হাজার শ্রমিকের যেমন সমস্যা আমি ঠিক করেছি, তেমনি ডিএনসিসিতে যত ধরনের সমস্যা থাকুক না কেন, সব জনগণকে নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে দেখিয়ে দিতে চাই, অবশ্যই সবাই কাজ করতে পারলে যত সমস্যা থাকুক না কেন, আমরা সমাধান করতে পারব।’

জনসংযোগের পর কাউন্সিলরের কার্যালয়ে সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থী আতিকুল ইসলাম এলাকাবাসীর সঙ্গে মতবিনিময় করেন।

সভায় ২৩ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মোস্তাক আহমেদ, তালতলা সোসাইটির সভাপতি মো. ইউসুফ, রামপুরা থানা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার আলী রেজা লস্কর, রামপুরা থানা ছাত্রলীগের সভাপতি এস এম মাসুদ রানা প্রমুখ বক্তব্য দেন।