অভিভাবককে বেঁধে লাথি : মূল অভিযুক্ত এনামকে ছাড়াই মামলা!

../news_img/58167 mmm.jpg

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: কক্সবাজারের খরুলিয়ায় অভিভাবক আয়াত উল্লাহর বুকের ওপর দাঁড়িয়ে হাত-পা বেঁধে লাথি মেরে নির্যাতনের ঘটনায় মূল অভিযুক্ত এনামুল হককে ছাড়াই মামলা হয়েছে।
 

নির্যাতনের শিকার আয়াতের অভিযোগ, প্রাণনাশের হুমকির মুখে নির্যাতনকারী কোটিপতি এনামকে আসামি করা সম্ভব হয়নি।

বিভিন্ন প্রভাবশালী মহল থেকে হুমকি দিয়ে বলা হয়েছে, এনামকে আসামি করা হলে নির্যাতিত আয়াতকেই উল্টো ছয় মামলায় ফাঁসিয়ে দেয়া হবে।এ কারণে প্রভাবশালী নির্যাতক এনামুল হককে আসামি না করেই মামলা করেছেন বলে মঙ্গলবার যুগান্তরকে এ কথা জানান আয়াত।

তিনি বলেন, খরুলিয়া কেজি অ্যান্ড প্রি-ক্যাডেট স্কুলের প্রধান শিক্ষক বোরহান উদ্দিন, খরুলিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জহিরুল হক ও আরও কয়েকজন শিক্ষক মিলে বহিরাগতদের নিয়ে তার ওপর অমানসিক নির্যাতন চালায়।

একপর্যায়ে শিক্ষক জহিরুল ইসলাম স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি এনামুল হককে ফোন করে ডেকে ঘটনাস্থলে আনে। এই সময় এনাম ঘটনার কোনো কিছু না শুনে না জেনে তাকে লাথি দিয়ে মাঠিতে ফেলে দেয়। একপর্যায়ে বুকের ওপর দাঁড়িয়ে রশি দিয়ে হাত-পা বাঁধে এবং মধ্যযুগীয় কায়দার বর্বর নির্যাতন চালায়।

এদিকে ঘটনার শুরু থেকে এনামের অমানসিক নির্যাতন নিয়ে পুরো জেলাজুড়ে সমালোচনার ঝড় ওঠে এবং এনামকে মামলার প্রধান আসমি হওয়ার খবর জনসমক্ষে ও বিভিন্ন মিডিয়ায় আসে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আসামির তালিকা থেকে বাদ পড়েন এনাম।

এদিকে অভিভাবককে নির্যাতনের সময় ধারণ করা ভিডিওতে দেখা গেছে, এনামুল হক লাঠি হাতে নিয়ে সবুজ গেঞ্জি পরে আয়াতকে নির্যাতন চালাচ্ছে।

এই ভিডিওটি ছাড়াও গণমাধ্যমকর্মীদের আরেকটি ভিডিও ক্লিপ রয়েছে, যাতে আয়াত বলেছেন- এনাম তাকে নির্যাতন করেছেন। কিন্তু এ দুই প্রমাণ থাকার পরও এনামের বিরুদ্ধে মামলা হয়নি।

এনাম বলেন, আমার হাতে লাঠি থাকার কথা সঠিক। তবে ওই লাঠি দিয়ে আমজনতাকে প্রতিহত করেছি। আয়াতকে নির্যাতনের বিষয় সত্য নয় বলে দাবি করেন এনাম।

এদিকে কক্সবাজার সদর মডেল থানার ওসি রঞ্জিত কুমার বড়ুয়া জানান, এনামুল হক এজাহারভুক্ত আসামি না হলেও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রচারিত নির্যাতনের ভিডিওতে এনামের উপস্থিতি ও জড়িত থাকার ব্যাপারে প্রমাণ মিলেছে।

পাশাপাশি সাংবাদিকদের ধারণকৃত ভিডিওতেও নির্যাতিত অভিভাবকের বক্তব্যেও এনামের সংশ্লিষ্টতার প্রমাণ আছে। সুতারাং দুই ভিডিও সংগ্রহ করে তদন্তপূর্বক এনামের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান ওসি।
681Shares