ওসমানীনগরে প্রবাসীর বাড়িতে দুর্ধর্ষ ডাকাতি ডাকাতের গুলিতে ২জন আহত

../news_img/58186 mmm.jpg

ওসমানীনগর (সিলেট) প্রতিনিধি :: সিলেটের ওসমানীনগরে সৈয়দ মিজান আলী নামের এক যুক্তরাজ্য প্রবাসীর বাড়িতে দুর্ধর্ষ ডাকাতি সংগঠিত হয়েছে। গত মঙ্গলবার দিনগত রাত দেড়টার দিকে উপজেলার উছমান ইউপির উছমানপুর গ্রামে ডাকাতির ঘটনাটি ঘটে। ডাকাতদের বাধা দিতে গিয়ে ডাকাতদের বন্দুকের ছোড়া গুলিবিদ্ধ হয়ে দুইজন আহত হয়েছেন। আহতরা হলেন, উপজেলার উছমানপুর গ্রামের ছুরত আলীর ছেলে সায়েক আহমদ(৩৫) ও সুনামগঞ্জের মফিজ আহমদের ছেলে আরিফ আহমদ(২৪)। আহতদের ঘটনার পর রাতে তাজপুর কদমতলা প্যারাডাইজ ক্লিনিকে ভর্তি করা হলে বুধবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে উন্নত চিকিৎসার জন্য সিলেট ওসমানীনগর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

প্রবাসী সৈয়দ নূরুল ইসলাম শাহ জাহান জানান, গত মঙ্গলবার রাত প্রায় দেড়টার দিকে ১০/১২ জনের মুখোশ পড়া একদল ডাকাত তাদের সবত ঘরের কলাপসেবল গেইট ও দরজার ভেঙ্গে ঘরের ভেতর প্রবেশ করে। ডাকাতরা গৃহকর্তা শাহজাহান ও তার ছোট ভাই সৈয়দ মারজান সহ ঘরের সবাইকে হাত বেঁধে আগ্নেয়াস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ঘরে থাকা ২০ ভরি স্বর্ণালংকার, নগদ ৩০ হাজার টাকা ও ১টি মোবাইল ফোন লুট করে পালিয়ে যায়।

ডাকাতাতির বিষয়টি টের পেয়ে প্রবাসীর বাড়ির কেয়ারটেকার নেত্রকোন জেলার হোসেন আলী খানের ছেলে রাজ্জাক খান ঘরের বাহিরে বেল হলে ডাকাতরা অস্ত্রের মুখে তাকে জিম্মি করে রাখে। বিষয়টি কেয়ারটেকার রাজ্জাকের মেয়ে পাশের বাড়ির আরিফ ও সায়েককে মোবাইল ফোনে জানালে তাৎক্ষনিক ভাবে সায়েক এবং আরিফ সৈয়দ শাহজাহানের বাড়ির আঙ্গিনায় গেলে ডাকাতরা তাদের লক্ষ করে দুই রাউন্ড গুলি ছুড়তে ছুড়তে পালিয়ে যায়। এ সময় ডাকাতদের ছোড়া গুলিতে বিদ্ধ হয়ে সায়েক ও আরিফ আহত হন। ঘটনার খবর শুনে রাতেই ওসমানীনগর থানার ওসি মোহাম্মদদ সহিদ উল্যা ডাকাতি স্থল পরিদর্শন করেন। বুধবার সকালে ওসমানীনগর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাইফুল ইসলামও ঘটনা স্থল পরিদর্শন করেন।

গুলিবিদ্ধ সায়েক আহমদ বলেন, আমরা ভেবেছিলাম শাহজাহানদের বাড়িতে চোর ঢুকেছে। সেটা ভেবে তাদের বাড়িতে গিয়ে দেখি এরা ১০/১২ জনের মুখোশ পড়া ডাকাত। ডাকাতদের সবার গাড়ে একই ধরণের পোষাক পড়া ও হাতে বন্দুক। আমাদের দেখেই ডাকাতরা পর পর দুই রাউন্ড গুলি করে। তাদের গুলি আমার এবং আরিফের পায়ের একাধিক স্থানে বিদ্ধ হয়।

প্যারাডইজ ক্লিনিকের স্বত্ত্বাধিকারী ডা. শামসুল ইসলাম বলেন, রাতে পুলিশ সায়েক ও আরিফ নামের দুজনকে অঅমাদের ক্লিনিকে নিয়ে আসে। তাদের শরীরে একাধিক গুলি থাকায় দুজনকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়ে দিয়েছি।

ওসমানীনগর থানার ওসি মোহাম্মদ সহিদ উল্যা প্রবাসির বাড়িতে ডাকাতির সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, লুট হওয়া মালামাল উদ্ধার ও ডাকাতদের ধরতে অভিযান চলছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে।