বলিউডে উপেক্ষিত প্রভাকর কোস্টারিকায় সুপারস্টার

../news_img/58207 mmm.JPG

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: একদা বলিউড হিরো হওয়ার স্বপ্ন নিয়ে অনেক সংগ্রাম করেছেন ভারতের বিহারের ছেলে প্রভাকর শরণ। মূল্য পাননি সেখানে। পরে পাড়ি জমান সুদূর কোস্টারিকায়। সেখানে বলিউড স্টাইলে ছবি বানিয়ে এখন তিনি সুপারস্টার। সিনেমার গল্পের মতোই তার সেই ঘটনা।

প্রভাকরের বেড়ে ওঠা বিহারের মতিহারিতে। ছোটবেলা থেকেই হিন্দি সিনেমার নায়ক হওয়ার স্বপ্ন দেখতেন। খুব অল্প বয়সে তাই মায়ানগরীতে পাড়ি জমিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু দিনের পর দিন অনেক কষ্ট করেও বলিউডে সুবিধা করতে পারেননি। কোনো মূল্যই পাননি। উপেক্ষিত প্রভাকর বাধ্য হয়ে ফিরে আসেন বাড়িতে।

হঠাৎই তার কাছে একদিন অপ্রত্যাশিত সুযোগ আসে কোস্টারিকায় পাড়ি জমানোর। সৌজন্য এক কোস্টারিকান তরুণী। ভালোবাসার টানে আমেরিকা হয়ে চলে যান কোস্টারিকায়। বিয়ে করেন সেই তরুণীকে। কয়েক বছর বাদে তাদের এক কন্যা সন্তানও হয়।

অভিনয়ের নেশা থাকলেও সংসার চালাতে নানা রকম ব্যবসা করেন প্রভাকর। কিন্তু একটিতেও সফল হননি তিনি। এর মাঝে দাম্পত্য জীবনেও দেখা দেয় সমস্যা। একমাত্র মেয়েকে নিয়ে তার স্ত্রী আলাদা থাকতে শুরু করেন। এ অবস্থায় তিনি আবারও ভারতে ফিরে আসেন।

কিছুদিন থেকে আবারও কোস্টারিকায় ফিরে যাওয়ার পরিকল্পনা করেন। ২০১৪ সালে তিনি ঠিক করেন বলিউড স্টাইলে কোস্টারিকায় সিনেমা তৈরি করবেন। ভাগ্যক্রমে তার সঙ্গে পরিচয় হয় টেরেসা রদ্রিগেজ কেরদাসের। প্রভাকরের জীবনে তিনি মেন্টরের মতো কাজ করেন। প্রভাকরকে তিনি ফান্ড গঠন করতে সাহায্য করেন। বছর দুয়েকের মধ্যে প্রায় ১৫ লাখ মার্কিন ডলার চলে আসে প্রভাকরের হাতে। সেই টাকা দিয়েই শুরু হয় সিনেমা তৈরির কাজ।

বছর খানেকের মধ্যে শেষ হয় সিনেমার শুটিং। ২০১৭ সালের ফ্রেব্রুয়ারিতে মুক্তি পায় তার নির্মিত ছবি Enredados: La Confussion বা Enlangled: The Confussion নামের ছবি। কোস্টারিকান টেলিভিশন সঞ্চালিকা ন্যান্সি ডয়েলস এই ছবিতে প্রভাকরের নায়িকার ভূমিকায় অভিনয় করেছেন। টিপিক্যাল বলিউড মশলা ছবির স্টাইলে নাচ-গান ও অ্যাকশনে ভরপুর এই ছবি বিপুল জনপ্রিয়তা পায় কোস্টারিকায়।

গত বছর কোস্টারিকার অন্যতম বড় হিট সিনেমা ছিল প্রভাকরের ছবিটি। আগামী মার্চ ও এপ্রিলে লাতিন আমেরিকার অন্যান্য দেশেও মুক্তি পাবে এটি। শুধু তাই নয়, ইংরেজি, হিন্দী ও ভোজপুরি ভাষাতে ডাবিং করে ভারতেও একই সময়ে মুক্তি পাবে ছবিটি। হিন্দীতে ছবিটির নাম দেয়া হয়েছে, ‘এক চোর, দো মস্তিখোর’। সূত্র: এই সময়