রেলের টিকিটে যাত্রীর নাম লিখতে হবে!

../news_img/58241 mmm.jpg

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: রেলপথ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটি ট্রেনের নিরাপত্তা ও দুর্ঘটনা প্রতিরোধে অন্যান্য পরিবহনের মতো ট্রেনের টিকিটে যাত্রীর নাম লিখতে এবং টিকিটে লিখিত নামের যাত্রী ব্যতীত অন্য কোন যাত্রী যেন ট্রেনে উঠতে না পারে সেজন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করেছে।
 

বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত কমিটির বৈঠকে এ সুপারিশ করা হয়। বৈঠকে পণ্য পরিবহনের ক্ষেত্রে ফ্রেড ট্রেন, লোকোমোটিভ, যাত্রীবাহী কোচ, কাভার্ড ভ্যানওবিভিন্ন কারখানায় যাত্রীবাহী ট্রেন মেরামত এবং লোকোশ্যাড ও ক্যারেজশ্যাড মেরামত বিষয়েও আলোচনা হয়।

কমিটি রেলের যাত্রীসেবার মান উন্নয়নে ভারতের ট্রেনগুলোতে যে পদ্ধতিতে খাবার পরিবেশন হয় সেই পদ্ধতিতে বাংলাদেশের ট্রেনগুলোতে খাবার পরিবেশন করারও তাগিদ দিয়েছে।

বৈঠকে জানানো হয়, পণ্য পরিবহনের জন্য বাংলাদেশ রেলওয়ে কন্টেইনার এক্সপেস, ট্যাংক স্পেশাল, ফার্টিলাইজার স্পেশাল, ফুড গ্রেইন ও অন্যান্য গুডস ট্রেন পরিচালনা করে থাকে। এছাড়াও ৪টি ইন্টারচেঞ্জ রুটে ভারত থেকে আমদানিকৃত পণ্য রেলযোগে বিভিন্ন গন্তব্যে পরিবাহিত হয়। লোকাল, এক্সপ্রেস ও মেইল ট্রেনের লাগেজ ভ্যানে পার্সেল পণ্য পরিবাহিত হয়।

বৈঠকে জানানো হয়, বাংলাদেশ রেলওয়েতে বর্তমানে মোট ২৭৩টি লোকোমোটিভ এবং ৬,৪৫৯টি ওয়াগন রয়েছে যার মধ্যে মিটারগেজ লোকেমোটিভ ১৭৯টি ও ব্রডগেজ লোকোমোটিভ ৯৪টি এবং মিটারগেজ ওয়াগন ৪৯২৫টি এবং ব্রডগেজ ওয়াগন ১৫৩৪টি।

কমিটির সভাপতি এবিএম ফজলে করিম চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে কমিটির সদস্য রেলপথ মন্ত্রী মো. মুজিবুল হক, মো. মোসলেম উদ্দীন, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, ইয়াসিন আলী এবং ফাতেমা জোহরা রানী বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন। রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব, বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালসহ মন্ত্রণালয় এবং জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এসময় উপস্থিত ছিলেন।