হাসপাতালের এমআরআই যন্ত্রে পিষ্ট হয়ে যুবকের মৃত্যু

../news_img/58340 mmm.jpg

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: এক আত্মীয়ের এমআরআই করার প্রস্তুতি চলছিল। এমন সময় অক্সিজেন সিলিন্ডার নিয়ে সেই ঘরে ঢুকেছিলেন ৩২ বছরের যুবক রাজেশ মারু। ঘরে ঢোকামাত্রই তাকে টেনে নেয় এমআরআই মেশিন। দু'মিনিটের মধ্যেই মেশিনে পিষ্ট হয়ে মৃত্যু হয়েছে রাজেশের। শনিবার সন্ধ্যায় ঘটনাটি ঘটেছে মধ্য মুম্বাইয়ের একটি সরকারি হাসপাতালে।
 

এমআরআই মেশিনে রাজেশকে টেনে নেয়ার সঙ্গে সঙ্গে তার চিৎকারে ছুটে আসেন হাসপাতালের কর্মী ও নিরাপত্তারক্ষীরা। মেশিন বন্ধ করে বের করে তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় বের করা হয়।কিন্তু ততক্ষণে মৃত্যু হয় ওই তার। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।

পুলিশ জানিয়েছে, এক আত্মীয়কে এমআরআই করাতে নিয়ে গিয়েছিলেন রাজেশ। তার পরিবারের দাবি, শ্বাসকষ্ট হওয়ায় ওই আত্মীয়ের জন্য অক্সিজেন সিলিন্ডার আনতে বলা হয়। হাসপাতালের এক ওয়ার্ডবয় ওই সিলিন্ডার আনতে বলে। সিলিন্ডার নিয়ে এমআরআই রুমে ঢুকতে যান রাজেশ। তখনই ঘটে দুর্ঘটনা।

শুধু অক্সিজেন সিলিন্ডার নয়, এমআরআই রুমে যে কোনও ধাতববস্তু নিয়ে ঢোকার ক্ষেত্রেই নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। এমআরআই মেশিনে শক্তিশালী চুম্বক থাকার কারণেই এই নির্দেশ। তারপরও কীভাবে রাজেশকে ওই ঘরে অক্সিজেন সিলিন্ডার নিয়ে যাওয়ার কথা বলা হলো, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।

পাশাপাশি, হাসপাতালের নিরাপত্তা নিয়েও প্রশ্ন উঠছে। এমআরআই রুমের বাইরে কোনও নিরাপত্তারক্ষী বা হাসপাতালের কর্মী ছিলেন না। আর সে জন্য সিলিন্ডার নিয়ে ঘরে ঢোকার সময় রাজেশকে কেউ আটকায়নি।

এই ঘটনায় হাসপাতালের বিরুদ্ধে গাফিলতির অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে। ডেপুটি স্থানীয় পুলিশ কমিশনার (জোন ৩) বিরেন্দ্র মিশ্র জানিয়েছেন, পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। গাফিলতি প্রমাণিত হলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তার ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় এক ডাক্তার ও এক ওয়ার্ডবয়কে বরখাস্ত করা হয়েছে।