ঢাকা থেকে অপহৃত শিশু ভালুকায় উদ্ধার

../news_img/58343 mmm.jpg

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: ঢাকা থেকে অপহরণের পর সাড়ে তিন বছরের শিশু তাহিয়ান আলমকে ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলা থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। এ সময় অপহরণকারীকেও আটক করে হাইওয়ে পুলিশের এএসআই উজ্জ্বল। শনিবার রাতে তাকে গ্রেফতার করা হয়।
 

হাইওয়ে পুলিশ ও পরিবার সূত্র জানায়, ঢাকার মগবাজার এলাকার ৬৭৫নং বাসা থেকে বাসায় কাজ করত ময়মনসিংহের ধোবাউড়া উপজেলার হরিপুর গ্রামের জসিম উদ্দিনের ছেলে ফারুক মিয়া (২১)। শনিবার বিকালে বাসার মালিক ব্যবসায়ী আশরাফুল আলমের মেয়েকে কৌশলে অপহরণকরে ৫০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে।

আশারফুল আলম বলেন, ফারুকের স্ত্রী রাফিয়া খাতুন আমার বাসায় গত দুই বছর ধরে কাজ করছে। গত দুই মাস আগে রাফিয়ার স্বামী ফারুককে আমার বাসায় কাজের লোক হিসেবে নিয়োগ দেই। শনিবার বিকালে তাহিয়ানকে দুধ খাওয়ানোর জন্য রাফিয়া আমাদের কাছ থেকে ডেকে নিয়ে যায়। দুধ খাওয়ানোর পর ফারুক তাহিয়ানকে ছাদে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে অপহরণ করে।

পরে ফারুক মোবাইলে ব্যবসায়ী আশরাফুল আলমকে বলে- ছিনতাইকারীরা তাদের অপরহণ করেছে। ছিনতাইকারীদের ৫০ লাখ টাকা না দিলে রাত সাড়ে ১২টার মধ্যে তারা তাহিয়ানকে খুন করে ফেলবে।

এ ঘটনায় আশরাফুল আলম বাদী হয়ে রাতে রমনা থানায় ফরুকের নাম উল্লেখ করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন। পুলিশ ফারুকের স্ত্রী রাফিয়াকে আটক করে।

ভরাডোবা হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই আবদুস ছালাম বলেন,আমরা ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে টহল দেয়ার সময় আমাদের ফাঁড়ির কাছে একটি লেগুনার ভেতরে একটি শিশুসহ একজন লোককে দীর্ঘক্ষণ বসে থাকায় সন্দেহ হয়। পরে তাকে ফাঁড়িতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে একপর্যায়ে ফারুক অপহরণের বিষয়টি স্বীকার করে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ঢাকা রমনা থানার এসআই সুদ্বীপ কুমার গোপ ফোনে বলেন,অপহৃত শিশুটি যেহেতু উদ্ধার হয়েছে। তাই গ্রেফতারকৃত ফারুককে রিমান্ড না চেয়ে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।