কুমিল্লায় এজলাসে বিচারককে হত্যাচেষ্টা

../news_img/58397 mmm.jpg

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: কুমিল্লায় নারী ও শিশু আদালতের বিচারক আজিজ আহাম্মেদ ভুইয়াকে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে একই আদালতের পিপি ছিদ্দিকুর রহমানের ছেলে অপু। বৃহস্পতিবার বিকালে জনাকীর্ণ আদালতে ছুরি নিয়ে প্রবেশ করে ওই বিচারককে হত্যার চেষ্টা করা হয়। এ সময় হামলাকারীকে প্রতিহত করতে গিয়ে তার বাবা পিপিসহ তিনজন আহত হয়েছেন।
 

আহত অন্য দু’জন হলেন আদালতের পেশকার ও পিয়ন। পেশকারের চোখে গুরুতর জখম হয়েছে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ এসে অপুকে আটক করে। নারী ও শিশু আদালতের পেশকার মো. গোলাম রসুল বলেন, ওই আদালতের বিচারক আজিজ আহাম্মেদ ভুইয়া বিচারকাজে ব্যস্ত থাকাকালে ধারালো ছুরি নিয়ে আদালতের এজলাসে প্রবেশ করে অপু। চরম উত্তেজিত অপুকে ছুরিসহ ধরতে গেলে পেশকার মো. গোলাম রসুল ও পিয়ন মহিউদ্দিনকে সে আহত করে। এতে ওই পেশকারের চোখ গুরুতর জখম হয়। এ সময় তার বাবা পিপি ছিদ্দিকুর রহমান তাকে ধরতে গেলে তাকেও আহত করে মেঝেতে ফেলে দেয়া হয়। এর পরই সে ছুরি নিয়ে আদালতের বিচারককে হত্যার উদ্দেশ্যে এজলাসের দিকে ছুটে যায়। এ সময় বিচারক খাস কামরায় ঢুকে দরজা বন্ধ করে নিজের প্রাণ রক্ষা করেন।

পেশকার গোলাম রসুল আরও জানান, গত কয়েক মাস আগেও অপু একই কায়দায় ছুরি নিয়ে আদালতে প্রবেশ করেছিল। সে সময় তাকে আপস মীমাংসার মাধ্যমে ছেড়ে দেয়া হয়। পুলিশ জানায়, আটক অপুর মানসিক সমস্যা রয়েছে।

কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি মোহাম্মদ আবু ছালাম মিয়া জানান, প্রাথমিকভাবে আমরা জানতে পেরেছি হামলাকারী অপুর মানসিক সমস্যা রয়েছে। এ বিষয়ে আদালতের পক্ষ থেকে কোনো অভিযোগ না দেয়ায় সন্ধ্যায় ৫৪ ধারায় তাকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।