ব্যাক টু ব্যাক সেঞ্চুরিতে ইতিহাসে মুমিনুল

../news_img/58449 mmm.jpg

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: প্রথম ইনিংসের ব্যাটিংটা দ্বিতীয় ইনিংসেও অনূদিত করলেন মুমিনুল হক। চাপের মুখে তুলে নিলেন লড়াকু সেঞ্চুরি। এখন তিনি ১০০ রানে অপরাজিত আছেন। এ রান করার পথে হাঁকিয়েছেন ৫ চার ও ২ ছক্কা। এটি তার ক্যারিয়ারের ৬ষ্ঠ সেঞ্চুরি।
 

এ নিয়ে অসামান্য কীর্তি গড়লেন মুমিনুল। বাংলাদেশের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে ১ টেস্টে জোড়া সেঞ্চুরি করলেন তিনি।

এ সেঞ্চুরি করার পথে আরেকটি রেকর্ড নিজের করে নিয়েছেন মুমিনুল। ১ টেস্টে দেশের হয়ে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড নিজের করে নিয়েছেন পয়েট অব ডায়নামো।

এর আগে রেকর্ডটি ছিল বাংলাদেশ ড্যাশিং ওপেনার তামিম ইকবালের। ২০১৫ সালে পাকিস্তানের বিপক্ষে খুলনা টেস্টে ২৩১ রান করেছিলেন তিনি। প্রথম ইনিংসে ২৫ রান করেছিলেন দেশসেরা ব্যাটসম্যান। দ্বিতীয় ইনিংসে খেলেছিলেন ২০৬ রানের ঐতিহাসিক ইনিংস। তার দুরন্ত ব্যাটিংয়ে পাকিস্তানের বিপক্ষে টেস্ট বাঁচিয়েছিল টাইগাররা।

শ্রীলংকার বিপক্ষে চলমান টেস্টের প্রথম ইনিংসে ১৭৬ রানের মহাকাব্যিক ইনিংস খেলেন মুমিনুল। দ্বিতীয় ইনিংসে ফিফটি তুলে ছাড়িয়ে যান তামিমকে। সব মিলিয়ে এখন পর্যন্ত এ টেস্টে বাঁহাতি টপ অর্ডারের সংগ্রহ ২৭৬।

৩ উইকেটে ৮১ রান নিয়ে পঞ্চম দিনে ব্যাট করতে নামে বাংলাদেশ। মুমিনুল ১৮ ও লিটন দাস শূন্য রান নিয়ে খেলা শুরু করেন। অনেকটা চাপের মুখে সকালের কঠিন সময়টা কাটিয়ে দেন তারা। এতে লড়াইয়ে ফিরে স্বাগতিকরা।

এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত বাংলাদেশের সংগ্রহ ২৩৯। এতে স্বাগতিকদের লিড দাঁড়িয়েছে ৩৯। মুমিনুল ১০০ ও লিটন ৬৯ রান নিয়ে ব্যাট করছেন। এরই মধ্যে ১৫৮ রানের পার্টনারশিপ গড়েছেন তারা। যা বাংলাদেশের হয়ে চতুর্থ উইকেট জুটিতে সর্বোচ্চ রানের পার্টনারশিপ।