আদালতের ওপর আস্থা না করলে আপিল কেন: কাদের

../news_img/58833 mmm.jpg

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: বিএনপির যদি আদালতের ওপর আস্থাই না থাকে তাহলে বেগম খালেদা জিয়ার সাজার বিরুদ্ধে কেন তারা আপিল করবে, সে প্রশ্ন ‍তুলেছেন ওবায়দুল কাদের।

বৃহস্পতিবার জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসনের পাঁচ বছর, তার ছেলে তারেক রহমান এবং বাকি চার আসামির ১০ বছরের কারাদণ্ড হয়।

বিএনপির অভিযোগ, সরকার আদালতকে প্রভাবিত করে এবং তাদেরকে নিয়েই এই রায় দেয়া হয়েছে। এই রায়ের বিরুদ্ধে রবিবার উচ্চ আদালতে আপিল করা হবে বলেও জানিয়েছেন খালেদা জিয়ার আইনজীবী বিএনপি নেতারা।

সন্ধ্যায় আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে করেন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। এ সময় তিনি আদালত নিয়ে বিএনপি নেতাদের এ ধরনের বক্তব্যের সমালোচনা করে বলেন, ‘আমি অবাক হলাম ফখরুল সাহেব, বিএনপি নেতারা এখনো বলে বেড়াচ্ছেন যে... কিছুটা এমন যে সরকারই এ রায় দিয়েছে। আদালতের উপর তাদের কোন আস্থা নেই। আস্থা যদি না থাকে তাহলে আপিলে যাচ্ছেন কেন?’

খালেদা জিয়ার এই রায় চূড়ান্ত নয় জানিয়ে বিএনপিকে কাদের বলেন, ‘এখনও সুযোগ আছে, এটাই শেষ কথা নয়। এর পরে হাইকোর্ট ডিভিশনে যাবে, তারপরে অ্যাপিলেড ডিভিশনে যাবে এবং এবং এর পর রিভিউয়ের সুযোগ আছে। এখনও তিনটি স্টেজ পার হওয়ার সুযোগ আছে।’

এই রায় নিয়ে বেশি উচ্ছ্বসিত না হতে আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীদেরকেও পরামর্শ দেন দলের সাধারণ সম্পাদক। বলেন, ‘আমাদের নেতা কর্মীদের আমি বলব এ নিয়ে উচ্ছ্বসিত হওয়ার কোন কারণ নেই; বাড়াবাড়ি, লাফালাফি, মাতামাতি কোন প্রয়োজন নেই।’

‘আমরা ঠান্ডা মাথায় সতর্কভাবে, রাজনৈতিকভাবে রাজনৈতিক দল হিসেবে পরিস্থিতি মোকাবেলা করব।’

এই রায়ের বিরুদ্ধে শুক্র এবং শনিবার সারাদেশে বিক্ষোভের ডাক দিয়েছে বিএনপি। এরপর বুঝেশুনে কর্মসূচি দেয়ার কথা জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আমমগীর।

এই কর্মসূচির সমালোচনা করে কাদের বলেন, ‘একদিকে তারা ধৈয ধরার কথা বলছে, শান্তিপ্রিয় প্রতিবাদের কথা বলেছে, অন্যদিকে আজও তারা রায় ঘোষণার দিন রাস্তায় তাণ্ডব ঘটিয়েছে। গাড়ি ভাঙচুর করেছে, অগ্নি সংযোগ করেছে। কার বিরুদ্ধে এই প্রতিবাদ। আগামী কাল আবার দেশব্যাপী বিক্ষোভ। কার বিরুদ্ধে এই বিক্ষোভ? তার পরদিন শনিবার সারাদিন বিক্ষোভ। কার বিরুদ্ধে বিক্ষোভ? আদালতের বিরুদ্ধে এই বিক্ষোভ। এটা নজিরবিহীন ঘটনা।’

অন্য এক প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগ নেতা বলেন, ‘রাজনৈতিকভাবে কোন প্রতিবাদ হলে আমরা রাজনৈতিকভাবে আমরা জবাব দেব, ভায়োলেন্সের আনসার পুলিশ দেবে। তারা যদি ভায়োলেন্স করে তার আনসার কী দিতে হবে উদ্ভুত পরিস্থিতিতে পুলিশই তার জবাব দেবে। আমরা পলিটিক্যাল পার্টি হিসেবে বলব, বেগম জিয়ার মামলার রায় হয়েছে, এই রায়ে আমাদের পরিষ্কার বক্তব্য রায় দিয়েছে আদালত, সরকার না।’

রায় ঘোষণা নিয়ে বিএনপির দূরভিসন্ধি ছিল অভিযোগ করে কাদের বলেন, ‘আইন প্রয়োগকারী সংস্থা ও আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের সতর্ক অবস্থানের কারণে বিএনপির সেই দূরভিসন্ধি সফল হয়নি।’

বিএনপি-জামায়াত সরকারের আমলের আমলের আইনমন্ত্রী মওদুদ আহমেদের বক্তব্যের সমালোচনা করে কাদের বলেন, ‘আদালতের রায়কে তারা সংবিধানবিরোধী বলছে। এই ধৃষ্টতা তারা দেখাচ্ছে। আসলে তারা দেশে শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদের নামে অশান্তি সৃষ্টি করতে চায়।’