ইতালিতে ডাক্তার হলেন বাংলাদেশি সাদিক

../news_img/59876 mrini.jpg

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: ইতালিতে ডাক্তার হয়ে আলোড়ন সৃষ্টি করলেন বাংলাদেশি সাকিব আহম্মেদ। পরিশ্রমই সফলতার চাবিকাঠি, ডাক্তার হয়ে তা প্রমাণ করে দেখালেন তিনি। তার এই সফলতায় বাংলাদেশিদের মাঝে ব্যাপক আলোচনা সৃষ্ঠি হয়েছে। পাশাপাশি দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করল বিদেশের মাটিতে।

প্রায় দীঘ’ ৩৫ বছর বাংলাদেশিদের অভিবাসন ইতালিতে। এরপরও গড়ে ওঠেনি দ্বিতীয় প্রজন্মের কোনো ভাল অবস্থান। ফলে ডা. সাকিব নিজের মেধার গুনে একজন বাংলাদেশি অভিবাসী হিসেবে মানবসেবার মত এরকম একটি পেশায় উত্তীর্ণ হয়ে একটি দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন ইতালিতে।

সাকিব তার সললতার কথা তুলে ধরে বলেন, আজকের অবস্থানে আসার পেছনে বাবা ও মায়ের অবদান আমার কাছে সব চেয়ে বেশি। বিশেষ করে পরিবারের সহযোগিতা থাকার কারনে আজ আমি ডা. সাকিব হতে পেরেছি। এজন্য পরিবারের কাছে সব সময়ের জন্য ঋণী।

সাকিবের জন্ম ১৯৯২ সালে কুমিল্লা জেলার তিতাস থানায়। মাত্র তিন বছর বয়সে পরিবারের সঙ্গে সে ইতালিতে পাড়ি জমায়। ২০১২ সালে স্কুল ও কলেজের পড়াশুনা শেষ করে তরভেরগাতা ইউনিভার্সিটিতে(ইতালিয়ান ভাষায় Tor Vergata Università। medicina এন্ড chirurgia) মেডিসিন ও সার্জারি বিভাগে ভর্তি হন। চলতি বছরে ২০১৮ কৃতিত্বের সাথে তরভেরগাতা ইউনিভার্সিটি থেকে ডাক্তারি পাস করে আনুষ্ঠানিক ভাবে সনদ গ্রহন করেন।

ইউনির্ভাসিটির জেনারেল প্যাথোলজি বিভাগের প্রধান জি প্রফেসর ড. ভিটরিও মঞ্জারী (General Pathology Head of the Department Gi Professor Dr. Vittorio Manzari ) এই কৃতীত্বের জন্য তার উজ্জ্বল ভবিষ্যত কামনা করেন।

রোমের অদূরে ফ্রাসকাটি শহরে বসবাস করেন ডা. সাকিব। তার বাবা বশির আহমেদ একজন ব্যবসায়ী। মাতা জাহানারা আক্তার গৃহিনী। বোন পাপিয়া আক্তার আইন পেশায় রয়েছেন।

সন্তানের ফলাফলে সন্তোষ প্রকাশ করে বশির আহমেদ বলেন, সাকিবের স্বপ্ন পূরণ হয়েছে। এখন প্রত্যাশা ডা: সাকিব বাংলা কমিউনিটিকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। আশা করি এই সাফল্য প্রজন্মের জন্য পথ প্রদর্শক হিসেবে কাজ করবে।