শুধু নামেই নায়িকা

../news_img/59980 mrini.jpg

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: নামের আগে চিত্রনায়িকা বসিয়ে দিলেই কি কখনও নায়িকা হওয়া সম্ভব? অবিশ্বাস্য হলেও এমনটিই হচ্ছে ঢাকাই চিত্রপুরীতে। কোনো ছবি মুক্তি পায়নি। কোথা থেকে আলু-পটোল ব্যবসায়ী ধরে এনে এফডিসিতে নাম নিবন্ধন করে ঢাকঢোল পিটিয়ে মহরত করলেন, তাতেই হয়ে গেলেন নায়িকা।গণমাধ্যমে বিশাল বিশাল ছবি দিয়ে প্রকাশ হল তার নিউজ। নামের আগে বসানো হল চিত্রনায়িকা! অথচ মহরতেই শেষ সে ছবি। কোনোটির আবার শুটিং শুরু হয়; কিন্তু শেষ হয় না। আবার শেষ হলেও প্রেক্ষাগৃহ পর্যন্ত যায় না। এর আগেই হাতে চলে আসে নতুন নতুন প্রযোজক। আবার ঘোষণা হয় নতুন ছবির।আবারও হয় মহরত; কিন্তু ছবি আর হয় না। নায়িকা পরিচয় দিয়ে সদর্পে ঘুরে বেড়ান। ক্রয় করেন নতুন ফ্ল্যাট! হাঁকিয়ে বেড়ান দামি গাড়ি! একজন চিত্রনায়িকা যে সুবিধা পান তার সবকিছুই ভোগ করতে থাকেন। শুধু মুক্তি পায় না ছবি।

একটা সময় ছিল নায়ক বা নায়িকা হওয়ার জন্য কত ত্যাগ, কত পরিশ্রম করতে হতো। সে সময় ফেসবুক ছিল না। তাই তাদের ফলোয়ারও ছিল না; কিন্তু পরিশ্রম ছিল। সঙ্গে ছিল স্বপ্ন আর অদম্য ইচ্ছাশক্তি।

এফডিসির সামনেও অনেকে দিনের পর দিন দাঁড়িয়ে থাকার ইতিহাসও রয়েছে। যারা এখন চলচ্চিত্রের কিংবদন্তি। অথচ এখন নায়িকা হওয়ার আগেই নামের আগে চিত্রনায়িকা শব্দ জুড়ে দেয়া হয়। কেউ কেউ আবার জনপ্রিয় শব্দ বসিয়ে নানা উপাধিতে ভূষিত করেন।

দর্শক চেনা তো দূরের কথা চলচ্চিত্রের মানুষই তাকে চিনেন না। আছে শুধু ফেসবুক ফলোয়ার। শরীর দেখিয়ে, রাতের বেলায় লাইভে এসে, কিংবা নানা কলাকৌশল প্রয়োগ করে অনেককে এ ফলোয়ার বাড়ানোর চেষ্টা করতে দেখা যায়। ফেসবুক ওয়ালে প্রবেশ করলেই দেখা যায় তার নামে নায়িকা উপাধি দিয়ে নিউজের ছড়াছড়ি।

কেউ এক ছবির শুটিং করছেন, যা থমকে রয়েছে। কেউ কয়েকটি ছবির সাইন করে রেখেছেন। শিগগিরই যার শুটিং শুরু হবে। কেউ কেউ আবার শুধু শুটিং করেই যাচ্ছেন। ছবি মুক্তির নামগন্ধও নেই। আবার কারও কারও দু-একটি ছবি মুক্তি পেলেও ফ্লপের তালিকায় নথিভুক্ত হওয়ার কারণে নেই নতুন কোনো ছবি। কিন্তু তবুও তারা নিয়মিতই চিত্রনায়িকা!

চিত্রনায়িকা শব্দটির ওজন অনেক। এটি হুট করে পাওয়া শব্দ নয়। যে নামের আগে লাগিয়ে দেশ-বিদেশ ঘুরে বেড়াবেন। আর জনপ্রিয় শব্দটি তো আরও দূরের বিষয়। জনপ্রিয়তা পেতে সাধনা করতে হয়। লেগে থাকতে হয় বছরের পর বছর।

সংগ্রামের মধ্য দিয়ে যেতে হয় দীর্ঘপথ। হুট করে এসেই জনপ্রিয়তা পাওয়া যায় না। এখন অনেকেই চলচ্চিত্রের নায়িকা হতে এসেছেন। সেসব নবাগতের কর্মকাণ্ড ও তাদের চলন-বলন দেখে সমাজের অনেকেই প্রশ্ন তোলেন। নায়িকা হওয়া কী এতই সহজ! এলাম-দেখলাম আর জয় করলাম, এমনটি? উত্তর- এমনটি নয়।

অথচ দেখা যায়, এখন চলচ্চিত্রে ক্যারিয়ার গড়তে আসা নবাগতদের হাতে ছবি নেই; কিন্তু নিউজ রয়েছে পর্যাপ্ত। ছবি মুক্তি পায়নি অথচ ক্রমাগত নায়িকা পরিচয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন অনেকেই। তাদের নামে হচ্ছে নিউজও।

যে নিউজে হাফডজন ছবির ব্যস্ততার খবরও প্রকাশিত হচ্ছে। এদের অন্যতম হচ্ছে সানাই মাহবুব সুপ্রভা নামের একজন নবাগতা। এখন পর্যন্ত তার কোনো ছবি মুক্তি পায়নি। এমনকি কোনো ছবির শুটিংও শেষ হয়নি। এতে গণমাধ্যমের প্রচারণায় নায়িকা হিসেবে পরিচিতি পেয়ে গেছেন। নির্মাতা গাজী মাহবুবের ঘোষণা দেয়া ‘ভালোবাসা ২৪/৭ ডটকম’ ছবিতে অভিনয় করবেন- এ সুবাদে তার হাত ধরে এ অঙ্গনে যাত্রা।

এফডিসিতে ছবির আড়ম্বরপূর্ণ মহরত হয়েছে; কিন্তু ছবি আর হয় না। ছবি না হলেও সানাই নায়িকা হয়ে গেছেন ঠিকই। কিছুদিন আগে ‘সাহসী যোদ্ধা’ নামের একটি ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হলেও পরে তাকে আর দেখা যায়নি। তার জায়গায় নেয়া হয়েছে অন্য নায়িকা।

তবে বর্তমানে গণমাধ্যমে দেয়া তথ্যমতে এ নায়িকার হাতে এখন নাকি পাঁচটি ছবি। ছবিগুলো কবে শেষ হবে, আর কবে প্রেক্ষাগৃহের মুখ দেখবে তার নিশ্চয়তা দেয়া মুশকিল।

চিত্রনায়িকা পরিচয় পাওয়া আরেক তরুণী হচ্ছেন রাহা তানহা খান। জানা গেছে, নৃত্যশিল্পী হিসেবে ক্যারিয়ারের যাত্রা শুরু তার। মডেল হিসেবে বেশ পরিচিতি পেয়েছেন। কিছুদিন আগে শাকিব খানের নায়িকা হিসেবে কোনো এক ছবিতে অভিনয় করছেন এমন অনেক নিউজও তাকে নিয়ে প্রকাশিত হয়েছে।

যে নিউজের কমেন্টে তিনি বলেছেন, ‘শাকিব খানের সঙ্গে ক্যারিয়ারে প্রথম ছবিতে অভিনয় করছেন এটি শুধু তার নয়, যে কারোর জন্যই সৌভাগ্যের।’ কিন্তু এ সৌভাগ্য আর হয়নি। ছবিতে নেয়া হয়নি তাকে। তাই নায়িকা হওয়াও হয়নি তার।

তবে এটি নিয়ে নিউজে ভালোই কাভারেজ নিয়ে নিয়েছেন। সংবাদকর্মীরাও তার নামের আগে নায়িকা তকমা জুড়ে দিয়েছেন। আর সেটা বেশ উপভোগ করে তার ফায়দা তুলছেন রাহা।

আরেক নবাগতের নাম রোমানা নীড়। এফসিডির অনেক অনুষ্ঠানের নাচের মহড়ায় দেখা যায় তাকে। নিয়মিত যাতায়াতও রয়েছে। দর্শকদের কাছে নায়িকা পরিচয় দেয়ার মতো এখনও পরিচয় তৈরি করতে পারেননি তিনি। ‘দোস্ত দুশমন’ শিরোনামের একটি ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন এবং সেটির মহরতও হয়েছে।

বাকিটা জানা নেই কারও। ছবিটি অদৌ আলোর মুখ দেখবে কিনা এটাও নিশ্চিত হওয়া যায়নি। এ ছাড়া ডিপজলের বাসায় ঘটা করে মহরত হয়েছে ‘ভালোবাসি কতটা বোঝাব কেমনে’ নামে আরও একটি ছবির। এ ছবির শুটিং শুরুর কথা শোনা গেলেও শেষের কথা এখনও অজানা। ফলে দর্শকদের কাছে এখনও নায়িকা হয়ে উঠতে পারেননি রোমানা নীড়। অথচ নায়িকা পরিচয়ে বেশ দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন তিনি।

দিপালী আক্তার তানিয়া এ সময়ের অন্যতম আলোচিত-সমালোচিত এক নবাগতা। ছোট পর্দায় অভিনয়ের মাধ্যমে মিডিয়াতে পথচলা শুরু তার। কাজ করেছেন নাটক, মিউজিক ভিডিও, বিজ্ঞাপনচিত্রে। কিন্তু সেভাবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে পারেননি।

২০১৩ সালে ‘পায়রা’ ছবির মাধ্যমে চলচ্চিত্রে পা রাখেন তিনি। সেই ছবিটি এখনও মুক্তি না পেলেও পরে তার অভিনীত ‘ব্ল্যাক মেইল, ‘বাজে ছেলে : দ্য লোফার’ ও ‘আমি তোমার হতে চাই’ ছবি তিনটি মুক্তি পেয়েছে।

যদিও এ ছবিতেগুলোতে তার চরিত্রের গভীরতা ততটা যুৎসই ছিল না। এরপরও কয়েকটি ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন তিনি। এ ছবিগুলোর ভবিষ্যৎ কী সেটা কেউ জানেন না। অথচ নায়িকা তকমা নিয়ে তিনি বিলাসী জীবনযাপন করছেন।

অন্যদিকে ‘দেমাগ’ নামে একটি ছবি মুক্তি পেয়েছে তানিন সুবাহ। চিত্রপাড়ায় মহরতের নায়িকা হিসেবেই পরিচিতি তার। মুক্তি পাওয়া ছবির সংখ্যা একটি হলেও একের পর এক নতুন ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হয়ে যাচ্ছেন তিনি। কিন্তু ছবিগুলো আর আলোর মুখ দেখবে কিনা সেটি নিয়ে রয়েছে বিস্তর সন্দেহ। এ কাতারে আরও রয়েছেন তানহা মৌমাছি, নিঝুম রুবিনা, মিষ্টি জান্নাত, এমিয়া এমি, মৌমিতা মৌ, মৌ খান, পুষ্পিতা পপিসহ অনেকেই।

যাদের হাতে কোনো ছবি নেই। দু-একটি ছবিতে নিজেরাই প্রযোজক ধরে এনে অভিনয় করেছেন। এরপর আর খবর নেই। নিজের কাছের প্রযোজক ছাড়া ভালো কোনো পেশাদার প্রযোজকের ছবিতে তাদের দেখাই যায় না! তবুও তারা চিত্রনায়িকা!