বড়লেখায় ব্যবসায়ী ছাদ হত্যায় জড়িত যুবক গ্রেফতার

../news_img/map boroleaka.jpg

লিটন শরীফ, বড়লেখা (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি  :: মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলায় ব্যবসায়ী আব্দুল মজিদ ওরফে ছাদ (৬৫) হত্যার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে জুমন ওরফে জুম্মন (২২) নামে এক যুবককে গ্রেফতার করেছে অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। গত সোমবার (৯ এপ্রিল) নেত্রকোনা জেলার মোহনগঞ্জ উপজেলার খিদিরপুর থেকে জুমনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গত বুধবার (১১ জুলাই) জুমন আদালতে হত্যার সাথে জড়িত থাকার বিষয়ে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দিয়েছে।  জুমন মোহনগঞ্জ উপজেলার খিদিরপুরের আবুল কাশেমের ছেলে। জুমনের বাড়ি নেত্রকোনা হলেও পরিবারের সাথে বড়লেখা উপজেলার চান্দগ্রাম এলাকাতেই তিনি বসবাস করতেন।

সিআইডি, নিহতের পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, আব্দুল মজিদের বাড়ি বড়লেখা উপজেলার নিজবাহাদুরপুর ইউনিয়নের উত্তর চান্দগ্রাম-বাদেকিদুর গ্রামে। চান্দগ্রাম বাজারে আব্দুল মজিদের মুদি দোকান ছিল। ২০১৬ সালের ১৪ জুলাই রাতে আব্দুল মজিদ চান্দগ্রাম বাজার থেকে বাড়ির উদ্দেশে রওনা হলেও বাড়ি যাননি। পরদিন ১৫ জুলাই তাঁর পরিবারের পক্ষ থেকে বড়লেখা থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়।

এদিকে ১৮ জুলাই রাতে স্থানীয়ভাবে খবর পেয়ে পুলিশ উত্তর চান্দগ্রামের একটি বাড়ির বাঁশঝাড়ের নিচ থেকে আব্দুল মজিদের লাশ উদ্ধার করে। লাশ উদ্ধারের দুদিন পর ২০ জুলাই আব্দুল মজিদের ছেলে ইমাম হোসেন বড়লেখা থানায় অজ্ঞাতনামা আসামি করে একটি মামলা করেন। মামলাটি পরে সিআইডির কাছে হস্তান্তর করা হয়। সিআইডি দীর্ঘ তদন্ত শেষে গত সোমবার (৯ এপ্রিল) নেত্রকোনা জেলার মোহনগঞ্জ উপজেলার খিদিরপুর থেকে জুমনকে গ্রেফতার করে। গত বুধবার (১১ জুলাই) জুমন আদালতে হত্যার সাথে জড়িত থাকার বিষয়ে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দিয়েছে। জুমন আরও কয়েকজনের নাম বলেছে। সিআইডি তাঁর দেওয়া তথ্য যাচাইবাছাই করে দেখছে।
সিআইডি মৌলভীবাজার জেলার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. আরিফুল ইসলাম গতকাল বৃহস্পতিবার (১২ এপ্রিল) গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘টাকার জন্য আব্দুল মজিদকে হত্যা করা হতে পারে। আব্দুল মজিদ সাথে নগদ টাকা রাখতেন। জুমন টাকা পাওয়ার কথা বলেছে। আরও যেসব তথ্য দিয়েছে। আমরা যাচাইবাছাই করে দেখছি।’