নববর্ষে উন্নত সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার অঙ্গীকার প্রধানমন্ত্রীর

../news_img/60148 mrini.jpg

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: নতুন বছরে সব বাধা অতিক্রম করে উন্নত ও সমৃদ্ধ এক বাংলাদেশ গড়ার অঙ্গীকার করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শনিবার প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে সর্বস্তরের মানুষের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময়কালে তিনি এ অঙ্গীকার করেন।

এ সময় দেশে-বিদেশের সব বাঙালিকে নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে নববর্ষ উদযাপন একটি সার্বজনীন উৎসব। এ উৎসব উদযাপনে যত বাধাই আসুক, বাঙালি কোনো বাধা মানে না। এ জাতি বাধা ভাঙতে জানে।

শেখ হাসিনা বলেন, পৃথিবীতে অনেক দেশ আছে। সব দেশেই নববর্ষের অনুষ্ঠান হয়। কিন্তু ভাষাভিত্তিক রাষ্ট্র এই উপমহাদেশে শুধু বাংলাদেশ। আমরা বাংলা ভাষায় কথা বলি, বাংলায় হাসি, বাংলায় কাঁদি, বাংলায় জীবন চর্চা করি।

তিনি বলেন, ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে আমরা নববর্ষ উদযাপন করি। সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বৈশাখী ভাতা চালু করা হয়েছে। প্রবাসীরাও নানা অনুষ্ঠানে নতুন বছরকে বরণ করে নেন।

বর্ষবরণে বিএনপি সরকারের বাধার কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ১৯৯২ সালে আমরা ১৪০০ বঙ্গাব্দকে বরণ করতে অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিলাম। কিন্তু সেখানে তৎকালীন খালেদা জিয়া সরকার বাধা দেয়। আমরা কবি সুফিয়া কামালকে নিয়ে সেসব বাধা উপেক্ষা করে রমনা পার্কে আয়োজিত অনুষ্ঠানে নতুন শতাব্দীকে স্মরণ করি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, এই নতুন বছর আমাদের জন্য শুভ ফল নিয়ে আসুক, যেন বাংলাদেশকে জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা হিসাবে গড়তে পারি।

শেখ হাসিনা বলেন, জাতির পিতার স্বপ্নের ক্ষুধামুক্ত, দারিদ্র্যমুক্ত বাংলাদেশ গড়ে তুলব; এটাই নববর্ষে আমাদের প্রতিজ্ঞা।

বাংলা ভাষা ও সংস্কৃতির ওপর আঘাত হানতে পারে- তেমন ‘অপশক্তি’ যেন আর কখনও রাষ্ট্র ক্ষমতায় আসতে না পারে, সে বিষয়ে সবাইকে সতর্ক করেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, আমাদের দেশে কখনও যেন আর এই ধরনের অশুভ শক্তি না আসে, যারা আমাদের ঐতিহ্যের ওপর আঘাত করবে, ভাষার ওপর আঘাত করবে, সংস্কৃতির ওপর আঘাত করবে, আমাদের নিজেদের অস্তিত্বের ওপর আঘাত করবে।