লন্ডনের স্থানীয় নির্বাচনে ১৬ কাউন্সিলর ব্রিটিশ-বাংলাদেশি

../news_img/60440 mrini.jpg

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: ইংল্যান্ডের স্থানীয় সরকার নির্বাচনে রাজধানী লন্ডনের তিনটি বারা কাউন্সিলে ১৬ জন ব্রিটিশ-বাংলাদেশি কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার ইংল্যান্ডের দেড়শ কাউন্সিলে এই নির্বাচন হয়, যার অনেকগুলোর ফল এখনও ঘোষণার অপেক্ষায়।

এবারের এই স্থানীয় নির্বাচনে লন্ডন ও এর বাইরের বিভিন্ন এলাকায় বিপুল সংখ্যক ব্রিটিশ-বাংলাদেশি প্রধান তিন রাজনৈতিক দল কনজারভেটিভ পার্টি, লেবার পার্টি ও লিবারেল ডেমোক্রেট পার্টির প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।

স্থানীয় সময় শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত ঘোষিত ফলাফলে লন্ডনের ক্যামডেন বারা কাউন্সিলে ৬ জন, রেডব্রিকজ বারা কাউন্সিলে ৮ জন এবং ক্রয়ডন বারা কাউন্সিলে দুজন ব্রিটিশ-বাংলাদেশি কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছেন।

বাঙালি অধ্যুষিত পূর্ব লন্ডনের টাওয়ার হ্যামলেটসে কাউন্সিলরদের ভোট গণনা চলছে। এই বারায় ২১৩ জন কাউন্সিলর প্রার্থীর মধ্যে অধিকাংশই ব্রিটিশ-বাংলাদেশি। সেখানে বেশ কয়েকজন বাংলাদেশি কাউন্সিলর নির্বাচিত হবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এছাড়া লন্ডনের নিউহ্যাম বারায় লেবার পার্টি থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী আট ব্রিটিশ-বাংলাদেশির প্রত্যেকের বিজয়ী হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

শুক্রবার সন্ধ্যায় নিউহ্যাম ও টাওয়ার হ্যামলেটসের ফলাফল ঘোষণা হতে পারে।

ক্যামডেন বারায় গতবারও ছয়জন কাউন্সিলর ছিলেন ব্রিটিশ-বাংলাদেশি।বর্তমান ব্রিটিশ পার্লামেন্টের সদস্য টিউলিপ সিদ্দিক এক সময় এই বারার কাউন্সিলর ছিলেন।

রেডব্রিকজ বারায় ব্রিটিশ-বাংলাদেশি কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছেন এবারই প্রথম।প্রধান বিরোধী দল লেবার পার্টি থেকে নির্বাচিত এই বাঙালিরা হলেন- সৈয়দা সায়মা আহমদ, তাইফুর রশীদ, সৈয়দ শামসিয়া আলী, জোৎসনা ইসলাম, খায়ের চৌধুরী, শাম ইসলাম, খালেদ নুর ও মোহাম্মদ জামাল উদ্দিন।

ক্রয়ডন বারায় হুমায়ুন কবরি ও শেরওয়ান চৌধুরী দ্বিতীয় দফায় কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছেন।

তবে বাংলাদেশিদের জন্য সবচেয়ে উত্তেজনাপূর্ণ নির্বাচন ছিল টাওয়ার হ্যামলেটসে। চার বছর পরের এই নির্বাচনে আবারও নির্বাহী মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন লেবার পার্টির জন বিগস। তিনি ভোট পেয়েছেন ৪৪ হাজার ৮৬৫টি, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বাঙালি প্রার্থী রাবিনা খান পেয়েছেন ১৬ হাজার ৮৭৮ ভোট।

এই বারায় লেবার পার্টির মনোনয়নে কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন ২৫ জন ব্রিটিশ-বাংলাদেশি।

মৃদুভাষণ ডেস্ক :: দুপুর পর্যন্ত ১৫০টি কাউন্সিলের মধ্যে ১১০টির ফলাফল পাওয়া গেছে। ঘোষিত ফলাফল বিশ্লেষণে দেখা গেছে, লন্ডন মহানগরে লেবার পার্টির অবস্থান ভালো হলেও দেশব্যাপী ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টি ১ শতাংশ বেশি ভোট টানতে সক্ষম হয়েছে। তৃতীয় রাজনৈতিক দল লিবারেল ডেমোক্রেট-লিবডেম এই স্থানীয় কর্তৃপক্ষের নির্বাচনে দেশব্যাপী বিজয়ী কাউন্সিলরের সংখ্যা বাড়িয়েছে।

তবে ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে যুক্তরাজ্যের বেরিয়ে যাওয়ার পক্ষে প্রচার চালানো দল ইউকিপের ভরাডুবি হয়েছে এই নির্বাচনে।

প্রাপ্ত ফলাফল অনুযায়ী দেশব্যাপী লেবার পার্টির বিজয়ী কাউন্সিলরের সংখ্যা ১৫৬২, যা আগের তুলনায় ৪৮ জন বেশি। আর কনজারভেটিভের সংখ্যা আগের মতোই ৯৪৮। লিবডেমের কাউন্সিলর ৩৪৫, যা আগের চেয়ে ৩৫ জন বেশি। ইউকিপের কাউন্সিলর ১০৬ থেকে তিন জনে নেমে এসেছে।